ঢাকা, রবিবার,১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মধ্যপ্রাচ্য

যুদ্ধ অনিবার্য বললেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,বুধবার, ১৬:৪৫


প্রিন্ট
যুদ্ধ অনিবার্য বললেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট

যুদ্ধ অনিবার্য বললেন লেবাননের প্রেসিডেন্ট

লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন বলেছেন, ইহুদিবাদী ইসরাইল প্রতিনিয়ত হুমকি দিলেও এখন পর্যন্ত বাস্তবে কোনো দুঃসাহস দেখায় নি। যদি তাদের হুমকি কখনো বাস্তব রূপ পায় তাহলে যুদ্ধ অনিবার্য। কারণ লেবানন আগ্রাসনের জবাব দেবে।

তিনি মঙ্গলবার আরো বলেছেন, ইসরাইল সরকার প্রতিবেশী সব দেশকে হুমকি দিচ্ছে। এর মাধ্যমে নিজের বর্ণবাদী চেহারা আরও স্পষ্ট করেছে। মিশেল আউন বলেন, লেবানন নিজের ভূখণ্ড রক্ষা করবে এবং তেল-গ্যাস অধিকারের বিষয়ে কোনো ছাড় দেবে না।

জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে মার্কিন স্বীকৃতির নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী কেবল একজন প্রেসিডেন্টের দৃষ্টিভঙ্গির ভিত্তিতে জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব নয়।

গত ৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুসালেমকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করে দূতাবাস স্থানান্তরের নির্দেশ দিয়েছেন।

 

হামলা চালিয়ে নিরাপদে থাকার সময় শেষ হয়ে গেছে : লেবানন

লেবাননের হিজবুল্লাহর উপ-মহাসচিব শেইখ নায়িম কাসেম বলেছেন, প্রতিরোধ সংগ্রামীরা না থাকলে দখলদার ইসরাইল গোটা মধ্যপ্রাচ্যকেই গ্রাস করত। ইসরাইল এখন কঠিন সমস্যার মধ্যে রয়েছে। দখলদাররা যুদ্ধের মাধ্যমে কোনো কিছুই অর্জন করতে পারবে না।

সিরিয়ায় ইসরাইলি যুদ্ধবিমান এফ-সিক্সটিন ভূপাতিত হওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এর মধ্যদিয়ে এটা স্পষ্ট হয়েছে যে, হামলা চালিয়ে নিরাপদে থাকার সময় শেষ হয়ে গেছে। ইসরাইল হামলা চালাবে আর সিরিয়া কোনো জবাব দেবে না, সেই দিন শেষ হয়ে গেছে।

হিজবুল্লাহর উপ-মহাসচিব লেবাননের প্রতিরোধ সংগ্রামীদের শক্তি ও সামর্থ্য প্রসঙ্গে বলেছেন, আল্লাহর রহমতে লেবাননের প্রতিরোধ সংগ্রামীরা অতীতের চেয়ে এখন অনেক বেশি শক্তিশালী।

এর আগেও হিজবুল্লাহ এক বিবৃতিতে বলেছে, ইহুদিবাদী ইসরাইলের এফ-১৬ জঙ্গিবিমান ভূপাতিত করার মধ্যদিয়ে সিরিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ও কৌশলগত লড়াই নতুন পর্যায়ে পৌঁছেছে।

 

ইসরাইলের আগ্রাসন মোকাবেলায় লেবাননের সশস্ত্র বাহিনীকে নির্দেশ

লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন বলেছেন, ইসরাইলের আগ্রাসন মোকাবেলা করা হবে। গতরাতে বৈরুতে মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড সেটারফিল্ডের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় তিনি ইসরাইলের আগ্রাসন মোকাবেলায় লেবাননের জাতীয় প্রতিরক্ষা উচ্চ পরিষদের কঠোর অবস্থানের কথা জানিয়ে দেন।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রেসিডেন্ট আউন মন্ত্রিসভার বৈঠকে বলেছেন, স্থলে ও পানিতে ইসরাইলের যে কোনো আগ্রাসন মোকাবেলার জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করছি কূটনৈতিক উপায়ে সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। এরপরও সেনাবাহিনীকে আগ্রাসন মোকাবেলার নির্দেশ দিয়ে রেখেছি।’

সম্প্রতি লেবানন সীমান্তে ইসরাইলের দেওয়াল নির্মাণ এবং সাগরের পানি সীমায় তেল উত্তোলন ইস্যুতে বৈরুত ও তেল আবিবের মধ্যে উত্তেজনা বেড়ে গেছে।

হিজবুল্লাহ ঘোষণা করেছে, লেবাননের পানি সীমায় তেল ও গ্যাস স্থাপনার কোনো ক্ষতি করা হলে ইসরাইলের সব তেল ও গ্যাস স্থাপনায় আঘাত হানা হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫