কোর্ট চলাকালীন বিচারকের গায়ে টাকা নিক্ষেপ!
কোর্ট চলাকালীন বিচারকের গায়ে টাকা নিক্ষেপ!

কোর্ট চলাকালীন বিচারকের গায়ে টাকা নিক্ষেপ!

নেত্রকোনা সংবাদদাতা

কোর্ট চলাকালীন শাহেরা খাতুন নামে মধ্য বয়সী এক নারী বিচারকের গায়ে টাকা ছুড়ে চিৎকার করে বলতে থাকেন- ‘যেখানেই যাই সেখানেই শুধু ঘুষ আর ঘুষ, ঘুষ ছাড়া এখন আর ন্যায্য প্রাপ্য কোনো কাজ করানো সম্ভব নয়। সবখানে সবাইকে যখন ঘুষ দিতে হয় আমি তো সবাইকে চিনি না তাই আপনাকেই এই টাকা দিলাম ওদের দিয়ে দেন।’ এ সময় জনাকীর্ণ আদালতে আইনজীবী, পেশকার, বিচারপ্রাথী, বাদি, বিবাদিসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। গতকাল দুপুরে নেত্রকোনা জেলা জজ কোর্টের পূর্বধলা সহকারী জজ আদালতে এই ঘটনা ঘটে। এতে বিচারকাজ বিঘিœত হয় এবং আদালতপাড়ায় প্রচণ্ড শোরগোল ও চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। ওই নারীর বাড়ি পূর্বধলা উপজেলায় বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল দুপুরে পূর্বধলা সহকারী জজ আদালতে প্রতিদিনের ন্যয় বিচারকার্যক্রম চলছিল। এ সময় আকস্মিক এক নারী দ্রুত কোর্টে প্রবেশ করে বিচারকের গায়ে টাকা ছুড়ে মারেন। ওই টাকা বিক্ষিপ্তভাবে টেবিলের ওপর ছড়িয়ে পড়ে। তখন ওই নারী উত্তেজিতভাবে উপরিউক্ত কথা বলতে থাকেন। ঘটনার আকস্মিকতায় বিচারকের আসনে বসা সহকারী জজ মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া হকচকিত হয়ে দ্রুত এজলাস পরিত্যাগ করে নিজের খাসকামরায় চলে যান। উপস্থিত সবার মধ্যে প্রচণ্ড হৈচৈ ও চেঁচামেচির একপর্যায়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ছুড়ে দেয়া টাকা জব্দ করে ওই নারীকে আটক করে মডেল থানায় নিয়ে যায়। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসার পর যথারীতি আবারো বিচারকার্যক্রম শুরু করা হয়।

নেত্রকোনা জেলা জজ আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবু তাহের বলেন, শুনেছি এক পাগলী কোর্টে প্রবেশ করে অস্বাভাবিক আচরণ করেছে। নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি আমীর তৈমুর ইলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নয়া দিগন্তকে বলেন, কোর্ট চলাকালীন হতাশাগ্রস্ত শাহেরা খাতুন নামে এক নারী ১০০ টাকার পাঁচটি নোট বিচারকের টেবিলে ছুড়ে চিৎকার, চেঁচামেচি করার দায়ে টাকা জব্দ করে তাকে আটক করা হয়েছে। আটক নারী সম্ভবত মস্তিষ্ক বিকৃত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ময়মনসিংহের চর ঈশ্বরদিয়া থেকে অস্ত্রসহ গ্রেফতার ১

ময়মনসিংহ অফিস

র‌্যাব-১৪ সদস্যরা ময়মনসিংহের শহরতলি চর ঈশ্বরদিয়া এলাকা থেকে সোমবার বিকেলে আসাদুজ্জামান জামাল নামে এক সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশী পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।
র্যাব-১৪ এর এএসপি হাফিজুল ইসলাম বাবুর নেতৃত্বে র্যাবের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শহরতলি চর ঈশ্বরদিয়া এলাকায় অভিযান চালায়। সোমবার বেলা ৩টার দিকে গুচ্ছগ্রাম থেকে মৃত হাজী শমশের আলীর ছেলে মাদকসেবী আসাদুজ্জামান ওরফে জামালকে গ্রেফতার করে। পরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে নিজ ঘরের সিলিং থেকে একটি বিদেশী পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.