ads

ঢাকা, শুক্রবার,২০ এপ্রিল ২০১৮

বিবিধ

মালয়েশিয়ার কাছে ২০০ কোটি ডলারের যুদ্ধবিমান বিক্রি করতে চায় ব্রিটেন

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,মঙ্গলবার, ১৭:১৪


প্রিন্ট
মালয়েশিয়ার কাছে ২০০ কোটি ডলারের যুদ্ধবিমান বিক্রি করতে চায় ব্রিটেন

মালয়েশিয়ার কাছে ২০০ কোটি ডলারের যুদ্ধবিমান বিক্রি করতে চায় ব্রিটেন

মালয়েশিয়ার পুরনো হয়ে যাওয়া যুদ্ধবিমান বহরে নতুন বিমান সরবরাহ করতে চায় ব্রিটেন। এজন্য দেশটির অস্ত্র নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান বিএই মালয়েশিয়ার কাছে ২০০ কোটি ডলারের যুদ্ধবিমান বিক্রি করার আগ্রহ দেখিয়েছে। অস্ত্র কেনার জন্য কুয়ালালামপুর সরকারকে রাজি করাতে কোম্পানিটি ব্রিটিশ সরকারের সহযোগিতা চেয়েছে।

বিএই হচ্ছে ইউরোপীয় কনসোর্টিয়ামের অংশ এবং এ কোম্পানি অত্যাধুনিক ইউরোফাইটার টাইফুন যুদ্ধবিমান তৈরি করে। কোম্পানিটি আশা করছে, মালয়েশিয়ার কর্মকর্তারা তাদের সঙ্গে চুক্তি করবেন। মালয়েশিয়া ১৮টিরও বেশি বিমান পরিবর্তনের চিন্তা করছে। সম্প্রতি, মালয়েশিয়ার বিমান বাহিনী তাদের বহর থেকে রুশ নির্মিত বেশ কিছু মিগ-২৯ বিমান বাদ দিয়েছে।

অবশ্য, ব্রিটিশ কোম্পানি মালয়েশিয়ার কাছে যুদ্ধবিমান বিক্রির আশা করলেও সে পথে খানিকটা প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে দাঁড়িয়েছে ফ্রান্স। তারা রাফায়েল বিমান বিক্রির জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে। এ বাধা কাটিয়ে উঠতে বিএই কোম্পানি ব্রিটিশ সরকারের সহায়তা নিতে চায় যাতে মালয়েশিয়াকে অর্থ পরিশোধের জন্য দীর্ঘ সময় দিতে পারে।

জাতীয় নির্বাচনের জন্য মালয়েশিয়া সরকার বিমান কেনার পরিকল্পনা নিয়ে কিছুটা ধীর গতিতে এগুচ্ছে। সে ক্ষেত্রে আগামী আগস্টের আগে বিমান কেনাবেচার সম্ভাবনা নেই বলে মনে করা হচ্ছে।

 

সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদার

সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়া মঙ্গলবার র‌্যাপিড ট্রানজিট সিস্টেম লিঙ্ক (আরটিএস লিঙ্ক) এর বিষয়ে একটি দ্বিপাক্ষিক চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে। রুটটি ২০২৪ সালে শেষ হওয়ার পর এর মাধ্যমে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার মধ্যে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপিত হবে।

সিঙ্গাপুরে সফররত মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক ও সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি হিয়েন চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। অষ্টম সিঙ্গাপুর মালয়েশিয়া লিডার্স রিট্রিট উপলক্ষে রাজাক সিঙ্গাপুর সফর করছেন।

লি বলেন, দীর্ঘ মেয়াদী আন্তঃসীমান্ত প্রকল্পের ক্ষেত্রে আরটিএস লিঙ্কটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এতে প্রতিদিন হাজার হাজার যাত্রী উপকৃত হবেন। পাশাপাশি এর ফলে সিঙ্গাপুর-জোহোর কজওয়ে’তে যানজটও কমবে।

নাজিব বলেন, আরটিএস লিঙ্কটি একটি জটিল প্রকল্প হলেও এটি বেশ নির্ভরযোগ্য। এর যে কারিগরি চ্যালেঞ্জ রয়েছে তা অতিক্রম করা সম্ভব। তিনি আরো বলেন, ‘এটা মালয়েশিয়ার সঙ্গে সিঙ্গাপুরের যোগাযোগের ধরন পাল্টে দেবে বলে আমরা আশাবাদী।’

 

 

ads

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫