বার্সেলোনার হয়ে গোল করার পর সতীর্থ সুয়োরেজ ও কুতিনহোর সাথে মেসির উদযাপন
বার্সেলোনার হয়ে গোল করার পর সতীর্থ সুয়োরেজ ও কুতিনহোর সাথে মেসির উদযাপন

ম্যান সিটির সাথে বার্সেলোনার তুলনা চলে না

নয়া দিগন্ত অনলাইন

ম্যানেচস্টার সিটি ম্যানেজার পেপ গার্দিওলা বলেছেন প্রিমিয়ার লীগের শীর্ষে থাকা দলটিকে তার সাবেক ক্লাব বার্সেলোনার সাথে তুলনা করতে গেলে ইংল্যান্ড ও ইউরোপে লম্বা সময়ের জন্য নিজেদের আধিপত্য ধরে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। গার্দিওলার অধীনে দ্বিতীয় মৌসুমে সিটি লীগ কাপের শিরোপা জিতেছে। একইসাথে স্প্যানিয়ার্ড কোচের অধীনে প্রথমবারের মত লীগ শিরোপা জয়ের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে। সুইস ক্লাব বাসেলের বিপক্ষে গত মাসে চ্যাম্পিয়নস লীগের শেষ ১৬’র লড়াইয়ে ৪-০ গোলে জয়ী হয়ে কোয়ার্টার ফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে। ঘরের মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে আগামীকাল ফিরতি লেগে বাসেলের মুখোমুখি হতে যাচ্ছে সিটিজেনরা।

লা লিগার শীর্ষে থাকা বার্সার সাথে তুলনা করতে গেলে সিটি কোন পর্যায়ে রয়েছে এমন প্রশ্নের উত্তরে গার্দিওলা বলেছেন, না, এখনও তাদের সাথে তুলনা করার সময় আসেনি। বার্সেলোনা গত ১০ বছর যাবত ক্লাব ফুটবলে আধিপত্য বিস্তার করেছে। আমরা মাত্রই প্রথম শিরোপা জিতেছি।

৪৭ বছর বয়সী গার্দিওলা বার্সেলোনার ম্যানেজার হিসেবে চার মৌসুমে ১৪টি শিরোপা জিতেছেন। এর মধ্যে ছিল তিনটি লিগ ও দুটি চ্যাম্পিয়নস লীগ শিরোপা। গার্দিওলা বলেন, এই ধরনের ক্লাবের সাথে তুলনা করতে গেলে বহু বছর একই ক্লাবের সাথে কাজ করতে হবে।

প্রিমিয়ার লীগে সিটি দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের থেকে ১৬ পয়েন্ট এগিয়ে টেবিলের শীর্ষে রয়েছে। লীগ শিরোপা জয়ের পথে শেষ ৯টি ম্যাচের মধ্যে চারটিতেই জয়ী হলেই চলবে। কিন্তু তারপরেও গার্দিওলা বলেছেন এখনও তিনি কোন কিছুই নিশ্চিত করে বলতে চান না।

তিনি বলেন, আমরা শিরোপার কাছাকাছি চলে গিয়েছি। চ্যাম্পিয়নস লীগের কোয়ার্টার ফাইনালেরও খুব কাছে এখন আমরা। কিন্তু ফুটবলে শেষ বলে কিছু নেই। বেশ ভালভাবেই এগিয়ে থাকলেও বাসেলের বিপক্ষে খেলোয়াড়দের সতর্ক থাকতেই পরামর্শ দিয়েছেন গার্দিওলা। তিনি বলেন, এটা চ্যাম্পিয়নস লীগের ম্যাচ এবং এখানে সবকিছুই ব্যতিক্রম। ফুটবলে সবই সম্ভব। কিন্তু আমাদের শান্ত থাকতে হবে ও নিজেদেও স্বাভাবিক খেলার ওপর মনোযোগী হতে হবে।

 

পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন আলী আশফাক

এএফসি কাপে এবার একেক দল খেলাতে পারছে চারজন করে বিদেশী। অন্য মহাদেশের তিন বিদেশীর সাথে এশিয়ান কোটায় একজন। এশিয়ান কোটায় ঢাকা আবাহনী খেলাচ্ছে জাপানি সাইয়া কোজিমাকে। তাদের অন্য তিনজন হলেন নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার সানডে চিজুবা, এমেকা ডার্লিংটন ও ডিফেন্ডার এলিসন উডুকা। বিপরীতে মালদ্বীপের নিউ রেডিয়েন্ট ইনজুরির জন্য পাচ্ছে না আফগানিস্তানের হারুন আমিরীকে। মাঠে নামবেন অ্যাঞ্জেল লুইস রুইজ পাজ, জর্জ গোতোর ব্লাস, গুইলেম মার্তি মিসুত। এই তিন স্প্যানিশ খেলোয়াড়কে নিয়ে বেশ আশাবাদী কোচ অস্কার ব্রুজন। মালদ্বীপের দলটিতে আরো আছেন জাতীয় দলের ৮ ফুটবলার। বাংলাদেশ জাতীয় দলে খেলেছেন আবাহনীর এমন প্রতিনিধির সংখ্যা ১৫ জন। তবে এদের ছাড়িয়ে আজ মাঠে দর্শকদের কেন্দ্র বিন্দুতে থাকবেন একজনই। তিনি আলী আশফাক।

মালদ্বীপ ও নিউ রেডিয়েন্টের এই অধিনায়ক যেমন গোল করতে দক্ষ, তেমনি গোল করাতেও সিদ্ধহস্ত। যাকে বলা হয় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মেসি। বাম পায়ের ড্রিবলিং ক্ষমতা তার অসাধারণ। ফ্রি-কিকে গোল করতেও দক্ষ তিনি। দণি-পূর্ব এশিয়ার বিশ্বকাপ খ্যাত সাফে সর্বোচ্চ ২০ গোলের মালিক তিনি। জাতীয় দলের হয়ে ৫২ গোল তার। আলী আশফাকের আছে মালয়েশিয়া ও ব্রুনাই লিগে খেলার অভিজ্ঞতা। ২০০৮ ও ২০০৯ সালে এশিয়ার সেরা দশ ফুটবলারের একজন ছিলেন। তাকে দলে টানতে প্রস্তাব দিয়েছিল পর্তুপাল ও তুরস্কের কাব। সাথে এশিয়ার অন্য কাবও। ২০০৯-এর ঢাকা সাফে ফাইনালে টাইব্রেকার মিস করেছিলেন তিনি, যা হাতছাড়া করে দলের শিরোপাও। ২০০৮-এর সাফে তার একক নৈপুণ্যে চ্যাম্পিয়ন হয় মালদ্বীপ। আাসরের সেরা খেলোয়াড়ও হয়েছিলেন তিনি। মালদ্বীপের ফুটবলে তার গোলের সংখ্যা সাড়ে তিন শ’র ওপরে।

নিউ রেডিয়েন্টের স্প্যানিশ কোচ তো আশফাককে ভারতের সুনীল ছেত্রীর সাথে এই অঞ্চলের সেরা খেলোয়াড় বলে ঘোষণা দিলেন। আবাহনীর কোচ টিটুও তাকে সমীহ করলেন। তবে তার মতে, ‘শুধু আশফাকই নয় নিউ রেডিয়েন্টে আলী ফাসির, উমায়েরের মতো গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় আছে।’ সুতরাং আজ আবাহনীকে ভোগাতে পারেন এই আশফাক।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.