ঢাকা, সোমবার,২৩ এপ্রিল ২০১৮

নগর মহানগর

মশা মারতে ড্রেনে গাপ্পি মাছ

নির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে বাসায় অভিযান চালানো হবে : সাঈদ খোকন

নিজস্ব প্রতিবেদক

২১ মার্চ ২০১৮,বুধবার, ০০:৩৭


প্রিন্ট

নির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে বাসায় অভিযান চালানো হবে জানিয়ে ঢাকা দণি সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেছেন, এডিস মশা স্বচ্ছ পানিতে জন্ম নেয়। মূলত বাসাবাড়ির বদ্ধ স্বচ্ছ পানিতে এ মশা বংশ বিস্তার করে। এ জন্য বাসাবাড়িতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। তবে কোনো নাগরিককে হয়রানি করা হবে না এবং সব হোল্ডিংয়েও অভিযান পরিচালনা করা হবে না। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দেয়া তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এ অভিযান পরিচালনা করবেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
গতকাল ডিএসসিসির অঞ্চল-৪ এর কাজী আলাউদ্দিন রোডের ড্রেনে গাপ্পি মাছ অবমুক্ত করা অনুষ্ঠানে মেয়র এ কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলে ‘স্বচ্ছ ঢাকা’ কর্মসূচির অংশ হিসেবে নগরীর ড্রেনে গাপ্পি মাছ অবমুক্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে ডিএসসিসি। গাপ্পি মাছ কিউলেক্স মশার লার্ভা খেয়ে মশার উৎপাদন রোধ করে।
সাঈদ খোকন বলেন, ১০ হাজার গাপ্প মাছ ডিএস অঞ্চল-৪-এর নালা-নর্দমা-ড্রেনে উন্মুক্ত করে ফলাফল দেখা হবে। যদি ইতিবাচক ফলাফল দেখি তাহলে সব অঞ্চলে এ কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে। তবে এ প্রকল্প শুধু কিউলেক্স মশার জন্য। এডিস মশার জন্য নয় বলে জানান মেয়র। ডিএসসিসির বেশির ভাগ ড্রেন শুকিয়ে গেছে, কিভাবে গাপ্পি মাছ বাঁচবেÑ সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে মেয়র বলেন, গত বছরের নভেম্বর মাস থেকে ড্রেন পরিষ্কারের কাজ শুরু হয়েছে, যা শেষ হবে এপ্রিলে। এ দিকে আমাদের নজর থাকবে।
মশাবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব থেকে নগরবাসীকে নিরাপদ রাখার জন্য এডিস মশার উৎপত্তিস্থলে অভিযান চালানো হবে জানিয়ে মেয়র বলেন, নাগরিকদের মশাবাহিত রোগের হাত থেকে মুক্ত রাখার এ কর্মসূচি আগামী ৮ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে। এ অভিযানকে নেতিবাচকভাবে না দেখার অনুরোধ জানিয়ে মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আমরা সচেতনতামূলক গণবিজ্ঞপ্তি চালু করছি। এক লাখ ৬০ হাজার বাড়ির মালিকের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করা হবে। এছাড়া আজ থেকে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫