ব্যাংকিং খাতে বকেয়া ঋণ ১০ হাজার ৬শ’ ৩৫ কোটি টাকা

নয়া দিগন্ত অনলাইন

গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশের ব্যাংকিং খাতে শীর্ষ ২৫ ঋণ-খেলাপির নিকট বকেয়া ঋণের পরিমাণ ১০ হাজার ৬শ’ ৩৫ কোটি টাকা। এরমধ্যে নয় হাজার ছয়শ’ ৬৯ কোটি টাকা খেলাপী ঋণ।

আজ জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির এক বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। দশম জাতীয় সংসদের এটি ছিল এই কমিটির ২৩তম বৈঠক।

কমিটির সভাপতি ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে কমিটির সদস্য নাজমুল হাসান, মোস্তাফিজুর রহমান, ফরহাদ হোসেন এবং আখতার জাহান অংশগ্রহণ করেন।

বৈঠকে বিগত ২২তম সভার কার্যবিবরণী নিশ্চিতকরণের পাশাপাশি পঁচিশটি শীর্ষ ঋণখেলাপির তালিকা এবং এ খেলাপি ঋণ আদায়ে করণীয় এবং সুষ্ঠু ও কার্যকর শেয়ার বাজার গড়ে তোলার লক্ষ্যে গৃহীত ব্যবস্থার অগ্রগতি এবং বিদ্যমান সমস্যাসমূহ থেকে উত্তরণ কৌশল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে, বিপুল পরিমাণ খেলাপী ঋণ আদায়ে সৃষ্ট প্রতিবন্ধকতা দূর করার উপায়, ঋণখেলাপি বন্ধে প্রয়োজনীয় আইনী সংস্কার এবং উচ্চ আদালতের করনীয় বিষয়াদি পর্যালোচনা করা হয়।

এছাড়াও খেলাপী ঋণ আদায়ে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করে ৪৫ দিনের মধ্যে বাস্তবভিত্তিক একটি রিপোর্ট প্রদানের জন্যও এ কমিটির পক্ষ থেকে সুপারিশ করা হয়।

কার্যকরী ও সুষ্ঠু শেয়ার বাজার গড়ে তোলার লক্ষ্যে আধুনিক সার্ভেইলেন্স সিস্টেম সংযোজন এবং সুপারভিশন ও মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদারের ফলে শেয়ারবাজারের বড় ধরনের বিপর্যয়ের সম্ভাবনা নেই বলেও কমিটিকে জানানো হয়।
এছাড়া, সিকিউরিটিস অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে নতুন জনবল নিয়োগ প্রশাসনিক জটিলতায় আটকে থাকায় নিয়মিত পরিদর্শন কার্যক্রম পরিচালনা করা যাচ্ছেনা বিধায় জরুরি ভিত্তিতে জনবল নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার সুপারিশ করা হয়।

দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর নামে-বেনামে নানা ধরনের সার্ভিস চার্জ আদায়, ক্রেডিট কার্ডে অতিরিক্ত সুদহার, সুপ্ত চার্জ আদায়সহ গ্রাহকদের নানা ধরনের অভিযোগ খতিয়ে দেখে আগামী বৈঠকে কমিটির প্রতিবেদন প্রদানের ব্যাপারেও বৈঠকে সুপারিশ করা হয়।

বাজারে চালসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে মন্ত্রণালয়কে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণের পরামর্শ দেয়া হয়।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর, অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিবসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.