মেসির সাথে জুটি বাঁধছেন ডি মারিয়া!
মেসির সাথে জুটি বাঁধছেন ডি মারিয়া!

মেসির সাথে জুটি বাঁধছেন ডি মারিয়া!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

এক সময়ের প্রবল প্রতিপক্ষ বার্সেলোনার হয়ে খেলতে কোনো সমস্যা নেই বলে জানিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক ফুটবল তারকা এ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া।
দীর্ঘ চার বছর সান্তিয়াগো বার্নব্যুতে কাটিয়েছেন আজেন্টাইন উইঙ্গার। ক্লাবের হয়ে লা লীগা ও চ্যাম্পিয়ন্স লীগসহ আরো অনেক শিরোপা জয় করেছেন তিনি। ২০১৫ সালে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ে (পিএসজি) যোগ দেয়ার আগে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডেও কাটিয়েছেন আর্জেন্টাইন এই আন্তর্জাতিক তারকা।
রিয়াল মাদ্রিদের ইতিহাসে যুক্ত থাকার পরও ২৯ বছর বয়সী এই ফুটবল তারকা বলেছেন, সুযোগ পেলে বার্সেলোনার জন্য খেলতে চান। তিনি বলেন, ‘রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে দেয়ার পর তাদের সঙ্গে আমার সব ধরনের সম্পর্কও চুকে গেছে। সত্যিকার অর্থে বার্সেলোনার হয়ে খেলতে আমার কোনো সমস্যা নেই।’

হিগুয়েইনের দক্ষতাকে ম্লান করে দিয়ে টোটেনহ্যামকে ড্র এনে দিলেন এরিকসন

হিগুয়েইন শো’র কল্যানে ২-০ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পরও তা ধরে রাখতে পারলনা জুভেন্টাস। মঙ্গলবার তুরিনে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়ন্স লীগের শেষ ষোলর প্রথম লেগের ম্যাচে সফরকারী টোটেনহ্যামের হয়ে গোল দুটি ফিরিয়ে দিয়ে দলকে সমতায় পৌছে দিয়েছেন দুই ফুটবল তারকা হ্যারি কেন ও ক্রিস্টিয়ান এরিকসন।

গত আসরের ফাইনাল থেকে ফিরে আসা জুভেন্টাসকে চলতি আসরে আগের দুই ম্যাচেও জয় এনে দিয়েছিলেন হিগুয়েইন। এ্যালিয়াঞ্জ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত গতকালের ম্যাচেও মাত্র ৯ মিনিটের মধ্যে প্রতিপক্ষের জালে দুইবার বল পাঠিয়ে শুভ সচনা করেন জুভেন্টাস তারকা তিনি । আর্জেন্টিানর এই ফুটবল সুপার স্টার সুচনার মাত্র ৭৩ সেকেন্ডের মধ্যে প্রথম গোলটি আদায় করে উৎসবে ভাসিয়ে দেন স্বাগতিক দর্শকদের। ৯ম মিনিটের সময় পেনাল্টি থেকে ফের গোল করে জুভেন্টাসকে দ্বিগুন ব্যবধানে পৌছে দেন তিনি।

তবে প্রথমার্ধের শেষভাগে আরো একটি গোল করে হ্যাট্রিকের দারুন সুযোগ হাতছাড়া করেছেন জুভেন্টাস তারকা। ফাউলের সুবাদে পাওয়া জুভেন্টাসের দ্বিতীয় পেনাল্টির বলটি তিনি ক্রসবারে মেরে দেন। এর আগে একই অর্ধে একটি গোল পরিশোধ করে টোটেনহ্যামকে লড়াইয়ে ফিরিয়ে আনেন কেন। এরপর ফ্রি কিক থেকে অসাধারণ এক গোলের মাধ্যমে জুভেন্টাস গোল রক্ষক জিয়ানলুইজি বুফনকে পারস্ত করে ইংলিশদের সমতা ফিরিয়ে দেন এরিকসন। এই ম্যাচের কল্যানে আগামী মাসে লন্ডনের ওয়েম্বলির ম্যাচটি হবে ফলাফল নির্ধারনী ম্যাচ।

খেলা শেষে সফরকারী টোটেনহ্যামের কোচ মাওরিসিও পত্তিনো বলেন, ‘আমাদের দলটি সঠিক মানষিকতার পরিচয় দিয়ে জুভেন্টাসের মত দলের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেছে। মনে হয় দলটি খুব একটা আলোচনায় ছিলনা। প্রথম সাত মিনিট তো প্রতিপক্ষদের সামলানোই কঠিন হয়ে উঠেছিল। এখনো এগিয়ে যাবার পথ উন্মুক্ত থাকায় আমি সন্তুষ্ট। লন্ডনে আমরা তাদের মোকাবেলার প্রস্তুতি নিব।’

জুভেন্টাস কোচ ম্যাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি অবশ্য প্রতিপক্ষ দলকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, কোয়ার্টার ফাইনালে জায়াগা পাবার জন্য তারা আরেকবার এই দলটির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত। জয় না পেলেও চ্যাম্পিয়ন্স লীগে অপরাজিত থাকার ধারাটিকে আরো একধাপ এগিয়ে নিয়েছে ইতালীয় জায়ান্টরা। গতকালের ওই ম্যাচের পর ২৩তম ম্যাচেও অপরাজিত রইল জুভেন্টাস।

আলেগ্রি বলেন,‘ আমি মনে করিনা এই ম্যাচের পর হাতাশার কিছু আছে। কেউ যদি মনে করে থাকে যে ম্যাচে জুভেন্টাস ৪-০ গোলে জিতে যাবে তাহলে সেটি হবে ভুল। টোটেনহ্যাম একটি অসাধারণ দল। তারা যে কোন পরিস্থিতি ঘুরিয়ে দেয়ার ক্ষমতা রাখে। ২-০ গোলে এগিয়ে যাবার পর আমরা বলতে গেলে খেলাটিই থামিয়ে দিয়েছিলাম। এসময় টোটেনহ্যামের পারফর্মেন্স ও নিন্মমুখি হয়ে পড়েছিল। তবে তারা খুবই পরিশ্রমী এবং কৌশলী দল।’

অসাধারণ দক্ষতায় ৭৩ সেকেন্ডের মাথায় স্বাগতিক দলকে এগিয়ে দেন হিগুয়েইন। মিরালেম পিযানিচের ফ্রি-কিকে ডি-বক্সে বল পেয়ে কোনাকুনি ভলিতে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার (১-০)।

শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই দ্বিতীয় গোল খেয়ে বসে টটেনহ্যাম। ৯ম মিনিটে পেনাল্টির সুবাদে স্পট কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন হিগুয়েইন। ইতালিয়ান উইঙ্গার ফিলিপ্পো বার্নার্দেশ্চি ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টিটি পায় জুভেন্টাস (২-০)।

এরপর লড়াইয়ে ফিরতে মরিয়া হয়ে একের পর এক আক্রমণ রচনা করতে থাকে শুরুতেই দুই গোল খেয়ে বসা টোটেনহ্যাম। ৩৫তম মিনিটে সাফল্য পায় তারা। প্রতিআক্রমন থেকে ডেলে আলির পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে বুফনকে কাটিয়ে কোনাকুনি শটে গোল করে ইংলিশদের লড়াইয়ে ফেরান ক্যান (২-১)।
বিরতির ঠিক আগ মুহূর্তে ডি-বক্সে ঢুকে পড়া ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার ডগলাস কস্তা ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। তবে স্পট কিক ক্রসবারে মেরে হ্যাটট্রিকের সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট করেন হিগুইন।

শেষ পর্যন্ত ম্যাচের ৭২তম মিনিটে সমতায় ফেরে অতিথিরা। প্রায় ২০ গজ দূর থেকে নিচু ফ্রি-কিকে বুফনকে পরাস্ত করেন ডেনিস মিডফিল্ডার এরিকসন (২-২)।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.