রোহিঙ্গাদের মানবাধিকার রক্ষায় বিশ্ব সম্প্রদায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ : জাতিসঙ্ঘের আবাসিক সমন্বয়ক

কূটনৈতিক প্রতিবেদক
জাতিসঙ্ঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সিপ্পো বলেছেন, রোহিঙ্গাদের মানবাধিকার রক্ষা ও তাদের ওপর নৃশংসতার সাথে দায়ীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। বসনিয়ার ঘটনা এ ধরনের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের একটি দৃষ্টান্ত। রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসঙ্ঘ সোচ্চার ভূমিকা পালন করছে। 
অভিবাসন ও উদ্বাস্তু বিষয়ে আন্তর্জাতিক চুক্তির ওপর রাজধানীতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। গতকাল বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্রাটিজিক স্টাডিজ (বিআইআইএসএস) মিলনায়তনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও বিআইআইএসএস যৌথভাবে এই আলোচনার আয়োজন করে।
মিয়া সিপ্পো বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসঙ্ঘ মহাসচিব, মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার ও স্পেশাল রেপোর্টিয়াররা পরিষ্কার অবস্থানের কথা জানিয়েছেন। জাতিসঙ্ঘের ঊর্ধ্বতন অনেক কর্মকর্তাই বাংলাদেশ সফর করে রোহিঙ্গাদের অবস্থা দেখে গেছেন, তাদের বক্তব্য তুলে ধরেছেন। 
তিনি বলেন, রাখাইন পরিস্থিতি সম্পর্কে ধারণা পেতে মিয়ানমারে অবস্থিত জাতিসঙ্ঘ মিশনের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে আমরা কাজ করছি। রাখাইনে অবাধে মানবিক সহায়তার প্রবেশাধিকারের ব্যাপারে মিয়ানমারের প্রতি আমাদের আহ্বান অব্যাহত থাকবে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে জাতিসঙ্ঘের উদ্বাস্তুবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআরের ভূমিকা যেন থাকে সেটা চাই আমরা। এ সংক্রান্ত আলোচনায় বাংলাদেশ বেশ এগিয়ে আছে। 
রাখাইন সঙ্কট সমাধানে কফি আনান কমিশনের প্রতিবেদনের সুপারিশগুলো বাস্তবায়নের ওপর গুরুত্বারোপ করে জাতিসঙ্ঘের আবাসিক সমন্বয়ক বলেন, এ জন্য প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দিতে আমরা প্রস্তুত রয়েছি।
অনুষ্ঠানে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) মহাপরিচালকের বিশেষ উপদেষ্টা জারভেইস অ্যাপোভ, ইউএনএইচসিআরের প্রতিনিধি এডিন্ড্রু অ্যামবগোরি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ বক্তব্য রাখেন। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন বিআইআইএসআসের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবদুর রহমান। সভাপতিত্ব করেন পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক।
পররাষ্ট্র সচিব বলেন, মিয়ানমার থেকে বলপ্রয়োগে বাস্তুচ্যুত জনগোষ্ঠীর একটি বড় অংশ বাংলাদেশে এসেছে। এটি আমাদের জন্য একটি বিরাট চ্যালেঞ্জ। এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বিশ্ব সম্প্রদায়ের সহযোগিতা প্রয়োজন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.