ঢাকা, রবিবার,১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মধ্যপ্রাচ্য

ইরানের দৃঢ় অবস্থানের পেছনে রয়েছে জনগণের ঈমানি শক্তি ও আত্মত্যাগ : খামেনেয়ি

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,বুধবার, ১৬:৩৯


প্রিন্ট
ইরানের দৃঢ় অবস্থানের পেছনে রয়েছে জনগণের ঈমানি শক্তি ও আত্মত্যাগ :  খামেনেয়ি

ইরানের দৃঢ় অবস্থানের পেছনে রয়েছে জনগণের ঈমানি শক্তি ও আত্মত্যাগ : খামেনেয়ি

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি বলেছেন, ইরানে সবচেয়ে কঠিন সময়ে শিয়া ও সুন্নি মুসলমান ভাইয়েরা একে অপরের পাশে দাঁড়িয়েছে। সামরিক ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে শত্রুদের ব্যাপক ষড়যন্ত্র ও নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইসলামি ইরানের দৃঢ় অবস্থানের পেছনে রয়েছে জনগণের ঈমানি শক্তি ও আত্মত্যাগ।

ইরানের সিস্তান-বালুচিস্তান প্রদেশের শহীদ বিষয়ক সম্মেলন উপলক্ষে এক বাণীতে সর্বোচ্চ নেতা এসব কথা বলেন।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি আরো বলেছেন, সিস্তান-বালুচিস্তান প্রদেশে বিপুল সংখ্যক মেধাবীর জন্ম হয়েছে। কিন্তু কাজার ও পাহলাভি আমলে এই প্রদেশের মানুষকে গুরুত্ব দেয়া হয়নি। এ কারণে সেখানকার মেধাবীরা পরিচিতি পান নি। তিনি বলেন, কুর্দিস্তান ও গোলেস্তানের মতো সিস্তান-বালুচিস্তানও ইসলামি ঐক্য এবং শিয়া- সুন্নি মুসলমানদের মধ্যে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ জীবনযাপন ও পারস্পরিক সহযোগিতার আদর্শ।

তিনি শত্রুদের বিভেদ সষ্টির ষড়যন্ত্রের বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। সর্বোচ্চ নেতা আরো বলেন, প্রতিরক্ষা যুদ্ধের সময় একজন সুন্নি তরুণের শাহাদাৎ বা ইসলামি বিপ্লবের পক্ষে কথা বলার কারণে বিপ্লববিরোধীদের হাতে একজন সুন্নি মাওলানার শহীদ হওয়ার ঘটনা প্রমাণ করে ইসলামি ইরানে শিয়া ও সুন্নি মুসলমান ভাইয়েরা সবচেয়ে কঠিন সময়ে একে অপরের পাশে দাঁড়ায়। শিল্প-সংস্কৃতির মাধ্যমে অকৃত্রিম এই ঐক্য ও বন্ধনকে তুলে ধরতে হবে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, শহীদরা হচ্ছেন প্রকৃত ঈমানের পরিপূর্ণ প্রতীক। এ কারণে ইসলামি শাসন ব্যবস্থায় শহীদদের প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা প্রদর্শন অত্যন্ত জরুরি।

 

আমেরিকা, ইসরাইল এবং তাদের অনুসারীরাই বর্তমান যুগের ফেরাউন: খামেনেয়ি

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনেয়ি বলেছেন, ফিলিস্তিন মুক্ত হবে এবং বায়তুল মোকাদ্দাসকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণার তৎপরতা থেকে তাদের অক্ষমতাই ফুটে উঠেছে। সর্বোচ্চ নেতা বলেন, চূড়ান্তভাবে মুসলমানরাই বিজয়ী হবে।

 তেহরানে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক ইসলামি ঐক্য সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী শত শত বিদেশি অতিথি, মুসলিম দেশগুলোর রাষ্ট্রদূত ও ইরানের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদেরকে দেওয়া এক সাক্ষাতে তিনি বুধবার এসব কথা বলেন।

সর্বোচ্চ নেতা আরো বলেছেন, তারা জেরুজালেম-কে দখলদার ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করবে বলে দাবি করছে। এ তৎপরতা থেকে তাদের দুরবস্থা ও অক্ষমতাই ফুটে উঠেছে। ফিলিস্তিন ইস্যুতে তাদের লক্ষ্য পূরণ হবে না বলে তিনি ঘোষণা করেন।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ি বলেন, আমেরিকা, ইসরাইল এবং তাদের অনুসারীরাই হচ্ছে বর্তমান যুগের ফেরাউন। তিনি আরো বলেন, আমেরিকার শাসক গোষ্ঠী এখন মধ্যপ্রাচ্যে নতুন যুদ্ধ বাধানোর চেষ্টা করছে। তারা নতুন যুদ্ধের মাধ্যমে ইসরাইলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫