ওয়ার্নারের স্ত্রীকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করেছিলেন ডি কক
ওয়ার্নারের স্ত্রীকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করেছিলেন ডি কক

'আমার স্ত্রীকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করেছিল'

নয়া দিগন্ত অনলাইন

প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে মাঠে স্লেজিং হওয়াটা এখন অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে মাত্রার বাইরে গেলে সেটা কখনো গ্রহণ যোগ্য নয়। অপরাধের সামিল। এর শাস্তি ম্যাচ ফি কর্তন আর ডিমেরিট পয়েন্ট যুক্ত। এই দুই শাস্তিই পেলেন অস্ট্রেলিয়ার হার্ডহিটার ডেভিড ওয়ার্নার। আর স্লেজিং যিনি করলেন সেই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি ককের কোনো শাস্তি হয়নি। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চলমান টেস্ট সিরিজে এই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানের আচরণে ক্ষুদ্ধ হয়ে তেড়ে গিয়েছিলেন ওয়ার্নার। কেন এমনটা করেছিলেন এই অসি ক্রিকেটার? সানডে মর্নিং হেরাল্ডকে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন সে কথা।

প্রোটিয়াদের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের চতুর্থ দিনের চা বিরতির সময় যখন মাঠ থেকে ড্রেসিংরুমে ফিরছিলেন দুই দলের ক্রিকেটার। তখন সিঁড়িতে ডি ককের ওপর তেড়ে যান ওয়ার্নার। সেই ঘটনা আবার সিসিটিভিতে ধরা পড়ে। পরে সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। ওয়ার্নার-ডি ককের বিবাদের ফুটেজটি প্রথম প্রকাশ করে দক্ষিণ আফ্রিকার আউটলেট ‘ইন্ডিপেডেন্ট মিডিয়া।’

তাতে দেখা যায়, সিঁড়িতে ওর্য়ানারকে ধরে রেখেছেন কয়েকজন ক্রিকেটার। আর তিনি বেশ আক্রমণাত্মকভাবেই বার বার ডি কককে শাসাচ্ছিলেন। তাকে স্বাভাবিক করতে অস্ট্রেলিয়া দলের অন্যান্য সতীর্থরা চেষ্টা করছিলেন। উসমান খাজা, টিম পাইনরা প্রথমে চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। পরে দলপতি স্টিভ স্মিথের সাথে আবারো খাজা এসে ওয়ার্নারকে টানতে টানতে ড্রেসিংরুমে নিয়ে যান। এ সময় শান্ত মেজাজেই ওয়ার্নারের কথার জবাব দিচ্ছিলেন ডি কক।

এই ঘটনার তদন্ত শেষে বুধবার রাতে ওয়ার্নারকে ম্যাচ ফি’র ৭৫ শতাংশ এবং তিনটি ডিমেরিট পয়েন্ট দিয়েছে আইসিসি। আর মাত্র একটি ডিমেরিট পয়েন্ট পেলেই একটি টেস্ট বা দুটি ওয়ানডে নিষিদ্ধ হবেন ওয়ার্নার। তবে শাস্তি হয়নি ডি ককের। তার বিপক্ষে লেভেল ১-এর অপরাধ আনা হয়েছে।

সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়েছে সেই ওয়ার্নার-ডি ককের বাক-বিতণ্ডা

 

কি কারণে এতো ক্ষেপে গিয়েছিলেন 'নিপাট ভদ্রলোক' বলে পরিচিত ডেভিড ওয়ার্নার?

প্রথমবারের মতো এই ঘটনা নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি। সানডে মর্নিং হেরাল্ডকে জানিয়েছেন, তার স্ত্রী ক্যান্ডিসকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করেছিলেন ডি কক। তবে কী মন্তব্য করেছেন তা বলেননি।

ওর্য়ানারের ভাষ্য, 'খুবই বাজে কাজ করেছে সে। কখনো কোনো নারী, বিশেষ করে কারো স্ত্রী, অথবা কোনো খেলোয়াড়ের স্ত্রী সম্পর্কে এমন কথা বলা ঠিক নয়।'

অস্ট্রেলিয়ার এই সহ-অধিনায়ক বলেন, 'আপনারা এই ব্যাপারটা সবাই জানেন যে, মাঠে প্রতিপক্ষ নানা কথা বলে আমি এই সবে অভ্যস্ত। তখনো কান দেই না। কিন্তু কেউ যদি আমার ব্যক্তিগত ব্যাপার নিয়ে, আমার স্ত্রীকে নিয়ে অথবা সাধারণ কোনো মেয়েকে নিয়েও কেউ বাজে মন্তব্য করে আমি সহ্য করতে পারি না- যা আপনারা ইতোমধ্যে দেখে ফেলেছেন। আমি বিশ্বাসই করতে পারি না- কীভাবে একজন নারী সম্পর্কে এমন মন্তব্য করা হলো। এবং যেমনটা বলেছি- আমার পরিবার নিয়ে কেউ কিছু বললে ছেড়ে কথা বলি না, বলবও না।'

এদিকে ভিডিও ফুটেজ দেখে সবারই ধারণা, সতীর্থরা না থাকলে হয়ত ডি ককের সাথে হাতাহাতি হয়ে যেত ওর্য়ানারের। এমনটা অবশ্য ভাবছেন না তিনি। বলেন, 'না, না এমনটা হতো না। আমি শুধু তাকে কথাগুলো জোরে বলতে বলেছিলাম। আসরে দিনশেষে আমরা মানুষ। তুমি যদি কাউকে কিছু বলতে চাও, তো চোখে চোখ রেখে বলা উচিত।'

ডিমেরিট পয়েন্ট আর ম্যাচ ফি কর্তনে এই দ্বন্দ্বের যে সমাপ্তি হবে না তা অনুমেয়। এই সবের মধ্যেই আগামীকাল শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় টেস্ট। পোর্ট এলিজাবেথে বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টায় টেস্টটি শুরু হবে। প্রথম টেস্ট অস্ট্রেলিয়া জিতে নিয়ে এগিয়ে আছে। কাল হয়ত লিডে থাকতে চাইবে তারা। অপরদিকে সমতায় ফিরতে চাইবে দক্ষিণ আফ্রিকা।

দেখুন সেই সিসিটিভি ফুটেজ -

 

মাঠে কি প্রভাব পড়বে ওয়ার্নার-ডি কক দ্বন্দ্ব?

প্রথম টেস্টে বাক-বিতণ্ডার উত্তাপ এখনো টাটকা। ড্রেসিংরুমে ফেরার সিঁড়িতে স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেটরক্ষক কুইন্ট ডি কক ও সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার সহ-অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারের তর্কা-তর্কিতে উত্তেজিত ক্রিকেট পাড়া। এরই মাঝে আগামীকাল পোর্ট এলিজাবেথে চার ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে আবারো মুখোমুখি হচ্ছে দল দুটি। দাপট দেখিয়ে সিরিজের প্রথম টেস্ট জিতে লিড নিয়েছে অসিরা। এই লিডকে দ্বিতীয় টেস্টে ডাবল করতে চায় সফরকারীরা। ডারবানে নিজেদের মেলে ধরতে না পারলেও দ্বিতীয় টেস্ট জিতে সিরিজে সমতা আনতে চায় দক্ষিণ আফ্রিকা। পোর্ট এলিজাবেথে বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টায় শুরু হবে টেস্টটি।

টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে জমজমাট লড়াইয়ের আভাস দিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়া। নিজেদের সেরা প্রমাণের পাশাপাশি আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের দ্বিতীয়স্থান নিয়ে লড়াইও ছিল বৈকি। তবে ডারবানে সিরিজের প্রথম টেস্টের শুরু থেকেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নেয় অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ইনিংসে ৩৫১ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১৬২ রানে আটকে দেয় অসিরা। এরপর দ্বিতীয় ২২৭ রান তুলে প্রোটিয়াদের জয়ের জন্য ৪১৭ রানের লক্ষ্যমাত্রা দেয় সফরকারীরা। কিন্তু লক্ষ্যের ধারেকাছে যেতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। ২৯৮ রানেই গুটিয়ে যায় তারা। তাই ১১৮ রানের জয়ে সিরিজে লিড নেয় অস্ট্রেলিয়া।

তবে এই ফলাফলকে ছাপিয়ে ডারবান টেস্টের কেন্দ্রবিন্দুতে ওয়ার্নার-ডি কক। চতুর্থ দিনের চা-বিরতির পর ড্রেসিংরুমে ফেরার পথে বাক্য-বিনিময় হয় ওয়ার্নার-ডি ককের। সেই বাক্য-বিনিময় পরবর্তীতে রুপ নেয় তর্কা-তর্কিতে, বিবাদে। ড্রেসিংরুমের সিসিটিভি ফুটেজে সেটি হয় ভাইরাল, তাতেই টনক নড়ে দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডের। সাথে ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা- ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি)। ইতোমধ্যে ওয়ার্নার-ডি ককের বিবাদ নিয়ে তদন্তও শুরু হয়।

তদন্ত শেষে ওয়ার্নারকে ম্যাচ ফি’র ৭৫ শতাংশ এবং তিনটি ডিমেরিট পয়েন্ট দিয়েছে আইসিসি। আর মাত্র ১টি ডিমেরিট পয়েন্ট পেলেই একটি টেস্ট বা দুটি ওয়ানডে নিষিদ্ধ হবেন ওয়ার্নার। তবে শাস্তি হয়নি ডি ককের। তার বিপক্ষে লেভেল এক’এর অপরাধ আনা হয়েছে। ওয়ার্নার-ডি কক উত্তাপ নিয়ে দ্বিতীয় টেস্টের পরীক্ষায় নামতে হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকা ও অস্ট্রেলিয়া।
তবে মাঠের ভেতর ‘বিবাদ’ শব্দটি মনের মধ্যে পুষে রাখতে চান না দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু-প্লেসিস।

মাঠের লড়াইয়ে মনোযোগি হতে চান তিনি, ‘প্রথম টেস্ট নিয়ে আলোচনা আমাদের পরিকল্পনায় ছিল না। আমরা চেয়ে আছি দ্বিতীয় টেস্টের দিকে এবং সিরিজে সমতা আনায় মনোযোগি হতে চাই। এজন্য নিজেদের খেলায় মন দিতে হবে। আমরা সেই কাজটিই এখন করছি।’

একই সুরে কথা বললেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ, ‘দ্বিতীয় টেস্ট দরজায় কড়া নাড়ছে। আমরা লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত। দ্বিতীয় টেস্টে জয়ের জন্য আমরা সেরাটা দেয়ার জন্য মুখিয়ে আছি। প্রথম টেস্টে ভালো খেললেও আরো অনেক জায়গায় উন্নতি করার আছে। উন্নতি করতে পারলে দ্বিতীয় টেস্টেও জয় আমাদেরই সঙ্গী হবে।’

ডারবান টেস্ট হারলেও, সেখান থেকে ইতিবাচক দিকগুলো গ্রহণ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এমনটাই বললেন ডু-প্লেসিস, ‘ডারবান টেস্ট থেকে আমরা ইতিবাচক দিকগুলো সঙ্গী করতে চাই। যা আমাদের সামনে ভালো করতে সহায়তা করবে। ব্যাটসম্যানদের আরও দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবে। প্রথম ইনিংসে ব্যাটসম্যানরা খারাপ করাতেই আমরা ম্যাচে পিছিয়ে পড়ি। আশা করছি দ্বিতীয় টেস্টে ব্যাটসম্যানরা ভালো পারফরমেন্স করতে পারবে।’

ডারবানে টেস্টের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার ওপেনার আইডেন মার্করাম। দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪৩ রান করেন তিনি। প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একমাত্র মার্করামই ছিলেন পারফরমার।

প্রথম টেস্টের সেরা অস্ট্রেলিয়ার বাঁ-হাতি পেসার মিচেল স্টার্ক। প্রথম ইনিংসে ৫ ও দ্বিতীয় ৪ উইকেট নেন তিনি। দ্বিতীয় ম্যাচেও আরও উইকেট নেয়ার হুমকি দিয়ে রাখলেন স্টার্ক, ‘যে লেন্থে বোলিং করতে চেয়েছি, তাতে আমি সফল। তবে আরো উন্নতির সুযোগ রয়েছে। যাতে পরের ম্যাচে আরো উইকেট নিতে পারি।’

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.