নিরাপত্তার অভাবে ১৫ বছরেই মেয়েদের বিয়ে দেয়া হচ্ছে : এরশাদ
নিরাপত্তার অভাবে ১৫ বছরেই মেয়েদের বিয়ে দেয়া হচ্ছে : এরশাদ

নিরাপত্তার অভাবে ১৫ বছরেই মেয়েদের বিয়ে দেয়া হচ্ছে : এরশাদ

বিশেষ সংবাদদাতা

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, বর্তমান সরকারের উন্নয়ন শুধু ঢাকায়। ঢাকার বাইরের খবর নেই। নারী নির্যাতন ও নিরাপত্তার অভাবে ১৫ বছর বয়সেই মেয়েদের বিয়ে দেয়া হচ্ছে। দেশে আইনের শাসন নেই। বর্তমানে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের জনসমর্থন শূন্যের কোঠায় পৌঁছেছে।

সোমবার রাজধানীর এজিবি কলোনি কমিউনিটি সেন্টারে দলের ২৪ মার্চের মহাসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপির সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক জহিরুল আলম রুবেলের সঞ্চালনায় প্রতিনিধি সভায় জাপা কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, দলের মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু এমপি, প্রফেসর দেলোয়ার হোসেন খান, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, মেজর (অব.) খালেদ আখতার, জাপা চেয়ারম্যানের উপদেস্টা অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূইয়া, কেন্দ্রীয় নেতা ইসহাক ভূইয়া প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এরশাদ বক্তব্যের শুরুতে একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত খবরের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, পানির মধ্যে বস্তি। মানুষ কেন ঢাকার বস্তিতে বসবাস করে? কারণ গ্রামের মানুষ ভালো নেই। অথচ বর্তমান সরকার দাবি করে দেশ নাকি মধ্যবর্তী আয়ের দেশে পরিণত হয়েছে। দেশে আজ পান দোকানেও ইয়াবা পাওয়া যায়। কারণ বেকারত্বের কারণে তরুণ সমাজ নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছে। বিদেশী সংস্থা কোনো শিল্প কারখানা করেন না। কারণ আমাদের প্রতি তাদের কোনো আস্থা নেই। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। সামনে নির্বাচন, সে নির্বাচনে পরিবর্তন আনতে হবে। যদিও দেশে এখন নির্বাচন হয় না। কিন্তু সামনের নির্বাচন কিছুটা হলেও সুষ্ঠু করতে হবে। আর নির্বাচন সুষ্ঠু হলে জাতীয় পার্টির বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না।

সরকারের কঠোর সমালোচনা করে এরশাদ বলেন, ৭ মার্চ একটি স্কুল ছাত্রীর ওপর কিভাবে নির্যাতন চালানো হলো। তার কোনো বিচার নেই। আপনারা (সরকার) আমাদের মা-বোনদের নিরাপত্তা দিতে পারেন না। সাধারণ মানুষের জানমালের নিরাপত্তা দিতে পারেন না। আবার বড় গলায় কথা বলেন। লেখাপড়ার মান নেই, চাকরি নেই, নিরাপত্তা নেই। এই সরকারের ক্ষমতায় থাকারও অধিকার নেই।

বিএনপির সমালোচনা করে এরশাদ বলেন, আমি আগামী ২৪ মার্চের জাতীয় পার্টির মহাসমাবেশে ভঙ্গুর বিএনপিকে দেখাতে চাই জাতীয় পার্টির কত লোক আছে। আমার প্রতি অনেক অত্যাচার অবিচার করেছেন।

শিক্ষা ব্যবস্থার সমালোচনা করে তিনি বলেন, আমাদের লেখাপড়া গোল্লায় গেছে। জিপিএ-৫ আমাদের ধ্বংস করে দিয়েছে। টিক মার্কের পদ্ধতির কারণে শিক্ষার্থীরা পর্যাপ্ত লেখাপড়া করছে না। তিনি এ পদ্ধতি বাতিল করে আগের পদ্ধতিতে ফিরে এসে শিক্ষা ব্যবস্থাকে সুস্থ ধারায় নিয়ে আসার আহ্বান জানান।

জাপার মহাসমাবেশে রিজভীকে হাওলাদারের দাওয়াত
জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার রিজভীর বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে বলেছেন, আপনি (রিজভী) বলেছেন, এরশাদের দল ছোট দল। তার সমাবেশে অল্প সংখ্যক লোক হবে। আমি বলতে চাই আপনি আমাদের সমাবেশে আসুন, দেখে যান কতসংখ্যক লোক এরশাদের মহাসমাবেশে যোগ দেয়। কাচেঁর ঘরে বসে ঢিল মারবেন না। তিনি বলেন, ৯টি বছর আমাদের অবরুদ্ধ করে রেখেছিলেন। বাচালের মত কথা বলবেন না। সাধারণ মাটি ও মানুষের সাথে এরশাদের যে সম্পর্ক আছে তা বিএনপির নেই। জাতীয় পার্টি সবসময় সংবিধানের ধারাবাহিকতায় বিশ্বাস করে।

হাওলাদার বলেন, দেশের মানুষ সুখে নেই। এবার পরিবর্তনের সময়। জাতীয় পার্টির সময়। অবহেলিত মানুষের সময়। গত নির্বাচনে আমরা ৩০০ আসনে প্রার্থী দিলে আমরাই সরকার গঠন করতে পারতাম। আগামী নির্বাচনে আমরা সে ভুল আর করব না। মানুষ বিএনপি-আওয়ামী লীগ উভয়কে প্রত্যাখান করেছে। জাতীয় পার্টিই এবার সরকার গঠন করবে ইনশাল্লাহ।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.