ঈশ্বরগঞ্জে যুবলীগের দু’গ্রুপে ফের সংঘর্ষের আশঙ্কা

মো: আব্দুল আউয়াল, ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ)

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ফের যুবলীগের দু’গ্রুপ সংঘর্ষের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। আগামীকাল ২১ ফেব্রুয়ারি শহীদ মিনারে উপজেলা যুবলীগের উদ্যোগে ফুল দেয়া নিয়ে এ আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের বিরাজমান দু’টি গ্রুপ শহীদ বেদিতে ফুলেল শুভেচ্ছা দিতে পৃথক পৃথক প্রস্তুতি নিচ্ছে। এই প্রস্তুতি ঘিরে একে অপরকে প্রতিহত করার ঘোষণায় সংঘর্ষের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। এতে সাধারণ মানুষের মধ্যে চাপা আতঙ্ক বিরাজ করছে।

উল্লেখ যে, ইতিমধ্যে উপজেলা যুবলীগের দু’টি গ্রুপ দুই বার মুখোমুখী সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছে। এতে পথচারিসহ উভয় গ্রুপের অন্তত অর্ধশতাধিক কর্মী আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে অনেকেই এখনো হাসপাতালে ভর্তি থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

গত ২২ জানুয়ারি ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক কমিটি বিলুপ্ত করে উপজেলা চেয়ারম্যানের ভাই কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য আবুল খায়েরকে আহ্বায়ক করে ৩৩ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি দেয় জেলা যুবলীগ। গত ২৮ জানুয়ারি নতুন আহ্বায়ক কমিটির সংবর্ধনা উপলক্ষে পৌর সদরের শহীদ স্মৃতি চত্বরে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

বিষয়টি নিয়ে বিলুপ্ত যুবলীগের আহ্বায়ক মতিউর রহমানের সমর্থকরা প্রতিবাদ মিছিল করে এবং স্মৃতি চত্বরে সংবর্ধনা মঞ্চে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে উভয় গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে।

ওই দিন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে উপজেলা প্রশাসন পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করলেও ১৪৪ ভেঙে উভয় গ্রুপ মিছিল নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা মোড় এলাকায় সংঘর্ষে জড়ায়। পুলিশ এ সময় ৭ রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে।

গত ১৫ ফ্রেরুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় নতুন কমিটির আহ্বায়ক আবুল খায়ের সমর্থকরা যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুস সালামের নেতেৃত্বে পৌর সদরে একটি বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। তাদের মিছিল শুরু আগে থেকে অপেক্ষমাণ বিলুপ্ত কমিটির আহ্বায়ক মতিউর রহমান ও তার সমর্থকরা পাল্টা মিছিল বের করে মুক্তিযোদ্ধা মোড় এলাকায় এসে উভয় গ্রুপ মুখোমুখি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পুলিশ ১৩ রাউন্ড টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। পৃথক দু’দিনের ঘটনায় অন্তত অর্ধশত লোক আহত হয়েছে।

উত্তেজনার বিষয়টি নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হাজী রফিকুল ইসলাম বুলবুল জানান, অনেক হয়েছে, আর দলীয়ভাবে বিশৃঙ্খলা করতে দেওয়া হবে না। ইতোমধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে নিয়ে আলোচনা হয়েছে। উপজেলা যুবলীগের উভয় পক্ষকে শহীদ দিবসের মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি বদরুল আলম খান জানান, শহীদ দিবসে উত্তেজনার কোনো স্থান নেই। বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হলে সে যেই হোক কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.