হেলথ টিপস : ক্যান্সার থেকে সাবধান হতে সচেতনতা

জার্মানির রিজেন্সবার্গ ইউনিভার্সিটির এক গবেষক সম্প্রতি কয়েকটি পরামর্শ দিয়েছেন। পরামর্শগুলো দৈনন্দিন জীবনে মেনে চললে নিজের এবং পরিবারের অন্য সদস্যদেরকে ক্যান্সারের মতো মারণ ব্যাধির হাত থেকে বাঁচানো যায়।
১. একটানা অনেকণ বসে থাকা যাবে না। যারা একটানা অনেকণ বসে বসে কাজ করেন, তাদের ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রতি ২ ঘণ্টায় ১০ শতাংশ বেড়ে যায়। তিনি প্রতি আধা ঘণ্টা বা এক ঘণ্টা পর পর উঠে কিছুণ হাঁটাহাঁটি করার পরামর্শ দেন। যদি তা সম্ভব না হয়, তাহলে প্রতি ২ ঘণ্টায় একবার করে কাজে বেশ কিছুটা সময় ব্রেক দেয়ার কথা বলেন। ২. কড়া তেলে ভাজা বা আগুনে পোড়ানো লাল গোশত খাওয়া যাবে না। কারণ, এ ধরনের গোশত দেহের মধ্যে ক্যান্সারের কোষ বৃদ্ধিতে সহায়ক ভূমিকা রাখে। ৩. ফলফলাদি ফ্রিজে অনেক দিন রেখে খাওয়া যাবে না। এগুলো স্বাভাবিক তাপমাত্রায় রাখলে তার পুষ্টিগুণ এবং ক্যান্সারের কোষকে বাধা দেয়ার মতাসম্পন্ন নিউট্রিয়েন্টের পরিমাণ অটুট থাকে। ৪. ঘরে সুগন্ধি মোমবাতি জ্বালানো যাবে না। কারণ, কেমিক্যালযুক্ত সুগন্ধি মোমবাতিতে কারসিনোজেনিকের প্রভাব থাকায় এর ধোঁয়া ও সুগন্ধ দেহকোষের জন্য তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। ৫. খাবারের সময় বাড়তি লবণ খাওয়া যাবে না। যারা পাতে অতিরিক্ত লবণ খান, তাদের মধ্যে প্রায় ১৪ শতাংশ লোকের পাকস্থলীতে ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ৬. অন্য আরেকটি গবেষণায় দেখা গেছে, রাতের বেলায় হালকা কৃত্রিম আলোতে যাদের ঘুমানোর অভ্যাস তাদের স্তন ও প্রোস্টেট ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এর কারণ, কৃত্রিম আলোতে দেহের হরমোন নিঃসরণে বিরূপ প্রভাব পড়ে। তাই রাতে ঘুমানোর সময় ঘর অন্ধকার করে নেয়াটাই ভালো। ইন্টারনেট।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.