তুরস্ক অন্যান্য দেশের জন্যও এখন অনুপ্রেরণার উৎস: এরদোগান
তুরস্ক অন্যান্য দেশের জন্যও এখন অনুপ্রেরণার উৎস: এরদোগান

তুরস্ক অন্যান্য দেশের জন্যও এখন অনুপ্রেরণার উৎস: এরদোগান

নয়া দিগন্ত অনলাইন

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েপ এরদোগান এক টুইটবার্তায় বলেছেন, ১৯৯৭ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি উত্তরাধুনিক অভ্যুত্থান আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছিলাম। এরপর তুরস্কের গণতন্ত্র আরো শক্তিশালী হয়েছে, অর্থনীতি উন্নত হয়েছে এবং আত্মবিশ্বাস বেড়ে গেছে। তুরস্ক বিশ্বের অন্যান্য দেশের জন্যও এখন অনুপ্রেরণার উৎস।

বুধবার দেয়া টুইটবার্তায় তিনি আরো বলেন, ভবিষ্যতে যাতে ওই রকম কোনো ঘটনার মুখোমুখি হতে না হয়, সে জন্য দেশের ৮ কোটি ১০ লাখ মানুষ কাঁধে কাঁধ রেখে লড়াই করে যাবে।
১৯৯৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে দেশটির প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী নাজিম উদ্দিন আরবাকান প্রশাসনের অপসারণে সেনাবাহিনীর হাত ছিল। আরবাকান সরকারের ইসলামপন্থী কর্মসূচিতে জেনারেলরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন।

জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের পর আরবাকানকে পদত্যাগে বাধ্য করা হয়েছিল। এর পর নতুন এক বেসামরিক সরকার ক্ষমতাগ্রহণ করে। যেটিকে তুরস্কের উত্তরাধু্নিক অভ্যুত্থান নামে ডাকা হয়।
১৯৯৭ সালের সামরিক বাহিনীর সেই ভূমিকার জন্য গত ডিসেম্বরে সাবেক দুই জেনারেলের মৃত্যুদণ্ডের সুপারিশ করেন কৌঁসুলিরা। তুরস্কের সাবেক সেনাপ্রধান ইসমাইল হাক্কি কারাদায়ি, উপ-সেনাপ্রধান সেভিক বিরসহ ৬০ জনকে বিচারের মুখোমুখি করার অনুরোধ জানানো হয়েছে। এ মামলায় ১০৩ সন্দেহভাজন আসামি রয়েছে।

আনাদুলু এজেন্সি

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.