অপু বিশ্বাস ও বর্ষা
অপু বিশ্বাস ও বর্ষা

বর্ষার জন্মদিনের শুভেচ্ছায় অপু বিশ্বাসের সময়কে ‘ভুলে যাওয়ার’ উক্তি

নয়া দিগন্ত অনলাইন

এক সময় আলোচনায় থাকা চিত্রনায়িকা বর্ষাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বর্তমানে সংসার নিয়ে আলোচনায় থাকা চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। তবে এ শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে তিনি অতীত, বর্তমান, ভবিষ্যতে তিন সময়কেই ‘ভুলে’ যাওয়ার উক্তি তুলে ধরেছেন।

চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের সাথে চিত্রনায়ক শাকিব খানের সংসার এখন প্রায় শেষ মুহূর্তে আছে। আইন অনুযায়ী আগামী ১২ মার্চ তাদের বিয়ে বিচ্ছেদের সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষ হওয়ার কথা।

অপরদিকে নায়ক অনন্ত জলিলের সাথে পর্দায় আলোচিত হয়ে আসা তারই স্ত্রী বর্ষা এখন স্বামী-সন্তান নিয়ে সংসারী জীবনযাপন করছেন।

অপু ও বর্ষার মাঝে রয়েছে গভীর বন্ধুত্ব। অপুর বিয়ে বিচ্ছেদের খবরে তাকে সান্ত্বনা দিয়েছিলেন বর্ষা। আজ সে বন্ধুরই জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানাতে ভুলেননি অপু।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে অপু লিখেছেন, ‘ভুলে যাও তোমার অতীত, তুমি এটাকে পরিবর্তন করতে পারবে না। ভুলে যাও তোমার ভবিষ্যত, এটা তুমি অনুমান করতে পারবে না। বর্তমানকেও ভুলে যাও, আমি তোমার মতো কাউকে পাইনি। শুভ জন্মদিন বর্ষা।’

অপু বিশ্বাসের পক্ষ থেকে শাকিব খানের সাথে সংসার টিকিয়ে রাখার ব্যাপারে সমঝোতার চেষ্টা করা হলেও সাকিব খান এ ব্যাপারে কঠোর অবস্থানেই রয়েছেন বলে প্রতীয়মাণ হচ্ছে।

২২ ফেব্রুয়ারি থেকেই শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিয়েবিচ্ছেদের সব আনুষ্ঠানিকতা শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন তখন জানায়, এই তারকা দম্পতি আরো ১৭ দিন সময় পাবেন। কারণ শাকিবের তালাকনামা পাঠানোর দিন অর্থাৎ ২২ নভেম্বর থেকে ৯০ দিনের গণনা করা হবে না, দিন গণনা শুরু হবে অপু যে দিন থেকে তালাকনামা হাতে পেয়েছেন সেই দিন থেকে।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) অঞ্চল-৩-এর নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেন গত ২২ ফেব্রুয়ারি বলেন, ‘শাকিব-অপুর বিচ্ছেদ এখনো কার্যকর হয়নি। বরং তাদের হাতে এখনো ১৮ দিন (বৃহস্পতিবার থেকে ধরা হলে) সময় আছে। এর মধ্যে অনেক কিছুই হতে পারে। ’

তিনি বলেন, ‘তাদের দুজনকে নিয়ে আমাদের তৃতীয় ও শেষ শুনানি হবে ১২ মার্চ। মূলত সে দিনই চূড়ান্ত হবে তালাক কার্যকর হবে, নাকি সমঝোতায় গড়াবে।’

গত বছর ২২ নভেম্বর শাকিব খান তার আইনজীবী শেখ সিরাজুল ইসলামের মাধ্যমে অপুর কাছে তালাকের নোটিশ পাঠান। সে অনুযায়ী গণমাধ্যমের অনেকেই ধরে নিয়েছেন আলোচিত এই তালাক কার্যকর হচ্ছে তিন মাসের হিসাবে আজ ২২ ফেব্রুয়ারি।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) অঞ্চল-৩-এর নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেনের তথ্য মতে, শাকিব খান ২২ নভেম্বর পাঠালেও সেই নোটিশ অপু বিশ্বাস হাতে পান ১২ ডিসেম্বর। ফলে চিঠি হাতে পাওয়ার দিন থেকেই তিন মাসের বিষয়টি গণনা শুরু হবে। সেই হিসেবে চিঠি হাতে পৌঁছানোর ঠিক এক মাসের মাথায় চলতি বছরের ১২ জানুয়ারি ডিএনসিসি প্রথম সালিস বৈঠকের আয়োজন করে।

প্রথম বৈঠকে অপু উপস্থিত থাকলেও শাকিব ছিলেন অনুপস্থিত। এরপর ১২ ফেব্রুয়ারি আয়োজিত দ্বিতীয় বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন না দুজনের একজনও। সেই হিসেবে এ বিষয়ে তৃতীয় এবং শেষ বৈঠক হতে যাচ্ছে ১২ মার্চ। এ দিকে তালাক কার্যকর হওয়া-না-হওয়া এবং শেষ বৈঠকে তাদের উপস্থিতির বিষয়ে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের। যদিও দুজনই এখন ঢাকায় অবস্থান করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শাকিব খানের কাছের একজন বলেন, ‘১২ মার্চ সিটি করপোরেশনে শাকিবের যাওয়ার সম্ভাবনা নেই। তিনি এখন কাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকবেন। শিগগিরই ছবির কাজে ভারত ও স্কটল্যান্ডে যাবেন।’ ছেলে আব্রাম খান জয়ের জন্য খরচ বাবদ এখন প্রতি মাসে অপুকে এক লাখ টাকা দিচ্ছেন শাকিব। তালাক কার্যকর হওয়ার পর অপু বিশ্বাসকে বিয়ের দেনমোহর বাবদ সাত লাখ টাকা পরিশোধ করবেন এই চিত্রনায়ক।

২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল গোপনে বিয়ে করেন শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তাদের ঘরে আসে পুত্রসন্তান আব্রাম খান জয়। বিয়ে এবং সন্তান জন্মের বিষয়টি গোপন থাকলেও গত বছর ১০ এপ্রিল বিষয়টি প্রকাশ করে দেন অপু বিশ্বাস।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.