টেকনাফে বিজিবি-বিজিপি পতাকা বৈঠক

কক্সবাজার (দক্ষিণ) সংবাদদাতা

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমার বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক পর্যায়ের সৌজন্য সাক্ষাত ও পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার ১০টার সময় বাংলাদেশের অভ্যন্তরে টেকনাফ বন্দরস্থ মালঞ্চ রেস্ট হাউজে উভয় পক্ষের বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলা এ বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে ১০ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন টেকনাফস্থ ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লে. কর্নেল মো: আছাদুদ-জামান চৌধুরী। মিয়ামারের পক্ষে ১১ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন মংডুস্থ ২ নং বর্ডার গার্ড পুলিশ ব্রাঞ্চ অধিনায়ক লে. কর্নেল লিন থত মিšথ।

উক্ত সৌজন্য সাক্ষাত অনুষ্ঠানে নাফনদীতে উভয় পক্ষের যৌথ টহল সৌহার্দ্যপূর্ণভাবে সম্পন্ন করা, নতুন দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের পরিচিতি পর্ব ছাড়াও দ্বিপাক্ষিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিজিবি সূত্র।

টেকনাফ ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক মো: আছাদুদ-জামান চৌধুরী বলেন, ব্যাটালিয়ন কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠকটি সৌজন্য সাক্ষাত হলেও সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ, মাদক পাচার, সীমান্তের নানা সমস্যা, সুবিধা-অসুবিধাসহ দ্বিপাক্ষিক বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আলোকপাত হয়েছে। সীমান্ত সুরক্ষা ও মাদক পাচার রোধে উভয় পক্ষ যাতে এক ও অভিন্নভাবে কাজ করে সে বিষয়ের উপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

এ ছাড়া মিয়ানমারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশে পাবিস্থানী কোনো উগ্রবাদী বা সন্ত্রাসীর অবস্থান আছে কি না এমন পশ্নের জবাবে বিজিবি কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশে অভ্যন্তরে মিয়ানমারের জন্য হুমকি হয় এ ধরনের কোন সন্ত্রাসী অবস্থান নেই এবং কোনো বিদেশী সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে বাংলাদেশের মাটি ব্যবহার করতে না দেয়ার নীতিতে বিশ্বাসী বর্তমান সরকার। এ ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকার ও বিজিবি সর্তক বলেও জানান তিনি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.