বাবা চলে যাওয়ার পর মায়ের অবস্থাও নাজুক একমাত্র ছেলে নির্বাক

নিজস্ব প্রতিবেদক

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত ক্যাপ্টেন আবিদ সুলতানের শোকে স্ত্রী আফসানা খানম এখন মৃত্যুশয্যায়। আর এ অবস্থায় ও লেভেল পড়–য়া একমাত্র সন্তান তামজিদ সুলতান মাহি (১৪) নির্বাক হয়ে পড়েছেন। কারো সাথে কথা বলছেন না।
গতকাল সোমবার রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাজধানীর নিউরোসায়েন্স হাসপাতালের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন মাহির মা। ডাক্তাররা তার স্বজনদের জানিয়ে দিয়েছেন, দ্বিতীয় দফা স্ট্রোক করার কারণে ‘তার বাঁচার সম্ভাবনা খুব কম’।
গতকাল ওই হাসপাতালের আইসিইউয়ের সামনে লাইফ সাপোর্টে থাকা আফসানাকে দেখতে এসে স্কুল শিক, বন্ধু এবং স্বজনেরা মাহিকে সান্ত্বনা দিচ্ছেন আর বলছেন তোমার আম্মুর কিচ্ছু হবে না। মাহিকে ঘিরে আছেন স্বজনরা। চেষ্টা করছেন তাকে দিয়ে কথা বলাতে।
মাহির বন্ধু তাশফি জানান, ১ মে থেকে আমাদের ‘ও লেভেল’ পরীা শুরু হওয়ার কথা আছে। রোববারও মাহি কথা বলেছে। কিন্তু আজ সে একেবারেই নির্বাক।
এ দিকে নেপাল থেকে ঢাকায় বাবার লাশ আসার খবর শুনে নানুর সাথে বিকেল ৪টায় শেষবারের মতো বাবাকে দেখতে যায় মাহি। সাথে যান মাহির স্কুল শিক ও স্বজনরাও।
লাইফ সাপোর্টে থাকা আফসানা খানমের বাঁচার সম্ভাবনা কমে আসছে জানিয়ে হাসপাতালের চিকিৎসক মাসুদ খান গতকাল সাংবাদিকদের কাছে বক্তব্য বলেছেন ‘তার বাঁচার সম্ভাবনা মাত্র ২ শতাংশ’। কোমায় রয়েছেন। মিরাকল না হলে এখান থেকে কেউ টার্নব্যাক করে না। তবে তার হার্ট, কিডনি সচল রয়েছে, শ্বাস-প্রশ্বাস নিচ্ছেন তিনি। ’

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.