লিওনেল মেসি
লিওনেল মেসি

মেসিকে নিয়ে আর্জেন্টিনা-বার্সেলোনার দ্বন্দ্ব

নয়া দিগন্ত অনলাইন

লা লিগা টেবিলের শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার হয়ে কম ম্যাচ খেলার ব্যপারে লিওনেল মেসির সাথে আলোচনা করেছেন আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ক্লডিও তাপিয়া। ২০১৮ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে নিজেকে চাপমুক্ত রাখার জন্য মেসিকে এই পরামর্শ দিয়েছেন তাপিয়া।

এবারের মৌসুমে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় ৩৯টি ম্যাচের মধ্যে ৩৩টিতেই বার্সা কোচ আর্নেস্টো ভালভার্দে মেসিকে মূল একাদশে নামিয়েছেন। কিংস কাপের তিনটি ম্যাচে শুধুমাত্র মেসি মূল একাদশে ছিলেন না। তাপিয়ার এই পরামর্শ স্বাভাবিক ভাবেই খুব একটা ভালো চোখে দেখবেন না ভালভার্দে।

গত ৪ ফেব্রুয়ারি এস্পানেয়লের বিপক্ষে লীগ ম্যাচে ভালভার্দে প্রথমবারের মত মেসিকে মূল একাদশ থেকে বিশ্রাম দিয়েছিলেন। কিন্তু ম্যাচটিতে এস্পানেয়লের সাথে ১-১ গোলে ড্র করে কোনোরকমে পরাজয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে কাতালান জায়ান্টরা।

আর্জেন্টাইন গণমাধ্যমে তাপিয়া বলেছেন, ‘এই মুহূর্তে খেলোয়াড়রা যে পর্যায়ে রয়েছে আমি আশা করবো রাশিয়ান বিশ্বকাপের আগেও তারা একইরকম থাকবে। এই মুহূর্তে সার্জিও আগুয়েরো দারুণ ফর্মে রয়েছে। লিওনেল মেসিতো সবসময়ই নিজের মানকে ধরে রেখেছে। এটা একজন পরিচালক ও কোচিং স্টাফদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমরা মেসিকে নিজের প্রতি যত্নবান হওয়ার অনুরোধ জানিয়েছি। আর এর একমাত্র সমাধান হচ্ছে বার্সেলোনার হয়ে নিজের ওপর চাপ কম নেয়া।’

রাশিয়া বিশ্বকাপের অংশ হিসেবে জুনে কাতালোনিয়ার বিপক্ষে আর্জেন্টিনার একটি প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে বলে তাপিয়া ইঙ্গিত দিয়েছেন।

 

চ্যাম্পিয়নস লীগে বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদই ফেবারিট

সাবেক ক্লাব বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদকেই চ্যাম্পিয়নস লীগের ফেবারিট দল হিসেবে বিবেচনা করছেন তারকা এ্যাটাকিং মিডফিল্ডার মাইকেল লড্রুপ।

শেষ ১৬’তে বেশ কঠিন পরীক্ষার মুখেই পড়তে যাচ্ছে লা লিগার জায়ান্ট ক্লাব দুটি। বার্সার প্রতিপক্ষ চেলসি আর রিয়াল মাদ্রিদের মুখোমুখি হবে পিএসজি। গ্রুপ পর্বে পিএসজি ও ম্যানচেস্টার সিটির খেলা দেখে দারুন আকৃষ্ট হয়েছেন লড্রুপ। তারপরেও তিনি বিশ্বাস করেন অভিজ্ঞতাই মাদ্রিদ ও বার্সাকে অন্য দলগুলোর থেকে এগিয়ে রাখবে।

কাতারের স্টার্স লীগের ক্লাব আল-রাইয়ানের কোচ লড্রুপ বলেছেন, ‘আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি সবসময়ই ওই দুটি দলকেই এগিয়ে রাখবো যেখানে বেশিরভাগ মানুষের সমর্থন আছে। এর অর্থ হচ্ছে আমার দুই স্প্যানিশ ক্লাব, বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ। এরপর আমার তালিকায় থাকবে ম্যান সিটি। সিটির এখন যা ফর্ম তাতে তারা সহজেই দুটি দল বানাতে পারে। আমি মনে করি বিশ্বের খুব কম ক্লাবই আছে যারা নয়জন খেলোয়াড় পরিবর্তন করে মাঠে নামে। তাদের মূল একাদশ দেখে স্বস্তি না পেয়ে উপায় নাই।’

মাদ্রিদে যাওয়া আগে পাঁচ বছর বার্সায় কাটিয়েছেন ড্যানিশ তারকা লড্রুপ। ১৯৯২ সালে তিনি বার্সার হয়ে ইউরোপীয়ান কাপ জয় করেছেন। চ্যাম্পিয়নস লীগে ফিলিপ কুতিনহোকে না পেলেও লড্রুপ বিশ্বাস করেন দলের সুপারস্টার লিওনেল মেসি পার্থক্য গড়ে দিবেন।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.