ঢাকা, বুধবার,২৫ এপ্রিল ২০১৮

মধ্যপ্রাচ্য

ইয়েমেন যুদ্ধ বন্ধে হাউছি-সৌদি গোপন আলোচনা

রয়টার্স

১৭ মার্চ ২০১৮,শনিবার, ১৪:৪০


প্রিন্ট
ইয়েমেন যুদ্ধ বন্ধে হাউছি-সৌদি গোপন আলোচনা

ইয়েমেন যুদ্ধ বন্ধে হাউছি-সৌদি গোপন আলোচনা

ইয়েমেনের যুদ্ধ বন্ধে সৌদি আরব ও হাউছি বিদ্রোহীরা গোপনে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। এর আগে জাতিসঙ্ঘের মধ্যস্থতায় তিন দফা আলোচনার উদ্যোগ নেয়া হলেও তা ব্যর্থ হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কূটনৈতিক ও ইয়েমেনি কর্মকর্তারা এ খবর জানিয়েছেন।

তারা জানিয়েছেন, রিয়াদে নির্বাসিত হাদি সরকারের প্রতিনিধিদের বাদ দিয়ে দুই মাস ধরে হাউছি বিদ্রোহীদের সাথে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে সৌদি আরব। তবে তাতে কোনো অগ্রগতি হয়েছে কি না তা জানা যায়নি।
তিন বছর আগে ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদিকে উচ্ছেদ করে রাজধানী দখলে নেয় ইরান সমর্থিত হাউছি বিদ্রোহীরা। সৌদি রাজধানী রিয়াদে নির্বাসনে যেতে বাধ্য হন দেশটির প্রেসিডেন্ট। প্রেসিডেন্টের অনুগত সেনাবাহিনীর একাংশ হাউছিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করে। ২০১৫ সালের মার্চে হাউছি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ‘অপারেশন ডিসাইসিভ স্টর্ম’ নামে সামরিক অভিযান পরিচালনা শুরু করে সৌদি আরব ও তার মিত্র দেশগুলো।

তারপর থেকে এ যুদ্ধে এখন পর্যন্ত প্রায় ৭ হাজার ৬০০ মানুষ নিহত হয়েছেন। কয়েক লাখ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছে। পুরো ইয়েমেন দুর্ভিক্ষের মুখে রয়েছে।


কূটনৈতিক ও ইয়েমেনি কর্মকর্তারা বলেছেন, এই যুদ্ধ বন্ধের আলোচনায় হাউছি বিদ্রোহীদের মুখপাত্র মোহাম্মদ আবদুস সালামের সাথে সৌদি কর্মকর্তাদের ওমানে সরাসরি যোগাযোগ হচ্ছে। এক কূটনীতিক বলেন, হাউছি বিদ্রোহীদের সাথে সৌদি আরবের আলোচনা চলছে। তবে তাতে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত প্রেসিডেন্ট হাদি সরকারের কোনো প্রতিনিধি জড়িত নেই। আর এটা পরিষ্কার যে, হাউছি এবং কোয়ালিশনদের মধ্যে একটি বিস্তৃত চুক্তি স্বাক্ষরের ইচ্ছাতেই আলোচনা চলছে। তবে এই আলোচনার বিষয়ে সৌদি বা হাউছিদের তরফে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই জানানো হয়নি।


কূটনীতিকরা বলছেন, সৌদি ও হাউছিদের মধ্যে এই আলোচনা দুই মাস ধরে চলছে। আর এর লক্ষ্য হলো নতুন একটি প্রস্তাবের কাঠামো তৈরি করা। গত রোববার ইয়েমেনে নতুন জাতিসঙ্ঘ দূত মার্টিন গ্রিফিত যোগ দিয়েছেন। সাবেক ব্রিটিশ কূটনীতিক গ্রিফিত ওই প্রস্তাবের বিষয়ে একমত হবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

ইরাকে মার্কিন সামরিক কপ্টার বিধ্বস্ত
বিবিসি

ইরাকের পশ্চিমাঞ্চলে মার্কিন সামরিক বাহিনীর একটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়েছে। ঘটনার পরপরই উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় কমান্ড।
হেলিকপ্টার বিধ্বস্তের কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত শুরু হয়েছে; আরোহীদের পরিণতি নিয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি। মার্কিন দুই কর্মকর্তা জানান, এইচএইচ সিক্সটি পেভ হক হেলিকপ্টারটি আনবার প্রদেশের আল-কাইম শহরের কাছে বিধ্বস্ত হয়েছে।

এয়ারক্রাফটিতে সেসময় সাত আরোহী ছিলেন বলে আল-কাইমের মেয়র নিশ্চিত করেছেন। ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ইরাকে এখনো পাঁচ হাজারের বেশি মার্কিনি অবস্থান করছে; এদের মধ্যে নিয়মিত সৈন্য ছাড়াও প্রশিক্ষণার্থী, উপদেষ্টা ও বিশেষ বাহিনীর সদস্যরা আছেন। ২০০৩ সালে ইরাক আক্রমণ শুরুর পর থেকেই দেশটিতে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা উপস্থিতি বিদ্যমান; ২০০৭ সালের সেপ্টেম্বরে দেশটিতে সবচেয়ে বেশি এক লাখ ৬৮ হাজার সেনাসদস্য ছিল।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫