ঢাকা, সোমবার,২৩ এপ্রিল ২০১৮

ক্রিকেট

‘অদম্য’ টাইগারদের নিয়ে শঙ্কিত ভারত!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৮ মার্চ ২০১৮,রবিবার, ১১:০২ | আপডেট: ১৮ মার্চ ২০১৮,রবিবার, ১১:১০


প্রিন্ট
‘অদম্য’ টাইগারদের নিয়ে শঙ্কিত ভারত!

‘অদম্য’ টাইগারদের নিয়ে শঙ্কিত ভারত!

বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের ‘অদম্য’ মানসিকতায় শঙ্কিত ভারতীয় উইকেটরক্ষক দিনেশ কার্তিক। তার বিশ্বাস, ফাইনালে ভারতের বিপক্ষেও জয়ের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করবে টাইগাররা। আজ ত্রিদেশীয় নিদাহাস টি-২০ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা লড়াইয়ে কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে ভারত। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ম্যাচটি শুরু হবে। গতকাল টুর্নামেন্টের ফাইনাল সামনে রেখে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে কার্তিক আরো বলেন, টাইগারদের কাছে হার দেখতে মোটেও প্রস্তুত নয় ভারতীয় ভক্তদের কেউই। প্রত্যেকেই প্রত্যাশা করেন জয়োৎসব।

কার্তিক বলেন, ‘ক্রিকেটীয় দেশ হিসেবে ভারত প্রথম কিংবা দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে খেলছে কি না তা বিবেচ্য নয়। একমাত্র জয়ই দেখতে চান ভক্তরা। বাংলাদেশের বিপক্ষে খেললেও ওই জয়ই প্রত্যাশায় থাকে। কিন্তু হেরে গেলে সবাই প্রশ্ন তুলবে কী চলছে ভারতীয় ক্রিকেটে। বাংলাদেশের কাছে হার! কী করছে ক্রিকেটাররা? নিশ্চিত আজকের ফাইনালেও ওই বিষয়টি কাজ করবে। আমরা জানি বেশ ক’জন শীর্ষ ক্রিকেটার অনুপস্থিত এই টুর্নামেন্টে। এর পরও দল হিসেবে সাম্প্রতিক সময়ের পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ফাইনালে ক্রিকেটারদের কাছ থেকে প্রত্যাশা করছেন অধিনায়ক রোহিত; কিন্তু উপমহাদেশের কন্ডিশনে বাংলাদেশ অত্যন্ত ব্যালান্সড দল। তাদের ভালো করার অদম্য বাসনার সাথে সবাই পরিচিত। তারা সর্বাত্মক চেষ্টা করবে। কোনো ছাড় দেবে না। বেশি দিন হয়নি বাংলাদেশ টেস্ট মর্যাদা পেয়েছে। কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যেই তারা তিন ফরম্যাটের ক্রিকেটে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করেছে।’

গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচেও লঙ্কানদের হারিয়ে নাটকীয়ভাবে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। তবে শিরোপা নির্ধারিত খেলায় মানসিকভাবে কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে থাকবে টাইগার ক্রিকেটাররা। টি-২০ ফরম্যাটে ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের পারফরম্যান্সের ইতিহাস যন্ত্রণায় ঠাসা। হার টানা সাত ম্যাচেই। নিদাহাস ট্রফির খেলায় টাইগারদের বিপক্ষে পারফেক্ট নৈপুণ্য উপহার দেয় বেশ কয়েজন শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটারবিহীন ভারত। প্রতিটি ম্যাচেই পারফরম করেছেন দলটির টপঅর্ডার। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের বাজে ফিল্ডিংয়ের দুঃস্বপ্নও দ্রুততম সময়ে সামলে নিয়েছে। টুর্নামেন্টের ছয় ম্যাচের মধ্যে একমাত্র দল হিসেবে প্রথমে ব্যাটিং করে জয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছে রোহিতের ভারত। সব মিলিয়ে দুর্দান্ত এক ফাইনালের অভিজ্ঞতা অর্জনের অপেক্ষায় দিনেশ কার্তিক।

তিনি বলেন, ‘চেজ করে জেতার কাজটি মোটেও সহজ নয়। ফাইনালের উইকেট কেমন হবে তা-ও জানি না। তবে ডিউ ফ্যাক্টর দৃশ্যপট দখলে নিলে পরে ব্যাটিং করা দলের জন্য সহজ হবে জয়োৎসব। কিন্তু শিশির স্বাভাবিক মাত্রায় থাকলে দারুণ এক ম্যাচ হতে যাচ্ছে ফাইনাল। স্লো উইকেট দুই দলকেই ফেলবে বাড়তি চ্যালেঞ্জে। অপেক্ষাকৃত ভালো বোলিং নৈপুণ্য দেখাতে সক্ষম দলের শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা বেশি থাকবে।’

 

সাকিব-সোহানের শাস্তি

কলম্বোতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ম্যাচে অসদাচরণের জন্য শাস্তি দেয়া হয়েছে সাকিব আল হাসান ও নুরুল হাসান সোহানের। আলাদা আলাদা ঘটনার জন্য তাদের ২৫ ভাগ জরিমানা করা হয়েছে। আইসিসির আচরণবিধির লেভেল ১ লঙ্ঘনের জন্য উভয় খেলোয়াড়কে একটি করে ডিমেরিট পয়েন্টও দেয়া হয়েছে।

খেলার শেষ ওভারের উত্তেজনার জের ধরে তাদের এই শাস্তি পেতে হলো। উল্লেখ্য, উত্তেজনাপূর্ণ ওই ম্যাচে বাংলাদেশ ১ বল বাকি থাকতে জয় পায়। বাংলাদেশ এখন ফাইনালে খেলবে ভারতের বিরুদ্ধে।

কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে শুক্রবারের ম্যাচের শেষ ওভারে নানা ঘটনা ঘটে। আম্পায়ার দ্বিতীয় বাউন্সারকে নো বল কল না করায় সাকিব ক্ষেপে মাহমুদউল্লাহদের মাঠ ছেড়ে চলে আসতে বলেন। ওই সময় পানীয় নিয়ে মাঠে ঢোকা নুরুল হাসান লঙ্কান অধিনায়ক থিসারা পেরেরার সাথে ঝগড়া করেছেন। মাহমুদউল্লাহ ৩ বলে ১২ রান তুলে অসাধারণ জয়ে দলকে ফাইনালে নেয়ার পর ম্যাচশেষেও নুরুল হাসান সোহানের মধ্যে উত্তেজনা ছিল।

আইসিসির আচরণ নীতিমালায় সাকিবের বিরুদ্ধে খেলার স্পিরিট বিরোধী কাজের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। আর সোহান 'খেলাকে কলঙ্কিত' করার অভিযোগে দোষী হয়েছেন। ১৯.২ ওভারের সময় সাকিবের আচরণ আম্পায়ারের বিরুদ্ধে গেছে। তার বার্তা নিয়ে মাঠে ঢুকে সোহান ঝামেলা পাকিয়েছেন। প্রকাশ্যে এমন আচরণের বিরোধী আইসিসির আইন। লেভেল ওয়ানের আইন ভাঙার শাস্তি ম্যাচ ফির সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ জরিমানা, সাথে একটি বা দুটি ডিমেরিট পয়েন্ট। দু'জনই সর্বোচ্চ শাস্তি থেকে বেঁচে গেছেন।

শনিবার সকালে ওই ম্যাচের ম্যাচ রেফারি ক্রিস ব্রড সাকিব ও সোহানকে অভিযোগে দোষী পান। দুজনই অপরাধ স্বীকার করে নিয়েছেন। তাই আনুষ্ঠানিক শুনানির দরকার পড়েনি। অন ফিল্ড আম্পায়ার রবীন্দ্র উইমালাসিরি ও রুচিরা পালিয়াগুরুগে এবং থার্ড আম্পায়ার রানমোরে মার্টিনেজ ও চতুর্থ আম্পায়ার লিন্ডন হ্যানিবাল এই অভিযোগ আনেন।

সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে ব্রড বলেছেন, 'শুক্রবারের ঘটনা অপ্রত্যাশিত। খেলোয়াড়দের কাছ থেকে এমন আচরণ কেউ দেখতে চায় না। আমি বুঝি ওটা খেলার একেবারে চূড়ান্ত পর্যায়ের টানটান সময়ে ঘটেছে কিন্তু ওই দুই খেলোয়াড়ের আচরণ অগ্রহণযোগ্য ছিল। তাদের ছাড় দেওয়া যায় না। চতুর্থ আম্পায়ার সাকিব ও ফিল্ডারদের না সামলালে এবং অন ফিল্ড আম্পায়ার নুরুল ও থিসারার মধ্যে না এলে ঘটনা আরো বাজে ঘটতে পারত।'

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫