ঢাকা, বুধবার,২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

আমেরিকা

চীন-রাশিয়া-উত্তর কোরিয়ার মোকাবেলায় সামরিক বাজেট বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,মঙ্গলবার, ১৬:৪৯


প্রিন্ট
চীন-রাশিয়া-উত্তর কোরিয়ার মোকাবেলায় সামরিক বাজেট বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চীন-রাশিয়া-উত্তর কোরিয়ার মোকাবেলায় সামরিক বাজেট বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

চীন, রাশিয়া এবং উত্তর কোরিয়াকে মোকাবেলা করার জন্য সামরিক বাজেট বাড়াতে কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মার্কিন প্রতিরক্ষা সদরদপ্তর পেন্টাগন। এই তিনটি দেশের পক্ষ থেকে সামরিক হুমকি বেড়ে যাওয়ার কারণে পেন্টাগন বিশাল এ বাজেট চেয়েছে বলে দাবি করছেন মার্কিন কর্মকর্তারা।

২০১৯ সালে সামরিক খাতে ব্যয় করার জন্য পেন্টাগন সোমবার ৬৮ হাজার ৬০০ কোটি ডলারের বাজেট বরাদ্দ দেয়ার প্রস্তাব করেছে। আমেরিকার ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বড় সামরিক বাজেট হতে যাচ্ছে। বিশাল এ বাজেট বরাদ্দ হলে মার্কিন পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচিও জোরদার করা হবে। পরমাণু অস্ত্র খাতে বাড়তি বাজেট চাওয়া হয়েছে তিন হাজার কোটি ডলার।

২০১৭ সালে আমেরিকা সামরিক খাতে যে বাজেট বরাদ্দ দিয়েছিল তার চেয়ে এবার ৮ হাজার কোটি ডলার বেশি বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। মার্কিন উপ প্রতিরক্ষামন্ত্রী ডেভিড এল. নরকুইস্ট সাংবাদিকদের জানান, চীন ও রাশিয়ার পক্ষ থেকে হুমকি মোকাবেলার জন্য এ বাজেট বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। তিনি দাবি করেন, বিশ্বব্যাপী চীন ও রাশিয়া তাদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার চেষ্টা চালাচ্ছে।

 

নতুন করে সামরিক হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগী হবে ফ্রান্স

সিরিয়ার সরকারী অবস্থানের ওপর নতুন করে সামরিক হামলার কথা ভাবছে আমেরিকা। কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, এ জাতীয় মার্কিন তৎপরতায় মদদ দিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে ফ্রান্স। মার্কিন প্রশাসনের কেউ কেউ সিরিয়ায় রাশিয়ার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিতে চাইছে।

সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অজুহাতে এ হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছে। সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের জন্য দামেস্ক সরকারকেই দায়ী করছে হোয়াইট হাউজ। মার্কিন প্রচারণার ধারা পরিবর্তন ঘটেছে। ইদলিবের বিমান ঘাঁটিতে গত এপ্রিলে ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র হামলার আগে যে ধরণের প্রচারণা চালানো হয়েছে সে ধরণের প্রচারণা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গ্রহণ করছে।

বুধবার রাতে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের বাহিনী দামেস্কপন্থী বাহিনীর বিরুদ্ধে বিমান হামলা চালানোর পর থেকে এ পদক্ষেপ নেয়ার কথা ভাবা হয়। সিরিয়ার দেয়ার আজ-জোরে এ হামলা চালানো হয়েছিল। হামলায় সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর শতাধিক নিহত হয়েছে বলে স্বীকার করেছে মার্কিন এক সেনা কর্মকর্তা।

মার্কিন জোটের এ হামলাকে যুদ্ধ অপরাধ হিসেবে অভিহিত করেছে সিরিয় সরকার। দামেস্ক সরকার আরো বলেছে, সন্ত্রাসবাদ বিরোধী যুদ্ধের অজুহাতে সিরিয় ভূখণ্ডে মার্কিন অবৈধ ঘাটি স্থাপনই এ জাতীয় হামলার লক্ষ্য।

মিডল ইস্ট আই

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫