নিহত প্রকৌশলী রকিবুলের গ্রামের বাড়ি চৌহালীতে চলছে শোক

চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত প্রকৌশলী রকিবুল হাসানের (২৯) বাড়িতে চলছে শোক। নিহত রকিবুল সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলার বাঘুটিয়া ইউনিয়নের বিনানই গ্রামের মরহুম রবিউল করিমের ছেলে। রকিবুল মাকে নিয়ে ঢাকায় বসবাস করতেন। একমাত্র বড় বোন বর্তমানে আমেরিকায় বসবাস করেন।
গতকাল মঙ্গলবার সকালে রকিবুলের গ্রামের বাড়ি বিনানই গিয়ে দেখা যায়, তার মৃত্যুর খবর টিভিতে দেখার পর থেকে এলাকাজুড়ে শোক নেমে এসেছে। বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন স্বজনেরা। রকিবুলের বড় চাচা তার মৃত্যুতে বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন। এলাকার নারী-পুরুষ, বৃদ্ধরা এসেছেন রকিবুলের স্বজনদের সান্ত্বনা দিতে। স্বজনদের কান্নায় ভারী হয়ে আছে রকিবুলের গ্রামের বাড়ি। শোকে বিহ্বল গোটা চৌহালী।
রকিবুলের চাচা জানেআলম ও নাসির উদ্দিন জানান, রকিবুল ছোট বেলা থেকেই ছিল ভ্রমণ পিপাসু ও মেধাবী। প্রথম শ্রেণী থেকে শুরু করে সব ক্লাসেই ছিল ফাস্টবয়। শম্ভুদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম বলেন, রকিবুল ছোট থেকেই মেধাবী ছিল। এলাকার সবার সাথে ভালো ব্যবহার করতেন। তার মৃত্যুতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে শোক নেমে এসেছে।
চৌহালীর বাঘুটিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও শম্ভুদিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাহহার সিদ্দিকী জানান, ১৫ দিনের ছুটিতে রকিবুল তার স্ত্রী রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষিকা ইমরানা কবির হাসিকে সাথে নিয়ে নেপালে বেড়াতে যাচ্ছিলেন। বিমানটি বিধস্ত হওয়ার পর তারা জানতে পারেন রকিবুল হাসান মারা গেছেন। স্ত্রী ইমরানা কবির হাসি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ।
তিনি আরো জানান, রকিবুল বিদেশী একটি সফটওয়্যার কোম্পানিতে ঢাকায় চাকরি ও মিরপুরের একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। তবে সবশেষ গত বছরের বন্যায় রকিবুল ও তার স্ত্রী এলাকার মানুষের জন্য নিজেদের তহবিল থেকে সহযোগিতা করেছেন।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.