বিজ্ঞান মেলার উপকরণ ভেড়ার পাল
বিজ্ঞান মেলার উপকরণ ভেড়ার পাল

বিজ্ঞান মেলার উপকরণ ভেড়ার পাল

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা

রঙ্গিন কাপড়ে মুড়িয়ে সাজানো হয়েছে স্টলগুলো। উপরে ঝুলছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা ২০১৮ লেখা সংবলিত ব্যানার। কিন্তু স্টলের ভিতরে কিংবা বাইরে আয়োজক কমিটি, শিক্ষক-শিক্ষার্থী অথবা দর্শনার্থী কাউকেই দেখা যায়নি।

তবে গবাদি পশুর (ভেড়া) পালকে স্টলের ভিতরে ও বাহিরে বিচরন করতে দেখা গেছে। বুধবার সকাল পৌনে ১১ টার দিকে চৌহালী উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলায় গিয়ে এমন চিত্রই দেখা গেছে। এবিষয়ে সামাজিক মাধ্যমে তোলপার সৃষ্টি হলেও টনক নড়েনি আয়োজকদের।

শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞান মনস্ক করে গড়ে তোলা এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি শিক্ষায় আগ্রহী করতে ৩৯ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে চৌহালী উপজেলা চত্ত্বরে মঙ্গলবার সকালে দুই দিন ব্যাপী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন করা হয়। কিন্তু দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মেলা স্টলের টেবিলের উপরে কোন বিজ্ঞান বিষয়ক কোন উপকরণ দেখা না গেলেও একজনকে শুয়ে থাকতে দেখা গেছে অন্য স্টল গুলোতে কিছু শিক্ষার্থীকে মোবাইলে গান শুনতে দেখা যায়।

বিষয়টি তাৎক্ষনিক ভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ভারপ্রাপ্ত) জানালে তিনি এমনটি হবার কথা নয় বলে এই প্রতিবেদককে জানান, আমি একটি মিটিংয়ে আছি পরে কথা বলি আর এখনই মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে পাঠাচ্ছি।

এই বিষয়ে শহীদ শাহজাহান কবীর আরপিএন উচ্চ বিদ্যালয় ও এনায়েতপুর ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও কয়েকজন শিক্ষার্থী আক্ষেপ করে বলেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে কিন্তু আমার পিছিয়ে রয়ে গেলাম। সারাদেশে যখন ঘটা করে আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সেখানে চৌহালীতে কেন ফটোশেষন করে নামকাওয়াস্তে স্টল সাজিয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণা করা হলো? আমাদের মেধার বিকাশে বাধাগ্রস্ত করা হয়েছে। মেলায় বিজ্ঞান চর্চা ও প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে কোন আলোচনা কিংবা প্রতিযোগিতার আয়োজন থাকলে আমরা চরাঞ্চলের শিক্ষার্থীরাও এগিয়ে যেতে উৎসাহিত পেতাম।

এদিকে মেলার দ্বিতীয় দিন বুধবার সকাল পৌনে ১১ টার সময় স্টল গুলোতে কোন শিক্ষার্থী কিংবা অন্য কারো দেখা না মিললেও একদল ভেড়া অনায়েসে বিভিন্ন স্টল গুলো বেড়াচ্ছে। টেবিলের উপরে নিচে লাফালাফি করছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আনিছুর রহমান বলেন, মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের সময় দু দিন উল্লেখ থাকলেও একদিনেই অঘোষিত শেষ হয়েছে। এর কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের যাতায়াত সমস্যা ও শিক্ষক সমিতির আন্দোলনের কারনে কোন শিক্ষক আসতে পারেনি।

তবে এবিষয়ে জানতে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল কাশেম ওবায়েদ এর মোবাইলে (০১৭৪৫....) বার বার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিব করেননি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.