গাজার সবচেয়ে বড় সুড়ঙ্গ ধ্বংসের দাবি ইসরাইলের

বিবিসি

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় সবচেয়ে দীর্ঘ ও গভীর সুড়ঙ্গ ধ্বংসের দাবি করেছে ইসরাইল। দেশটির কর্মকর্তাদের দাবি, এই সুড়ঙ্গ দিয়েই ফিলিস্তিনিরা ইসরাইল যাওয়া আসা করত। ইসরাইলি প্রতিরক্ষামন্ত্রী আভিগদোর লিবারম্যান বলেন, ইসরাইলের আবিষ্কৃত এটিই সবচেয়ে দীর্ঘ সুড়ঙ্গ। ইসরাইলি সেনাবাহিনীর মুখপাত্র জোনাথন কনরিকাস জানান, ২০১৪ সালের গাজা যুদ্ধের সময় সুড়ঙ্গটি খোঁড়া হয়। ওই যুদ্ধের সময় হামলার আশঙ্কায় ৩০টিরও বেশি সুড়ঙ্গ ধ্বংস করা হয়েছিল। কেউ যেন আর কোনো টানেল নির্মাণ করতে না পারে সে জন্য কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের হুঁশিয়ারি দেন এই সেনা কমান্ডার।
তার দাবি, ফিলিস্তিনের সশস্ত্রবাহিনী হামাস হামলার উদ্দেশ্যে এই সুড়ঙ্গটি খুঁড়েছে। সুড়ঙ্গটি গাজা উপত্যকার উত্তরাঞ্চলীয় জাবালিয়া অঞ্চল থেকে শুরু হয়ে ইসরাইলি নাহাল ওজি শহরের কয়েক মিটার পর্যন্ত প্রবেশ করেছে বলে জানান তিনি। তবে টানেলটির বের হওয়ার কোনো পথ নির্মাণ করা হয়নি। হামলার সুবিধার্থে এই সুড়ঙ্গটির সাথে আরেকটি সুড়ঙ্গ জোড়া দেয়া ছিল বলেও জানান এই ইসরাইলি সেনা কর্মকর্তা।
সুড়ঙ্গটি গাজার কয়েক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বিস্তৃত। এখান থেকে হামলা করা সম্ভব ছিল। কনরিকাস বলেন, ‘আমরা সুড়ঙ্গে এমন কিছু বস্তু পেয়েছি যা প্রমাণ করে যে, অনেক দিন ধরেই সুড়ঙ্গ খোঁড়া হচ্ছিল। সাম্প্রতিক সময়ে এটি ইসরাইলের ধ্বংস করা পঞ্চম সুড়ঙ্গ। গাজা উপত্যকায় গোপন সুড়ঙ্গের শনাক্তে গত বছর থেকে বিশেষ উপকরণ নিয়ে মাঠে নেমেছিল ইসরাইল। এবার তারা নতুন সুড়ঙ্গ নির্মাণ প্রতিরোধে শুধু মাটির ওপরে নয় বরং সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলোয় মাটির নিচেও হাইটেক সীমান্ত বেষ্টনী স্থাপন করতে শুরু করেছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.