ঢাকা, বুধবার,২৫ এপ্রিল ২০১৮

নগর মহানগর

হোলে আর্টিজানে অস্ত্র সরবরাহকারী সাগরসহ ২ জন গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৩ মার্চ ২০১৮,শুক্রবার, ০০:১৬


প্রিন্ট

গুলশানের হোলে আর্টিজানে উগ্রবাদী হামলায় অস্ত্র সরবরাহকারী জেএমবির হাদিসুর রহমান সাগরকে গ্রেফতার করা হয়। তার সঙ্গে পান্থপথে বোমা হামলার অর্থের যোগানদাতা আকরাম হোসেন খান নিলয় (২৪) নামে জেএমবির আরেক সদস্য গ্রেফতার হয়েছে। গত বধুবার রাত দেড়টার দিকে বগুড়ার শিবগঞ্জ থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) ডিসি মহিবুল ইসলাম খান। তাদের কাছ থেকে দুটি মোবাইল উদ্ধার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে হাদিসুর রহমান সাগর (৩৬) জয়পুরহাটের সদর থানার কয়রাপাড়া পলিকাদোয়া গ্রামের হারুন অর রশিদের ছেলে এবং আকরাম হোসেন খান নিলয় কিশোরগঞ্জের মিঠামইন থানার চারিগ্রামের আবু তোরাব খানের ছেলে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে হাদিসুর রহমান সাগর গুলশান হোলে আর্টিজানে হামলার অন্যতম সমন্বয়ক ও অস্ত্রের যোগানদাতা। সাগরকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড পেয়েছে। আকরাম হোসেন খান নিলয় (২৪) জেএমবির মূল সমন্বয়ক ও অর্থদাতা। এ ছাড়া গত বছরের ১৫ আগস্ট রাজধানীর পান্থপথে জাতীয় শোক দিবসের র‌্যালিতে হামলার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে নিলয়ের নাম তদন্তে উঠে এসেছে।
সিটিটিসির ডিসি মহিবুল ইসলাম বলেন, গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার করা মোবাইল ফোনে প্রাথমিক পর্যালোচনায় তাদের জঙ্গি সংশ্লিষ্ট গোপন যোগাযোগের তথ্য পাওয়া গেছে।
সিটিটিসি সূত্রে জানা যায়, সাগর গুলশানের হোলে আর্টিজান হামলার ঘটনায় অন্যতম সন্দেহভাজন পলাতক আসামি। সে ওই হামলার ঘটনায় অস্ত্র ও বিস্ফোরক সরবরাহ করেছিল বলে পুলিশ তাদের অনুসন্ধানে জানতে পারে। সাগর জেএমবির সদস্য। ২০১৪-১৫ সালে তামিম চৌধুরীর হাত ধরে নব্য জেএমবিতে যোগ দেয় সে। জেএমবিতে সে বোমা তৈরির কারিগর হিসেবেও পরিচিত।
ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা বলেন, এর আগে বগুড়া ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় সাগরের অবস্থান রয়েছেÑ এমন তথ্য থেকে কয়েকটি অভিযান পরিচালনা করা হয়। এরই সূত্র ধরে গত বছরের অক্টোবর মাসে যশোরের পাগলাদহ মালোপাড়ার একটি বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে সাগরের স্ত্রী খাদিজা আক্তারকে গ্রেফতার করা হয়। খাদিজার কাছ থেকেই সাগরের সম্ভাব্য অবস্থান জানতে পেরেছে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কর্মকর্তারা।
সিটিটিসি সূত্রে আরো জানা যায়, গ্রেফতার হওয়া নিলয় জেএমবির অন্যতম শীর্ষ একজন অর্থদাতা। গুলশান হামলার পর থেকে জেএমবিকে সংগঠিত করার চেষ্টা চালিয়ে আসছিল সে। সংগঠনে সে ‘স্পেড উইলসন’ এবং ‘জ্যাক স্পেরো’ নামেও পরিচিত ছিল। এর আগে গত বছরের নভেম্বর মাসে নিলয়ের বাবা আবু তোরাব এবং মা ও বোনকে গ্রেফতার করে সিটিটিসি। বর্তমানে তারা কারাগারে রয়েছেন। নিলয় ও তার পরিবারকে হোটেল ওলিও ইন্টারন্যাশনালে বিস্ফোরণের অর্থের জোগানদাতা হিসবে শনাক্ত করা হয়েছিল।
আদালত প্রতিবেদক জানান, ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় হামলার ঘটনায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে করা মামলায় গ্রেফতারকৃত নব্য জেএমবির শীর্ষ উগ্রবাদী নেতা হাদিসুর রহমান সাগরের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের পরিদর্শক হুমায়ুন কবির দশ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম রায়হানুল ইসলাম ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫