শরণখোলায় অগ্নিদগ্ধ গৃহবধুর মৃত্যু

স্বামী-শ্বশুরসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেফতার ২

শরণখোলা (বাগেরহাট) সংবাদদাতা

বাগেরহাটের শরণখোলায় অগ্নিদগ্ধ গৃহবধুর মৃত্যুর ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি ও ননদের বিরুদ্ধে শুক্রবার রাতে শরণখোলা থানায় একটি হত্যা মামলা করেন নিহত কমলা ওরফে নূরীর (২০) মামা মো. শাহ আলম হাওলাদার।

শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. কবিরুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতেই দুই ও তিন নম্বর আসামি শাশুড়ি তাসলিমা বেগম ও ননদ মাহমুদা বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদেরকে শনিবার দুপুরে বাগেরহাট আদালতে পাঠানো হয়েছে। এক নম্বর ও চার নম্বর আসামি স্বামী ইলিয়াস হাওলাদার ও শ্বশুর মোতালেব হাওলাদার পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

নিহতের ভাই মো. আলামিন খলিফা দুপুর আড়াইটার দিকে মোবাইল ফোনে জানান, খুমেক হাসপাতাল মর্গে তার বোনের ময়না তদন্ত চলছে। তাকে পূর্ব রাজাপুর গ্রামে বাবার বাড়িতে দাফন করা হবে।

উল্লেখ্য, শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের বকুলতলা গ্রামে স্বামী ও তার পরিবারের নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে কমলা ওরফে নূরী (২০) নামের ওই গৃহবধু গত ৩ মার্চ গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার সমস্ত শরীর দগ্ধ হয়। ওইদিন সকাল ১০টার দিকে তাকে শরণখোলা হাসপাতালে এনে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে দ্রুত খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (খুমেক) বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানে ৬ দিন পর শুক্রবার (৯মার্চ) দুপুর ১টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

নিহত কমলা উপজেলার ধানসাগর ইউনিয়নের পশ্চিম রাজাপুর গ্রামের মোক্তার খলিফার (মৃত) মেয়ে। প্রেম সম্পর্কের মাধ্যমে একবছর আগে ইলিয়াস হাওলাদারের সাথে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে আরমান নামের তিন মাসের একটি ছেলে রয়েছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.