ঢাকা, মঙ্গলবার,২৪ এপ্রিল ২০১৮

অন্যদিগন্ত

ট্রাম্প মিথ্যাবাদী ও প্রেসিডেন্টের অযোগ্য : জেমস কমি

এএফপি ও বিবিসি

১৭ এপ্রিল ২০১৮,মঙ্গলবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য ‘নৈতিকভাবে অযোগ্য’ বলে মন্তব্য করেছেন এফবিআইর সাবেক পরিচালক জেমস কমি। তা ছাড়া তিনি ট্রাম্পকে চরম মিথ্যাবাদী বলেও আখ্যায়িত করেছেন। অস্ট্রেলিয়ান সংবাদমাধ্যম এবিসিতে রোববার প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেন।
ট্রাম্প সম্পর্কে কমি বলেন, ‘তিনি মানসিকভাবে অক্ষম বা পাগলের প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছেন আমি তা বলব না। আমার মনে হয় না তিনি স্বাস্থ্যগত দিক দিয়ে প্রেসিডেন্ট হওয়ার অনুপয্ক্তু। আমি মনে করি প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য তিনি নৈতিকভাবে অযোগ্য।’ জেমস কমি আরো বলেন, এই দেশের অন্তস্তলে থাকা মূল্যবোধের প্রতি আমাদের প্রেসিডেন্টের অবশ্যই শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা থাকতে হবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সত্যি বলা। এই প্রেসিডেন্ট তা করতে অক্ষম। হিলারি ক্লিনটনের ই-মেইল তদন্তের সময় আচরণ ও ২০১৬ সালের নির্বাচনে ট্রাম্পের প্রচারণা দলের সাথে রাশিয়ার যোগসাজশ তদন্তের উদ্যোগ নেয়ায় ২০১৭ সালের মে মাসে এফবিআই পরিচালকের পদ থেকে জেমস কমিকে বরখাস্ত করেন ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাত্র ১১ দিন আগে কমি ঘোষণা দিয়েছিলেন মন্ত্রী থাকাকালীন হিলারি ক্লিনটনের ব্যক্তিগত ই-মেইল ব্যবহারের অভিযোগ আবারো তদন্ত করা হবে। হিলারি এই ঘটনাকে তার পরাজয়ের অন্যতম কারণ হিসেবে মনে করেন। কমি ট্রাম্প সম্পর্কে এমন মন্তব্য করার আগে কয়েক দিন ধরে ট্রাম্প কয়েকটি টুইট বার্তায় কমিকে আক্রমণ করছেন। তিনি অভিযোগ করেছেন, ই-মেইল তদন্তের বিষয়টি বোকার মতো পরিচালনা করা হয়েছে। একই সাথে জেমস কমিকে ব্যক্তিগত আক্রমণও করেছেন ট্রাম্প।
নিয়োগের দুই দিন পর পদত্যাগ
রয়টার্স জানায়, নিয়োগের মাত্র দুই দিন পরই পদত্যাগ করলেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের নতুন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন লার্নার। তার নিয়োগ নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অস্বস্তির খবর সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ায় তিনি পদত্যাগ করেন। হোয়াইট হাউজের এক কর্মকর্তা এ খবর জানিয়েছেন। বর্তমানে জাতিসঙ্ঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালির সিনিয়র উপদেষ্টা জন লার্নারকে গত শুক্রবার পেন্সের পররাষ্ট্র নীতিবিষয়ক উপদেষ্টা নিয়োগ দেয়া হয়। তবে তার নিয়োগ নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অস্বস্তির খবর সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ হয়ে গেলে তিনি পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন। ট্রাম্প দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই প্রশাসনের বিভিন্ন পদের কর্মকর্তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব বা ট্রাম্পের অপছন্দের কারণে অনেকেই পদত্যাগ করেছেন। কেউ কেউ বহিষ্কারও হয়েছেন। কিন্তু এত দিন ভাইস প্রেসিডেন্টে পেন্স এসব বিতর্ক থেকে দূরে ছিলেন। এবার নিয়োগের মাত্র দুই দিনের মাথায় পদত্যাগ করলেন তার উপদেষ্টা।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫