ঢাকা, বুধবার,২৫ এপ্রিল ২০১৮

চট্টলা সংবাদ

দুদককে বিরোধী দল দমনের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে সরকার : ডা: শাহাদাত

চট্টগ্রাম ব্যুরো

০৫ এপ্রিল ২০১৮,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: শাহাদাত হোসেন বলেছেন, সংবিধানে দেয়া মানুষের মৌলিক অধিকার হরণ করছে সরকার। জনগণের কথা বলার অধিকার, রাজনৈতিক দলের সভা-সমাবেশের অধিকার ও গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে বর্তমান সরকার। সংবিধানের কোনো অংশই মানছেন না তারা। আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রে বিশ্বাসী নয় বলেই সংবিধানের তোয়াক্কা করছে না।
তিনি গত মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর নাসিমন ভবনের দলীয় কার্যালয় মাঠে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উদ্যোগে বেগম জিয়ার মুক্তির দাবিতে কেন্দ্র ঘোষিত বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশন ও সরকার একাকার হয়ে গেছে। দুদককে এখন বিরোধী দল দমনের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে সরকার। একটি জনপ্রিয় দল বিএনপিকে ধ্বংস করার জন্য ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা মামলা দিয়ে বেগম জিয়াকে কারাগারে বন্দী করে রেখেছে। দুদককে দিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের বিরুদ্ধে বায়বীয় অভিযোগ এনে মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করছে। আগামী সংসদ নির্বাচনে বিএনপির সক্রিয় নেতাদের হেয় করার জন্য এ মামলা করা হয়েছে। চট্টগ্রামের পরিচ্ছন্ন ও জনপ্রিয় নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, এম মোরশেদ খান ও ফয়সাল মোর্শেদ খানসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের বিরুদ্ধে দুদকের অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তিনি বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি, শিক্ষানীতি দুটোই ধ্বংস হয়ে গেছে। ফারমার্স ব্যাংকের মালিক মহিউদ্দিন খান আলমগীর ব্যাংক লুটপাট করে শেষ করেছেন। দুদকের মামলায় তিনি দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। তার পরও তিনি এমপি রয়ে গেছেন, মন্ত্রীও হয়েছিলেন। এ হচ্ছে বাংলাদেশের আইনের স্বাধীনতা। বেসিক ব্যাংক, জনতা ব্যাংক থেকে টাকা লুটপাট হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের টাকার কোনো খোঁজ নেই। শেয়ারবাজার ও বিভিন্ন ব্যাংকের টাকা লুটপাটের ব্যাপারে সরকার নীরব। শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারির বিষয়ে তদন্ত কমিটির অনুসন্ধানে সরকারি দলের লোকজনের নাম উঠে আসায় সেই তদন্ত রিপোর্ট আজো প্রকাশ করা হয়নি।
নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর বলেছেন, বিনা ভোটে ক্ষমতা দখলদার সরকার দেশের জনগণের সাথে তামাশা করছে। জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে সভা-সমাবেশে আবার ভোট চাচ্ছে। এটি জাতির সাথে তামাশা ছাড়া আর কিছুই নয়। সরকার শুধু ভোটাধিকার নয় কেড়ে নিয়েছে মতপ্রকাশের স্বাধীনতাও। লুটপাটের মাধ্যমে ধ্বংস করেছে দেশের অর্থনীতি। বাংলাদেশ ব্যাংক লুট হলো, ব্যাংকিং ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে গেল; অথচ দুদক এক্ষেত্রে মামলা করা তো দূরে থাক এদের বিরুদ্ধে একটা শব্দও বলেনি।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫