গাজীপুরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

মোশারফ কম্পোজিটের বিরাশি কোটি টাকার সম্পদ পুড়ে ছাই

শেখ আজিজুল হক টঙ্গী ও নজরুল ইসলাম মাহবুব শ্রীপুর সংবাদদাতা

গাজীপুরের বানিয়ার চালায় মোশারফ কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলের তুলার গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৮২ কোটি টাকার সম্পদ পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। আগুন লাগার কোনো কারণ জানা যায়নি। জেলা প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত গোডাউনের বিভিন্ন অংশে আগুন জ্বলছিল। দমকল বাহিনীর কর্মকর্তারা বলছেন আরো দুই দিন লাগবে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনতে।
গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আক্তারুজ্জামান লিটন জানান, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে গত বুধবার রাত ৪টায় তারা আগুন নেভানোর কাজ শুরু করেন। আগুনের ভয়াবহতা বেশি হওয়ায় তাদের সাথে একে একে আরো ছয়টি ইউনিট যোগ দেয়। গাজীপুর ছাড়াও দমকল বাহিনীর টঙ্গী, শ্রীপুর ও ভালুকার ইউনিটগুলোও দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। তারা গতকাল বৃহস্পতিবার দিনভর অবিরাম চেষ্টা চালিয়েও আগুন পুরোপুরি আয়ত্তে আনতে ব্যর্থ হন। গতকাল সন্ধ্যায়ও গোডাউনের মধ্যভাগে আগুন দাউ দাউ করে জ্বলছিল। দুপুরে দু’টি ইউনিট বিরতি নিয়ে স্টেশনে ফিরে যায়। সন্ধ্যায় টঙ্গী স্টেশনের আরেকটি ইউনিট পালা বদল করে আগুন নেভানোর কাজে যোগ দেয়। গতকাল সন্ধ্যায় কারখানাটিতে গিয়ে দেখা গেছে, দমকল বাহিনীর ছিটানো পানিতে তুলার বেল্টের উপরিভাগের আগুন সাময়িকভাবে নিয়ন্ত্রণে এলেও গোডাউনের বিভিন্ন অংশে জ্বলছিল। এক দিকে চলছে আগুন নেভানোর প্রচেষ্টা এবং একই সাথে অন্য প্রান্তে ভারী যন্ত্রপাতি দিয়ে চলছে ক্ষতিগ্রস্ত মালামাল অপসারণের কাজ। দমকল বাহিনীর একটানা পানি উত্তোলনের কারণে কারখানার ভেতরের পুকুরের পানি তলানিতে গিয়ে পৌঁছেছে। পানি সঙ্কট মোকাবেলায় কারখানার গভীর নলকূপ চালু রেখে পুকুরে দমকল বাহিনীর জন্য পানি জোগান দেয়া হচ্ছে। ভয়াবহ এই অগ্নিকাণ্ডে কারখানার স্বাভাবিক উৎপাদন ব্যাহত না হলেও শ্রমিক-কর্মচারী-কর্মকর্তাদের মধ্যে আতঙ্কের ছাপ লক্ষ করা গেছে।
কারখানা কর্তৃপক্ষ জানায়, গোডাউনটিতে সুতা তৈরির কাঁচা মাল হিসেবে ৪ হাজার ৮২০ টন তুলা মজুদ ছিল। ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে গোডাউনের শেডসহ সব মালামালই পুড়ে গেছে। এমনকি মালামাল স্থানান্তরের বাহন ছয়টি ফর্কলিফট যানও পুড়ে গেছে। অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ৮২ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। এ দিকে ভয়াবহ এ অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে গাজীপুরের বিভিন্ন শিল্পোদ্যোক্তারা কারখানাটিতে ছুটে আসেন। এ সময় তাদেরকে কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: মোশারফ হোসেনকে সান্ত্বনা দিতে দেখা গেছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.