অস্ট্রেলিয়ায় সহিংসতার শিকার ১৫ লক্ষাধিক নারী
অস্ট্রেলিয়ায় সহিংসতার শিকার ১৫ লক্ষাধিক নারী

অস্ট্রেলিয়ায় সহিংসতার শিকার ১৫ লক্ষাধিক নারী

নয়া দিগন্ত অনলাইন

পারিবারিক সহিংসতার কারণে গৃহহীন জীবন কাটায় ২৫ হাজার ৫০০ অস্ট্রেলিয়ান শিশু । ১২ জনে ১ জন গর্ভবতী নারী সঙ্গীর দ্বারা নির্যাতিত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। অস্ট্রেলিয়ায় ১৫ লাখেরও বেশি নারী তাদের বর্তমান বা সাবেক সঙ্গী দ্বারা সহিংসতার শিকার হয়েছে। নারীরা তাদের বাড়িতে ও আপনজনের হাতেই বেশি নির্যাতিত হয়। পুরুষরা সাধারণত ঘরের বাইরে এবং অনাত্মীয়দের মাধ্যমেই নির্যাতিত হয়ে থাকে।

পারিবারিক ও যৌন নির্যাতনের বিষয়ে অস্ট্রেলিয়ান ইনস্টিটিউট অব হেলথ অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার (এআইএইচডব্লিউ) প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটির প্রতি ছয় নারীর একজনকে শারীরিক বা যৌন হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে।  প্রতি ১৬ পুরুষের একজন তাদের স্ত্রী বা সঙ্গীর হাতে নির্যাতনের শিকার হয়ে থাকে।

পারিবারিক নির্যাতনের ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, প্রতি চারজনের তিনজনই পুরুষের হাতে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। এক্ষেত্রে গড়ে প্রতি সপ্তাহে একজন নারী ও প্রতি মাসে একজন পুরুষ তাদের বর্তমান বা সাবেক সঙ্গীর হাতে প্রাণ হারাচ্ছে।

যৌন হয়রানির শিকার হওয়া নারীদের মধ্যে ৯৬ শতাংশই বলেছেন, তারা পুরুষ সঙ্গীর দ্বারাই নির্যাতিত হয়েছেন। প্রতিদিন ৮ জন নারী সহিংসতার শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয় এবং প্রতিদিন ৫২ জন নারী পুলিশের কাছে যৌন হয়রানির ব্যাপারে রিপোর্ট করে।

প্রতিবেদনটি এমন সময় প্রকাশ পেল যার মাত্র কয়েকদিন আগে অস্ট্রেলিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী বার্নাবি জয়েস যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগের ঘটনায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে পদত্যাগের ঘোষণা দেন। 
যৌন হেনস্তা ও সাবেক এক সহকর্মীর সঙ্গে তার প্রণয়ের ঘটনা নিয়ে সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতেই এই পদত্যাগের ঘোষণা দেন জয়েস। তার সেই সাবেক সহকর্মী এখন সন্তানসম্ভবা।

পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে জয়েস বলেন, ‘এসব সমালোচনার একটা অবসান হওয়া উচিত। ভিকি (তার প্রেমিকা), তার অনাগত সন্তান, আমার মেয়ে ও ন্যাটের (স্ত্রী) জন্য এটা জরুরি।’ প্রেমিকার সঙ্গে সম্পর্কের কথা স্বীকার করলেও যৌন হেনস্তার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জয়েস।

সূত্র : http://www.adelaidenow.com.au ও সিনহুয়া

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.