ঢাকা, সোমবার,২৩ এপ্রিল ২০১৮

ক্রিকেট

মুম্বাই কেমন লাগছে মোস্তাফিজের

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৬ এপ্রিল ২০১৮,সোমবার, ১৬:৫৬


প্রিন্ট
মুম্বাই কেমন লাগছে মোস্তাফিজের

মুম্বাই কেমন লাগছে মোস্তাফিজের

২০১৬ সালের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) টি-২০ ক্রিকেটে অভিষেক হয় বাংলাদেশের কাটার মাষ্টার মোস্তাফিজুর রহমানের। অভিষেকের পর সানরাইজার্স হায়দারবাদে দু’বছর কাটানোর পর আইপিএলের চলতি আসরে নতুন দল পেয়েছেন ফিজ। এবারের আসরে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে খেলছেন তিনি। প্রায় তিন সপ্তাহ হতে চলল, মুম্বাইয়ের সাথে আছেন এবং ইতোমধ্যে ৩টি ম্যাচ খেলেও ফেলেছেন ফিজ। এই তিন সপ্তাহের অভিজ্ঞতা থেকে মুম্বাই ড্রেসিংরুম বেশ উপভোগ করছেন মোস্তাফিজ। আজ মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে একটি ভিডিও বার্তায় মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সে নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশের এই বাঁহাতি পেসার।

ভিডিওতে মোস্তাফিজ বলেন, ‘এ বছর প্রথমবার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সে খেলছি। এর আগের দু’বছর আমি হায়দারাবাদে খেলেছি। এটা নতুন ড্রেসিং রুম, এখানে সিনিয়র অনেক খেলোয়াড় আছে। আমার বয়সীও অনেকে আছে। টিম কম্বিনেশন অনেক ভালো। কোচরা যথেষ্ট সাহায্য করছেন। খেলোয়াড়রাও অনেক সাহায্য করছে।’

হায়দরাবাদে মোস্তাফিজের কোচ ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক খেলোয়াড় টম মুডি। এবার মুম্বাইয়ে তার প্রধান কোচ শ্রীলংকার সাবেক অধিনায়ক মাহেলা জয়াবর্ধনে। সাথে আরো আছেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক পেসার শেন বন্ড। বোলিং কোচের দায়িত্ব পালন করছেন বন্ড। তাই জয়াবর্ধনে ও বন্ডের কাছে অনেক কিছুই শিখছেন বলে জানান ফিজ, ‘নতুন কোচের সাথে কাজ করলে সব সময় নতুন অনেক কিছু শেখা যায়। আমিও শেখার চেষ্টা করছি।’

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের পেস আক্রমণে ভরসার প্রতীক মোস্তাফিজুর ও ভারতের জসপ্রিত বুমরাহ। প্রথম তিন ম্যাচ বিবেচনায় যখন তখন ব্রেক-থ্রু এনে দেয়ার পাশাপাশি ডেথ ওভারেও পারদর্শিতা দেখাচ্ছেন দু’জনে। বুমরাহ’র সাথে রসায়নটা বেশ ভালোই জমে উঠেছে তার। বুমরাহ’র সাথে বোলিং উপভোগ করছেন ফিজ, এমনটা অকপটে স্বীকার করলেন, ‘বুমরাহ এখন খুব ভালো বোলিং করছে। বিশেষ করে ডেথ ওভারে সে খুবই ভালো বোলিং করে। এখন দু’জন একসাথে বোলিং করতে পারছি, আমারও খুব ভালো লাগছে।’

মুস্তাফিজ-বুমরাহ’র দুর্দান্ত নৈপুণ্যের পরও টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচই হারে মুম্বাই। এখন পর্যন্ত ফিজ ৫টি ও বুমরাহ ৩টি উইকেট নিয়েছেন।

গেইলের ব্যাটিং নৈপূন্যের কাছে ম্লান হলো ধোনির দুর্দান্ত ইনিংস
প্রথম দু’ম্যাচ সুযোগ না পেলেও তৃতীয় ম্যাচে সুযোগ পেয়েই নিজের ব্যাটিং নৈপুণ্য দিয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) টি-২০ ক্রিকেটের এগারতম আসরে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে দ্বিতীয় জয়ের স্বাদ দিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইল। নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসকে ৪ রানে হারিয়েছে পাঞ্জাব। ৪৪ বলে অপরাজিত ৭৯ রানের ইনিংস খেলেও দলকে হারের লজ্জা থেকে রক্ষা করতে পারেননি চেন্নাইয়ের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। তৃতীয় ম্যাচে এসে এবারের আসরে প্রথম হারের স্বাদ পেল চেন্নাই।

প্রতিপক্ষের মাঠে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্বান্ত নেয় চেন্নাই। ব্যাট হাতে নেমেই ঝড় তুলেন পাঞ্জাবের দুই ওপেনার লোকেশ রাহুল ও গেইল। ৪৮ বলে উদ্বোধনী জুটিতে ৯৬ রান যোগ করেন তারা। এরমধ্যে ৩৭ রান অবদান ছিলো রাহুলের। তবে ২২ বলে হাফ-সেঞ্চুরি করেন গেইল। শেষ পর্যন্ত ৭টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৩৩ বলে ৬৩ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলেন তিনি।

তার বিদায়ের পর মায়ানক আগারওয়ালের ১৯ বলে ৩০, করুন নায়ারের ১৭ বলে ২৯ ও যুবরাজ সিং-এর ১৩ বলে ২০ রানের সুবাদে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৯৭ রান করে পাঞ্জাব। চেন্নাইয়ের পক্ষে শারদুল ঠাকুর ও ইমরান তাহির ২টি করে উইকেট নেন।

জয়ের জন্য ১৯৮ রানের লক্ষ্য পেয়ে ৫৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসে চেন্নাই। তবে পঞ্চম উইকেটে আম্বাতি রাইদু ও ধোনি ৫৭ রানের জুটি গড়ে চেন্নাইয়ে খেলায় ফেরান। রাইদু ৪৯ রানে ফিরে গেলেও দলের হাল ধরে রাখেন ধোনি। তবে শেষ ৩ ওভারে জয়ের জন্য ৫৫ রান প্রয়োজন পড়ে চেন্নাইয়ের।
নিজের সেরাটা দিয়ে সর্বোচ্চ চেষ্টাই করেছিলেন ধোনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দলকে আর জেতাতে পারেননি তিনি। তাই ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৯৩ রান পর্যন্ত করতে পারে চেন্নাই। ৬টি চার ও ৫টি ছক্কায় ৪৪ বলে অপরাজিত ৭৯ রান করেন ধোনি। পাঞ্জাবের অস্ট্রেলিয়া এন্ড্রু তাই ২ উইকেট নেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন পাঞ্জাবের গেইল।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫