আবাহনীর পরেই শাইনপুকুর

সাদমান ও রবিউলের সেঞ্চুরি
ক্রীড়া প্রতিবেদক

শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই শুধু নয়, ছিল এগিয়ে যাওয়ারও সুযোগ। তাতে শেখ জামালকে পেছনে ফেলে এগিয়ে গেল শাইনপুকুর। কাল হারিয়েছে তারা শেখ জামালকে সাদমান ইসলামের এক দায়িত্বপূর্ণ সেঞ্চুরির সুবাদে। মিরপুর শেরেবাংলায় অনুষ্ঠিত এ ম্যাচে দুই দলের পার্থক্যটা গড়ে দিয়েছেন ওই সাদমানই। শাইনপুকুরের এ ওপেনার ১৪৪ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। তার ইনিংসে রয়েছে ২ ছক্কা ৯টি চারের মার। ১৪৭ বল মোকাবেলা করে ওই রান করেন তিনি। এর আগে সেঞ্চুরি করেছেন তিনি ১১৩ বলে। ৮টি চার ছিল তাতে।
মিরপুর শেরেবাংলায় অনুষ্ঠিত এ ম্যাচে প্রথম ব্যাটিং করতে নেমে এক বল হাতে রেখে অল আউট হয়ে যায় শেখ জামাল ২৬২ রানে। জিয়াউর রহমানের ৭৯ ও হাসানুজ্জামানের ৬১ রান ছিল ইনিংসের উল্লেখযোগ্য স্কোর। শাইনপুকুরের সাইফুদ্দিন, সুজন হাওলাদার, শুভাগত হোম লাভ করেন দুটি করে উইকেট। ২৬৩ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শাইনপুকুরের দুই ওপেনার ফারদিন ও সাদমান ইনিংস ওপেন করেন। এরা খেলেন ৯৫ রানের গুরুত্বপূর্ণ এক ইনিংস। ৩৮ করে ফারদিন আউট হয়ে যান শুভাগতের বলে। এরপর ভারতীয় ব্যাটসম্যান উদয় কল ও সাদমান দায়িত্ব নিয়ে খেললেও তা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ১৩ রান করে আউট উদয়। পরে সাদমানের সাথে এসে জুটি বাঁধেন তাওহিদ। এরাই দেখেশুনে খেলে দলকে নিয়ে যান জয়ের লক্ষ্যে। ৪৮.৩ ওভারে ওই লক্ষ্যে পৌঁছায় দলটি। সাদমান ১৪৪ করে অপরাজিত ও তাওহিদ করেন ৫০ রান। তিনিও অপরাজিত থাকেন। ৫৬ বলে ওই রান করেন তাওহিদ। এ জয়ে শাইনপুকুর উঠে গেল পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে। আবাহনীর পরেই স্থান তাদের। আট ম্যাচে ১০ পয়েন্ট পেয়েছে তারা। সমান খেলায় শেখ জামালের পয়েন্ট ৮।
সাদমান অর্জন করেন ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার।
বিকেএসপিতে অনুষ্ঠিত দিনের অপর ম্যাচে বিফলে গেছে রবির সেঞ্চুরি। খেলাঘর সমাজ কল্যাণের এ ক্রিকেটার করেছিলেন ১১৬ রান। ১৩টি চার ও একটি ছক্কায় সাজানো ছিল তার ইনিংসটি। ইনিংসে আরো একজন বড় স্কোর করেন। তিনি মহিদুল ইসলাম। ৮০ রান করেছিলেন এ টপ অর্ডার। এ দুই ব্যাটসম্যানের দায়িত্বপূর্ণ ইনিংসের সুবাদে ২৫৯ রান সংগ্রহ করেছিল খেলাঘর। জবাবে খেলতে নেমে লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ চার উইকেট হারিয়ে পৌঁছায় জয়ের লক্ষ্যে। মোহাম্মাদ নাইম করেন ৮২ রান। অন্যদের মধ্যে নাইম ইসলাম ৭০ ও আবদুল মজিদ করেন ৪১ রান। ২১ বল হাতে রেখে রূপগঞ্জ পৌঁছে গিয়েছিল জয়ের মার্কে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.