পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলি বিশপের সাথে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল
পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলি বিশপের সাথে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল

এবার ২ রুশ কূটনীতিককে বহিস্কার করল অস্ট্রেলিয়া

নয়া দিগন্ত অনলাইন

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল আগামী সাত দিনের মধ্যে রাশিয়ার দুই কূটনীতিককে ক্যানবেরা ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

ব্রিটেনে নার্ভ এজেন্ট (বিষাক্ত রাসায়নিক গ্যাস) প্রয়োগ করে রাশিয়ার সাবেক গোয়েন্দা কর্মকর্তা ও তার মেয়েকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগের বিতর্কের জের ধরে বিশ্বের আরো অনেক দেশের মতো এবার ক্যানবেরাও মস্কোর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিল। খবর সিনহুয়ার।

এর আগে সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প রাশিয়ার ৬০ কূটনীতিককে ওয়াশিংটন থেকে বহিস্কারের নির্দেশ দেন।

আজ মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলি বিশপের সাথে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে টার্নবুল বলেন, এ বহিস্কার রাশিয়ার জন্য একটি স্পষ্ট বার্তা।

গত ৪ মার্চ ব্রিটেনে রাশিয়ার সাবেক গোয়েন্দা কর্মকর্তা সের্গেই স্ক্রিপাল এবং তার মেয়ে উলিয়াকে বিষাক্ত রাসায়নিক গ্যাস প্রয়োগ করে হত্যা প্রচেষ্টা চালানোর পর অস্ট্রেলিয়া এমন পদক্ষেপ নিল।

সংবাদ সম্মেলনে বিশপ মধ্য জুন থেকে রাশিয়ায় আয়োজিত বিশ্ব কাপ খেলা অস্ট্রেলিয়া বর্জন করতে পারে বলেও ইঙ্গিত দিয়েছেন।

এদিকে স্ক্রিপালকে হত্যা প্রচেষ্টা চালানোর ঘটনায় কোনভাবে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে রাশিয়া।

 

ইউরোপ আমেরিকা থেকে দলে দলে রুশ কূটনীতিক বহিস্কার

বিবিসি

ঘটনার শুরুটা ব্রিটেন থেকে। এরপর এই ঘটনার সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র ওয়াশিংটন ও নিউইয়র্ক থেকে ৬০ জন রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ৬০ জন রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করার আদেশ দিয়েছেন।

এছাড়া, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ১৪টি দেশ রুশ কূটনীতিককে বের করে দেওয়ার কথা জানিয়েছে। জার্মানি, ফ্রান্স এবং পোল্যান্ড চারজন করে রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করছে।

ইউক্রেন জানিয়েছে ব্রিটেনের প্রতি সমর্থন জানাতে তারা ১৩ জন রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করছে।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাকারোভা ইউরোপীয় ইউনিয়নের তীব্র নিন্দা করে বলেছেন- ঘটনার বিকৃত ব্যাখ্যার ওপর ভর করে তারা ব্রিটেনকে এভাবে সমর্থন করছে।

তিন সপ্তাহ আগে ব্রিটেনে একজন সাবেক রুশ ডাবল এজেন্ট সেরগেই স্ক্রিপাল এবং তার মেয়ের ওপর নার্ভ এজেন্ট দিয়ে যে আক্রমণ হয় - তার প্রতিক্রিয়াতেই পশ্চিমা দেশগুলোর পক্ষ থেকে সমন্বিতভাবে এসব ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

যে ৬৪ জন রুশ কূটনীতিককে বহিষ্কার করা হচ্ছে, তাদের ৪৮ জন রুশ দূতাবাসে কাজ করেন। বাকিরা নিউইয়র্কে জাতিসংঘে রুশ দূতাবাসে কাজ করেন’।

রাশিয়া সবসময় ব্রিটেনে ঐ হত্যা চেষ্টার কথা অস্বীকার করেছে। কিন্তু আমেরিকাসহ পশ্চিমা মিত্ররা ব্রিটেনের অভিযোগকেই সত্য হিসাবে গ্রহণ করেছে বলে মনে হচ্ছে।

মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘৪ মার্চ সলসবারিতে এক ব্রিটিশ নাগরিক ও তার মেয়েকে হত্যার চেষ্টায় সামরিক-গ্রেডের নার্ভ এজেন্ট ব্যবহার করেছে রাশিয়া। আমাদের মিত্র যুক্তরাজ্যের ওপর এ হামলায় অনেকের জীবন হুমকির মুখে। ওই হামলায় এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন।’ বিবৃতিতে এ হামলাকে ‘কেমিক্যাল ওয়েপনস কনভেনশন এবং আন্তর্জাতিক আইনের ভয়াবহ ও জঘন্য লঙ্ঘন’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.