মানবস্বাস্থ্য ও পরিবেশ রক্ষার্থে প্লাস্টিক ব্যবহার বন্ধ করুন : সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ

নিজস্ব প্রতিবেদক
সাবেক সচিব এবং এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন-এসডোর চেয়ারপাাসন সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ বলেছেন, ‘পরিবেশ রক্ষার দায়িত্ব আমাদের সবার। তাই আমাদের সবার উচিত নিজেদের অবস্থান থেকে প্লাস্টিকের বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে তোলা। আর এখনই উপযুক্ত সময় মানবস্বাস্থ্য ও পরিবেশ রক্ষার্থে প্লাস্টিক ব্যবহার বন্ধ করার। ধানমন্ডির একটি রেস্তোরাঁয় অনুষ্ঠিত আলোচনায় তিনি আহ্বান জানান। 
তিনি আরো বলেন, প্লাস্টিক পণ্য বর্তমান বিশ্বের একটি অপরিহার্য অংশ। এ ছাড়া দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত নানাবিধ পণ্য উৎপাদনে কাঁচামাল হিসেবে প্লাস্টিকের জনপ্রিয়তা দিন দিন বেড়েই চলেছে, যার অন্যতম কারণ হলো হালকা ওজন, বহুমুখিতা, স্বচ্ছতা, সহজলভ্যতা প্রভৃতি। অথচ পরিবেশদূষণের অন্যতম প্রধান কারণ যে প্লাস্টিক বর্জ্য, এটা আমাদের অনেকেরই অজানা। 
এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো: বিল্লাল হোসেন এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রিসার্চ ও ডেভেলপমেন্ট বিভাগের অতিরিক্ত সচিব খন্দকার মোশাররফ হোসেন। এ ছাড়া পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালক মো: জিয়াউল হক, প্লাস্টিক গুড্স এক্সপোর্টার্স অ্যান্ড ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট মো: জসীম উদ্দিন প্রমুখ বিশিষ্ট ব্যক্তি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। প্যানেলিস্ট ছিলেন পরিবেশ অধিদফতরের সাবেক পরিচালক মাহমুদ হাসান খান, বিএসটিআইয়ের কেমিক্যাল বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মো: আবুল হাশেম।
বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো: বিল্লাল হোসেন প্লাস্টিকবিরোধী আন্দোলনের পথিকৃৎ সংস্থা হিসেবে এসডোকে সাধুবাদ জানান। তিনি বলেন, সমগ্র বিশ্বে এ বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় হলেও বাংলাদেশে এখনো তেমন অগ্রসর হয়নি। দ্রুতই মাইক্রোবিড্সযুক্ত দৈনন্দিন ব্যবহার্য পণ্যের তালিকা তৈরি করে এগুলো নির্মূলের ব্যবস্থা করতে হবে।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রিসার্চ ও ডেভেলপমেন্ট বিভাগের অতিরিক্ত সচিব খন্দকার মোশাররফ হোসেন মত প্রকাশ করেন, বঙ্গোপসাগর আমাদের অমূল্য সম্পদ যা কিনা প্লাস্টিক বর্জ্যরে কারণে দূষিত হচ্ছে। ব্যবহার্য পণ্যে মাইক্রোপ্লাস্টিক নামক ক্ষুদ্র প্লাস্টিক কণা ব্যবহার বন্ধে সবাইকে একত্রে কাজ করতে হবে। 
মো: জসীম উদ্দিন বলেন, ‘বাংলাদেশ মাইক্রোবিডসের উৎপাদনকারী নয়; বরং আমদানিকারক দেশ। বাংলাদেশে এই প্রথম মাইক্রোবিড্স নিয়ে গবেষণার জন্য এসডোকে ধন্যবাদ জানাই এবং ভবিষ্যতে এসডোর সাথে এ বিষয়ে একযোগে কাজ করব বলে আশা করছি।’ 
এসডোর মহাসচিব ড. শাহরিয়ার হোসেন বলেন, পরিবেশদূষণের পাশাপাশি মানবস্বাস্থ্যের জন্যও মাইক্রোপ্লাস্টিক হুমকিস্বরূপ। এখনই উপযুক্ত সময় মানবস্বাস্থ্য ও পরিবেশ রক্ষার্থে প্লাস্টিক ব্যবহার বন্ধ করুন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.