সাফারি পার্কের তিন পায়ের বাঘিনীর মৃত্যু
সাফারি পার্কের তিন পায়ের বাঘিনীর মৃত্যু

সাফারি পার্কের তিন পায়ের বাঘিনীর মৃত্যু

মোহাম্মদ আলী ঝিলন, গাজীপুর

গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কের এক বাঘিনীর মৃত্যু হয়েছে। বাঘটি ২০১০ সালে সুন্দরবন থেকে উদ্ধার হওয়া তিন পাওয়ালা ওই বাঘটি এ পার্কে স্থানান্তর করা হয়।

সাফারি পার্কের প্রকল্প পরিচালক মো. সামসুল আজম জানান, বাঘিনীটি দীর্ঘ দিন ধরেই অসুস্থ ছিল রোববার সকাল ১০টার দিকে বাঘটির মৃত্যু হয়েছে।

পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোতালেব হোসেন জানান, ২০১০ সালে বাঘটি সুন্দরবন থেকে বের হয়ে লোকালয়ে গেলে মানুষ তাকে হামলা করে পেছনের ডান পা কেটে ফেলেছিল। পরে তাকে উদ্ধার করে ওই পার্কে পাঠানো হয়। বাঘিনীটির বয়স ছিল ১৯ বছরের মতো।

প্রাকৃতিক পরিবেশে একটি বাঘ সর্বোচ্চ ১৪-১৫ বছর বাঁচে। সম্প্রতি ভাঙ্গা পাটিতে ইনফেকশন ছাড়াও বাঘিনীটি বার্ধক্যজনিত নানা রোগেও ভুগছিল। তার যথাযথ চিকিৎসাও চলছিল। কিন্তু রোববার সকালে তার মৃত্যু হয়।

বাঘটির মৃত্যুর পর এখন এ পার্কে বাঘ পরিবারের সদস্য সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০-এ। বাঘটির চামড়া রেখে তা দিয়ে প্রক্সিডার্মিস (ভেতরে তুলাজাতীয় দ্রব্য ভরে উপড়ে চামড়া দিয়ে সেলাই করে হুবহু বাঘের আকৃতি) করে এখানকার যাদুঘরে রাখা হবে। ময়না তদন্ত শেষে তার দেহ পার্কেই মাটিচাপা দেয়া হবে এবং কিছু অংশ পরীক্ষার জন্য ঢাকার কেন্দ্রীয় গবেষণা ল্যাবে পাঠানো হবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.