ওম আবদুল্লাহ হচ্ছেন কায়রোর প্রথম মহিলা মিনিবাস ড্রাইভার
ওম আবদুল্লাহ হচ্ছেন কায়রোর প্রথম মহিলা মিনিবাস ড্রাইভার

বোরকা পরে বাস চালাচ্ছেন ওম আব্দুল্লাহ

নয়া দিগন্ত অনলাইন

মিসরের রাজধানী কায়রোর প্রথম মহিলা মিনিবাস চালক ওম আবদুল্লাহ। তিনি বোরকা এবং পুরো মুখ ঢাকা নিকাব পরেই মিনিবাস চালান। তার মিনিবাসটি শুধু মাত্র মহিলা যাত্রীদের জন্য।

আবদুল্লাহ ড্রাইভারের কাজ শুরু করেন গত বছর তার স্বামী মারা যাওয়ার পর। কিছু অর্থ আয় করাই ছিল তার উদ্দেশ্য।

"আমি দেখলাম আমার চলতে হলে তো কিছু করতে হবে। ছেলে-মেয়েদের বড় করতে হবে। তখন আমি গাড়ি চালানোর কথা ভাবলাম।"

"গাড়ি চালানো একটা ভালো কাজ। আমি কাজটা পছন্দও করি।"

তবে এর আগে তিনি কোনো দিন মিনিবাস চালান নি।

"আমি ওদের বলেছি আমি শিখতে চাই। কোন কাজ শেখাই খুব বেশি কঠিন নয়।"

মিনিবাস হচ্ছে কায়রোর অন্যতম জনপ্রিয় একটি গণপরিবহন।

ওম আবদুল্লাহকে ড্রাইভারের চাকরিটি দিয়েছেন মিনিবাস কোম্পানির প্রধান নির্বাহী ফাতিমা এবং তার স্বামী সায়েদ - যারা ওই কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা।

ফাতিমা বলছিলেন, ওম আবদুল্লাহ তার কাছে বেশ কয়েকবার এসেছিলেন চাকরি খোঁজে।

"আমি তাকে জিজ্ঞেস করলাম যে তিনি কি করতে চান। তিনি বললেন 'আমি গাড়ি চালাতে চাই।'

কোম্পানিটি মহিলাদের কাজের জায়গায় বাচ্চাদেরও নিয়ে আসতে দেয়।

"আমি গর্ভবতী অবস্থাতেও কাজ করেছি" - বলেন ফাতিমা। তার নবজাত শিশুকে ডেস্কের পাশে প্রামে রেখেই তিনি অফিসের কাজ করেন।

ওম আবদুল্লাহকে কাজ দেয়ার ব্যাপারে কিছু পুরুষ ড্রাইভার আপত্তি তুলেছিলেন।

কেউ কেউ বলেছিলেন, "এখন মহিলারা কাজ করছে, আমাদের তো তাহলে বাড়িতে বসে থাকতে হবে।"

"আমি তাদের বললাম, আপনারা যদি কাজ করতে না চান তাহলে মহিলারাই করবে" - বলছিলেন ফাতিমা।

তবে ধীরে ধীরে অবস্থাটা পাল্টাতে লাগলো।

ওম আবদুল্লাহ বলছিলেন, "এখন পুরুষ ড্রাইভাররা আমাকে তাদের সহকর্মী হিসেবেই দেখে এবং তারা খুশি।"

ওম আবদুল্লাহ যে মিনিবাস চালান তা শুধু মহিলা যাত্রীদের।

তিনি বলছেন, এটা যৌন হয়রানি রোধে কার্যকর।

ওম আবদুল্লাহ আশা করছেন তার দৃষ্টান্ত দেখে ভবিষ্যতে আরো মেয়ে ড্রাইভারের কাজ করতে অনুপ্রাণিত হবে।

 

ঝড়ো আবহাওয়ায় স্ত্রীকে ফেলে গেলেন ট্রাম্প

ডেইলি মেইল অনলাইন

ঝড়ো আবহাওয়ায় স্ত্রী মেলানিয়াকে ফেলে বিমানে উঠেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প, নামার সময় দৃশ্যত তার জবাবও দিয়ে দিলেন ফার্স্টলেডি।

রেভারেন্ড বিলি গ্রাহামের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে শুক্রবার সকালে নর্থ ক্যারোলাইনায় যাওয়ার সময় ঘটনার বিবরণ তুলে ধরেছে ডেইলি মেইল।

ডুলেস বিমানবন্দর থেকে এয়ারফোর্স ওয়ানে রওনা হয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও ফার্স্টলেডি। ভিডিওতে দেখা যায়, ঝড়ো আবহাওয়ার মধ্যে মেলানিয়াকে পেছনে ফেলে দ্রুত উড়োজাহাজে উঠে যাচ্ছেন ট্রাম্প। স্বামী উঠে যাওয়ার পর একা একা উড়োজাহাজে ওঠা মেলানিয়া নর্থ ক্যরোলাইনায় নামার সময় যে আচরণ করেন, তাকে স্বামীর আচরণের জবাব হিসেবেই দেখা হচ্ছে।
ভিডিওতে দেখা যায়, নর্থ ক্যারোলাইনায় পৌঁছার পর বিমান থেকে নামার সময় ট্রাম্প মেলানিয়ার হাত ধরতে চাইলেও তাতে সফল হননি। কয়েকবারই স্ত্রীর হাত ধরতে হাত বাড়িয়েছিলেন ট্রাম্প, কিন্তু মেলানিয়া তার হাত বারবার সরিয়ে নিচ্ছিলেন।

৭১ বছর বয়সী স্বামীর সঙ্গে একই ধরনের আচরণ করতে সম্প্রতি আরেকবার দেখা গিয়েছিল ৪৭ বছর বয়সী ফার্স্টলেডিকে। এক প্লেবয় মডেলের সঙ্গে যৌনাচার লুকাতে ট্রাম্পের অর্থ ব্যয়ের খবর ফাঁস হওয়ার পর এই ধরনের শীতল প্রতিক্রিয়া এসেছিল মেলানিয়ার। মেলানিয়ার গর্ভে ট্রাম্পের সন্তান ব্যারনের জন্মের সময়টিতে ওই মডেলের সঙ্গে ট্রাম্পের সম্পর্ক চলছিল।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.