মেসির বাড়ির উপর দিয়ে বিমান চলাচল নিষিদ্ধ
মেসির বাড়ির উপর দিয়ে বিমান চলাচল নিষিদ্ধ

মেসির বাড়ির উপর দিয়ে বিমান চলাচল নিষিদ্ধ!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

লিওনেল মেসিকে থামানোর জন্য আলাদা করে অঙ্ক কষে বিপক্ষ দল। তবুও কি তাকে থামানো যায়? ডিফেন্ডারদের চোট এড়িয়ে গোল করে আসেন। রক্ষণভাগের ফুটবলারদের সম্মোহীত করে গোলের গন্ধমাখা পাস দেন মেসি। এবার মাঠের বাইরেও ‘এলএম টেন’-এর জন্য অন্য অঙ্ক কষা হচ্ছে। সেই অঙ্ক কষছে বার্সেলোনার এল প্রাত বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

আর্জেন্টাইন মহাতারকার বাড়ির জন্য এল প্রাত বিমানবন্দর প্রসারিত করা সম্ভব হচ্ছে না। মেসি নামের মাহাত্ম্য এমনই।

বার্সেলোনার উপশহর গাভা ও কাস্তেলদেফেলেসের পাশে রানওয়ে সম্প্রসারিত করতে চেয়েছিল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। আপাতত প্রকল্পটিকে বাতিলের তালিকাতেই ফেলে দেয়া হয়েছে।

এর পিছনে কারণ কী?

বিমানবন্দর থেকে ছয় কিলোমিটার দূরেই যে মেসির বাড়ি। বিমানবন্দর সম্প্রসারণ করা হলে মেসির বাড়ির উপরে বিমান চলাচলের সংখ্যাও বেড়ে যাবে। যা একেবারেই কাম্য নয় বলে মনে করা হচ্ছে।

স্প্যানিশ এয়ারলাইন ‘ভুয়েলিং’-এর সভাপতি হ্যাভিয়ের সানচেজ-পিরেতো বলেছেন, ‘‘মেসি যেখানে থাকে, তার উপর দিয়ে বিমান ওড়ানো ঠিক নয়।’’

যদিও অতীতে সম্পূর্ণ অন্য কারণে বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণ প্রকল্প বাতিল করা হয়েছিল। কারণ হিসেবে দর্শানো হয়েছিল পরিবেশগত এবং আর্থিক কারণকেই।

সম্প্রতি বার্সেলোনার ইএসএডিই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যমকে পিরেতো বলেছেন, ‘‘লিওনেল মেসির বাড়ির উপর দিয়ে বিমান চলাচল নিষিদ্ধ।’’

 

বিনা অপরাধে শাস্তি পেলেন মেসিরা!

বার্সেলোনার কোচ আর্নেস্টো ভালভার্দে বলেছেন একটি বিতর্কিত পেনাল্টির কারণে লাস পালমাসের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করতে বাধ্য হয়েছে তার দল।

বৃহস্পতিবার লা লীগার ম্যাচে রেলিগেশন জোনে থাকা ক্লাবের সঙ্গে পয়েন্ট ভাগাভাগি করায় শীর্ষ পয়েন্টধারী বার্সেলোনার সঙ্গে এখন শিরোপা জয়ের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফিরে এলো দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

আগামী রোববার অ্যালেটিকো মাদ্রিদকে আথিথেয়তা দিবে বার্সেলোনা। এক নম্বর দলের বিপক্ষে দুই নম্বর দলের লড়াইটি হবে তাৎপর্যপূর্ণ।

আগেরদিন বুধবার লেগানেসকে ৪-০ গোলে হারানো অ্যাটলেটিকোর সঙ্গে কাতালানীয় ক্লাবের পয়েন্টের ব্যবধান এখন কমে ৫-এ নেমে এসেছে।

শুরুতেই আর্জেন্টাইন সুপার স্টার লিওনেল মেসির ফ্রি-কিক থেকে আদায় করা অসাধারণ এক গোল দিয়ে বার্সা এগিয়ে যায়। কিন্তু রেফারি এন্টনিও মাতেও’র দু’টি বিতর্কিত সিদ্ধান্তের জেরে পয়েন্টে ভাগ বসাতে সক্ষম হয় লাস পালমাস।

প্রথম দফায় গোলরক্ষক লেয়ানড্রো চিচিজোলার ডি বক্সের বাইরে একটি হ্যান্ডবল এড়িয়ে যান রেফারি। যেটি লাল কার্ড পাওয়ার মতো অপরাধ। দ্বিতীয় দফায় লুকাস ডিগনে উরু দিয়ে বল ঠেকালেও এর বিপরীতে পেনাল্টির নির্দেশ দেন রেফারি। পেনাল্টি থেকে গোল করতে বেগ পেতে হয়নি ওয়েস্টহ্যামের সাবেক স্ট্রাইকার জোনাথন ক্যালেরির।

ভুল বশতঃ দেয়া এই পেনাল্টির ঘটনায় ম্যাচ শেষে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানান জেরার্ড পিকে। বিষয়টি নিয়ে তিনি কর্মকর্তাদের কাছে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

খেলা শেষে বার্সা কোচ ভালভার্দে বলেন, ‘এই ম্যাচে কি হয়েছে আমরা জানি না। মাঠ থেকে যে তথ্য আমি পেয়েছি তা বলার মত না। এমন ঘটনাগুলো ঘটছেই।’

ম্যাচে সমতা আসার পর এগিয়ে যাবার জন্য আরো ৪২ মিনিট সময় পেয়েছিল কাতালানরা। তবে বাস্তবতা হচ্ছে এ সময় তারা খুব বেশি সুযোগ সৃষ্টি করতে পারেনি।

এখন কথা হচ্ছে এমন একটি ঘটনার পর বার্সেলোনার খেলোয়াড়দের শারিরীক ও মানসিক সুস্থতা ফিরে পেতে তিন দিন যথেষ্ট কিনা। কারণ টানা জয়ের মধ্যে থাকা শিরোপার প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যটলেটিকো মাদ্রিদ হচ্ছে কাতালান দলের পরবর্তী প্রতিপক্ষ।

ভালভার্দে বলেন, ‘জয়ের নিশ্চয়তা নিয়েই আমরা এখানে এসেছিলাম। কিন্তু বিভিন্ন ঘটনা প্রবাহে আমরা সেটি অর্জন করতে পারিনি। এটি খুবই বেদনার।’

ম্যাচের ২১তম মিনিটে ফ্রি-কিক থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন সুপার স্টার মেসি। বক্সের সামান্য বাইরে থেকে তার বাঁ পায়ে নেয়া শটের বল ডানদিকে কোনা দিয়ে জালে প্রবেশ করে (০-১)। বিরতির সামান্য আগে বিতর্কের সুত্রপাত ঘটে। এ সময় ডি বক্সের বাইরে চলে এসে বল থামান স্বাগতিক পালমাসের গোল রক্ষক চিচিজোলা। তবে সেদিকে ভ্রূক্ষেপ না করে পর মুহূর্তেই বিরতির বাঁশি বাজান রেফারি।

বিরতির তিন মিনিট পর ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটিয়ে বসেন রেফারি। পালমাসকে পেনাল্টি উপহার দিয়ে এ সময় বিনা অপরাধে বার্সেলোনাকে সাজা দেন তিনি। ক্রসের একটি বল কাতালান বক্সের ভেতর এসে পড়লে সেটি ডিগনের উরুতে লাগে। তাতেই বেশ ঠান্ডা মাথায় পেনাল্টির নির্দেশ দেন রেফারি। সেখান থেকে ক্যালেরির গোলে সমতায় পৌঁছে যায় পালমাস (১-১)।

এরপর এ্যালেক্স ভিদাল ও আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার পরিবর্তিত হিসেবে ফিলিপ কুটিনহো এবং ওসমানে ডেমবেলেকে মাঠে নামিয়ে দলকে আরো শক্তিশালী করলেও পালমাসের জমাট রক্ষণবুহ্যে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি বার্সা

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.