ঢাকা, সোমবার,২৫ মার্চ ২০১৯

শেষের পাতা

বাংলাদেশের সামনে আজ ভারত

কালো ব্যাজ পরবেন মাহমুদুল্লাহ, মুশফিকেরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

১৪ মার্চ ২০১৮,বুধবার, ০০:০০


প্রিন্ট

কাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় শোকাহত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলও। বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের মতো কলম্বোতে অবস্থানরত বাংলাদেশী ক্রিকেটাররা সমবেদনা জানিয়েছেন নিহতদের স্বজনদের। প্রেমাদাসায় আজ ভারতের বিপক্ষে কালো ব্যাজ ধারণ করে খেলতে নামবেন তারা। যদি ভারতকে হারাতে পারে বাংলাদেশ, সেটাও নিশ্চয়ই উৎসর্গ করবে বাংলাদেশ দল নিহতদের উদ্দেশে। নিদাহাস ট্রফিতে ভারতের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ বাংলাদেশের। এ ম্যাচ জিতলে ফাইনালের পথ ক্লিয়ার হয়ে যাবে অনেকটাই। শেষের ম্যাচ অনেক সমীকরণের সৃষ্টি করবে। তবে ওগুলো নিয়ে ভাবনা নেই টিম বাংলাদেশের। কোর্টনি ওয়ালশের ভাবনায় একটা কথাই, ওয়ান বাই ওয়ান ম্যাচ। ভারতের বিপক্ষে আজ কী করবে সেটা নিয়েই যত ভাবনা টিম বাংলাদেশের। বড় কথা, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে যে খেলাটা তারা খেলেছেন, এটাতে যেন ছন্দপতন না ঘটে বড় চ্যালেঞ্জ সেখানেই। টি-২০ ক্রিকেটে বাংলাদেশের পরিসংখ্যান মোটেও স্বস্তিজনক নয়। ভারতের বিপক্ষে তো নয়ই। একটি ম্যাচও জিততে পারেনি বাংলাদেশ ভারতের বিপক্ষে। যেহেতু বিরাট কোহলি, এম এস ধোনি, হার্দিক পান্ডিয়াসহ একঝাঁক ক্রিকেটার নেই বর্তমান দলে, এটা একটা বড় সুযোগ। প্রথম লড়াইটাও একটা সুযোগ ছিল। কিন্তু সে ম্যাচে হেরে গিয়েছিল তারা ৬ উইকেটে। ফলে এবার শেষ সুযোগ ভারতকে হারানোর অন্তত নিদাহাস ট্রফিতে।
এ দিকে আগের ম্যাচের মতোই বাংলাদেশের ভাবনাতেই নেই ভারত। নিজেরা কী করতে পারবে সেটাই চিন্তার বিষয়। নিজেদের খেলা যে দিন খেলেন তারা, তাতে প্রতিপক্ষ যে দলই হোক না কেন, থোড়াই কেয়ার। তামিম ইকবাল, লিটন দাসের ওপেন, ওয়ান ডাউনে সৌম্য সরকার। এরপর মুশফিক, সাব্বির, মাহমুদুল্লাহ, মিরাজরা মিলে চ্যালেঞ্জিং একটা স্কোর গড়তে হবে। ভারত দলের ব্যাটিং লাইনও নড়বড়ে। সুরেশ রায়না ও রোহিত শর্মা নিজেদের খেলাটা খেলতেই পারছেন না। ব্যতিক্রম শেখর ধাওয়ান। দুর্দান্ত খেলছেন তিনি। এ ছাড়া দিনেশ কার্তিক, মানিশ পান্ডে, শার্দুল ঠাকুর প্রমুখরাও ভালো খেলছেন। আজকের খেলাও শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫