রুশ ফুটবলাররা বিশ্বের সবচেয়ে স্বচ্ছ খেলোয়াড়

নয়া দিগন্ত অনলাইন

যেকোন খেলার থেকে রাশিয়ান ঘরোয়া ফুটবল লীগকে স্বচ্ছ ও পরিস্কার হিসেবে দাবি জানিয়েছেন দেশটির বিশ্বকাপ দলের চিকিৎসক এডুয়ার্ড বেজুগ্লোভ।

আগামী জুনে প্রথমবারের মত রাশিয়ায় আয়োজিত হতে যাচ্ছে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গানের সবচেয়ে আকর্ষণীয় আসর বিশ্বকাপ ফুটবল। আর বিশ্বকাপকে সামনে রেখে রাশিয়ান প্রস্তুতিতে সবচেয়ে আগে যে বিষয়টি নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে তা হলো ডোপিং অভিযোগ। বেশ কিছুদিন ধরেই রাশিয়ান অ্যাথলেটদের বিপক্ষে এই ডোপিং অভিযোগ উত্থাপন ও পরবর্তীতে কিছ কিছু ক্ষেত্রে তার সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় এবার ফুটবলারদের নিয়ে এই শঙ্কা দেখা দিয়েছে। ২০১৪ সালে নিজ দেশে ডোপিংয়ের কারণে অ্যাথলেটরা নিষিদ্ধ হওয়ায় সম্প্রতি শেষ হওয়া পিয়ংচ্যাং শীতকালীন গেমসে নিরপেক্ষ দলের হয়ে রাশিয়ান অ্যাথলেটরা অংশ নেয়। ২০১৪ সোচি গেমসে তৎকালীন রাশিয়ান ফুটবল ইউনিয়ন (আরএফইউ) প্রধান ভিটালি মুটকোর অধীনে দলটির প্রস্তুতি নিয়ে ব্যপক সমালোচনা হয়েছিল। ডোপিং গুজবে তার সংশ্লিষ্টরা দারুণভাবে আলোচনার ঝড় তুলেছিল। যে কারণে ডিসেম্বরে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি থেকে তিনি পদত্যাগ করেন।

যদিও রাশিয়ান দলের চিকিৎসক এডুয়ার্ড বেজুগ্লোভ জানিয়েছেন বিশ্বকাপ দলের খেলোয়াড়দের নিয়ে সন্দেহ করার কোনো কারণই নেই। কারণ দীর্ঘদিন ধরেই তারা নিজেদের স্বচ্ছতার প্রমাণ দিয়েছে। তিনি আরো জানিয়েছেন, সব ধরনের ফুটবল লীগে অংশগ্রহনকালী দলগুলোর জন্য আরএফইউ ও রাশিয়ান এন্টি ডোপিং এজেন্সী বাধ্যতামূলক অনলাইন কোর্স ও মেডিক্যাল গাইডলাইন প্রকাশ করেছে। এই ধরনের বিষয় বিশ্বের অন্য কোথাও নেই বলেও এই চিকিৎসক দাবি করেছেন। এডুয়ার্ড আরো বলেন, আমার জানা মতে বিশ্বের এমন কোন খেলা বা দেশ নেই যেখানে নিষিদ্ধ ঔষুধ নিয়ে সমস্যা হয় না। কিন্তু রাশিয়ান ফুটবলে এ পর্যন্ত এমন ধরনের কোন সমস্যা দেখা দেয়নি।

বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ফিফা এখনো রাশিয়ার বিপক্ষে অতীত ও বর্তমান অভিযোগ নিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে। বিশেষ করে রাশিয়ান বিশ্বকাপ দলের বর্তমান খেলোয়াড়দের নিয়ে ফিফা বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে। এডুয়ার্ড জানিয়েছেন, ২০১৫ সালের নভেম্বরে বিশ্ব এন্টি ডোপিং এজেন্সির নির্দেশক্রমে এ পর্যন্ত ১৫০০ রাশিয়ান খেলোয়াড়ের নমুনা বিদেশে পরীক্ষা করা হয়েছে। কিন্তু এর মধ্যেই একটিরও ফলাফল ইতিবাচক আসেনি। এজন্য অবশ্য এডুয়ার্ড ভিটালি মুটকোকে কৃতিত্ব দিতে চান, মানুষ তার সম্পর্কে যা কিছুই চিন্তা করুক না কেন। বিভিন্ন ধরনের আলোচনায় মুটকো বারবার এ সম্পর্কে সবাইকে অবহিত করার পাশাপাশি সতর্ক করেছেন বলে রাশিয়ান চিকিৎসক নিশ্চিত করেছেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.