ঢাকা, রবিবার,১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মধ্যপ্রাচ্য

দেশের স্বাধীনতা মানেই ভিন দেশ হস্তক্ষেপ করার অধিকার রাখে না: রুহানি

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,বুধবার, ১৬:৩২


প্রিন্ট
দেশের স্বাধীনতা মানেই ভিন দেশ হস্তক্ষেপ করার অধিকার রাখে না: রুহানি

দেশের স্বাধীনতা মানেই ভিন দেশ হস্তক্ষেপ করার অধিকার রাখে না: রুহানি

ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি বলেছেন, স্বাধীন ইরানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কেউ হস্তক্ষেপ করতে পারবে না। দেশের স্বাধীনতা মানেই কেউ ইরানে হস্তক্ষেপ করার অধিকার রাখে না।

রাজধানী তেহরানে বিভিন্ন প্রদেশের গভর্নর জেনারেলদের এক বৈঠকে প্রেসিডেন্ট রুহানি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, যদি ইরানের জনগণকে জিজ্ঞেস করা হয় তারা নিজেরা নিজেদের ভাগ্য নির্ধারণ করবেন নাকি বিদেশীদের ওপর নির্ভর করবেন -তাহলে শতকরা ৯৮ ভাগের বেশি মানুষ স্বাধীনতার পক্ষে জবাব দেবেন।

প্রেসিডেন্ট রুহানি সুস্পষ্ট করে বলেন, আমাদের জনগণ ইসলামি বিপ্লবের পথ অনুসরণ করা অব্যাহত রাখবেন যা তারা আগেই বেছে নিয়েছেন। স্বাধীনতা অর্জন, জাতীয় সার্বভৌমত্ব রক্ষা, মুক্তি অর্জন, ইসলামি ও জাতীয় সংস্কৃতির বিস্তার এবং ইসলামের আলোকে জনগণের শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য নিয়ে ইরানে বিপ্লব অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আমি বিশ্বাস করি এই পথ বদলানো সম্ভব নয়।

 

ষড়যন্ত্রকারীরা মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে খণ্ড-বিখণ্ড করতে চায় : রুহানি

ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি বলেছেন, ষড়যন্ত্রকারীরা মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে খণ্ড-বিখণ্ড করতে চায়। ইরাকি জাতির সচেতনতা ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সহযোগিতার কারণে ইরানের বন্ধুপ্রতীম দেশগুলোর অখণ্ডতা নিশ্চিত হয়েছে।

লেবানন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জনগণের সচেতনতা ও মিত্র দেশগুলোর সহযোগিতার কারণে লেবাননেও আমেরিকা ও ইসরাইলের ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে। মধ্যপ্রাচ্য সমস্যার সমাধান করতে হবে রাজনৈতিক উপায়ে এবং অন্যান্য দেশের সহযোগিতায় গোটা মধ্যপ্রাচ্যে নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব। ইরাক ও সিরিয়ার মানুষের প্রতি ইরানিরা সহযোগিতার যে হাত বাড়িয়ে দিয়েছিল তা সাফল্য ছিনিয়ে এনেছে। মধ্যপ্রাচ্যের মানুষেরা সন্ত্রাসবাদের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে।

ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, আমেরিকা ইরানের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে চায়। কিন্তু ইরানের জনগণ ঐক্য, সংহতি ও দৃঢ়তার মাধ্যমে তাদের ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দিয়েছে। আমেরিকা এ পর্যন্ত কয়েক বার আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক এ সমঝোতাকে ধ্বংসের চেষ্টা করেছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত সফল হয়নি। তারা যদি পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে যেতে চায় তাহলে স্বল্প সময়ের মধ্যেই ক্ষতির শিকার হবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা বিশ্বকে এটা জানিয়ে দিয়েছি যে, আমরা শক্তিশালী। আমরা নিজের পায়ে দাঁড়িয়েছি এবং সঠিক পথ ধরে এগিয়ে যাচ্ছি। গোটা বিশ্ব আমেরিকার ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে। শুধু মুসলিম দেশ নয় জাতিসংঘের গুটি কয়েক দেশ ছাড়া আর সবাই সাধারণ পরিষদে ওই ষড়যন্ত্রের বিরোধিতা করেছে।

রুহানি আরো বলেছেন, ইরান সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বিজয় অর্জন করেছে। আমাদের আশেপাশের দেশগুলোতে সন্ত্রাসীরা যেখানে ইচ্ছা প্রবেশ করে মানুষ হত্যা করেছে। কিন্তু তারা ইরানের সীমান্তে এসে গোয়েন্দা মন্ত্রণালয়ের লোকজন এবং ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী আইআরজিসি'র কাছে ধরাশায়ী হয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫