ঢাকা, রবিবার,১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

বিবিধ

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে ফিলিস্তিন : পুতিনকে আব্বাস

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,মঙ্গলবার, ১৫:২৩


প্রিন্ট
যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে ফিলিস্তিন : পুতিনকে আব্বাস

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে ফিলিস্তিন : পুতিনকে আব্বাস

ইসরাইলের সঙ্গে ফিলিস্তিনের ভবিষ্যত কথিত শান্তি আলোচনায় আমেরিকার ভূমিকা কী হবে তা নিয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে আলোচনা করেছেন ফিলিস্তিনি স্বশাসন কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

সোমবার মস্কোয় অনুষ্ঠিত বৈঠকে তিনি পুতিনকে পরিষ্কার করে বলেছেন, ইসরাইলের সঙ্গে ভবিষ্যত আলোচনায় তার দেশ ওয়াশিংটনকে আর মধ্যস্থতাকারী হিসেবে মানবে না। আব্বাস বলেন, মধ্যস্থতাকারী হিসেবে আমেরিকার সঙ্গে আমরা এখন থেকে আর কোনো রকমের সহযোগিতা করব না; আমরা তাদের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছি।

মাহমুদ আব্বাস বলেন, মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক আলোচনার ক্ষেত্রে জাতিসংঘ, আমেরিকা, রাশিয়া ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমন্বয়ে গঠিত চতুষ্টয়ের পরিবর্তন চায় তার দেশ এবং এখন থেকে নতুন ও বর্ধিত মধ্যস্থতাকারী চায়।

এর আগে, জাতিসঙ্ঘে নিযুক্ত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত রিয়াদ মানসুর গত শনিবার বলেছেন, তারা ভবিষ্যতে আলোচনায় চীন ও আরব লীগকে অন্তর্ভুক্ত করতে চান। আমেরিকার কর্তৃত্বকামী আচরণের কারণে তারা এমনটি চিন্তা করছেন বলে জানান রিয়াদ মানসুর।

গত ৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ফিলিস্তিনের জেরুসালেম শহরকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। এরপর থেকে ফিলিস্তিনিরা ব্যাপকমাত্রায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন এবং প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস তখন বলেছিলেন, ভবিষ্যতে ফিলিস্তিন-ইসরাইল আলোচনায় আমেরিকাকে আর মধ্যস্থতাকারী হিসেবে মানবেন না তিনি।

 

জেরুসালেম ইস্যুতে রাশিয়ার সমর্থন চান আব্বাস

ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে জেরুসালেমকে ওয়াশিংটন স্বীকৃতি দেয়ার পর রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সমর্থন আদায়ের লক্ষ্যে ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস সোমবার মস্কো সফরে গেছেন। ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর সফরের দুই সপ্তাহ পর ফিলিস্তিনি এ নেতা মস্কো সফরে গেলেন।

এ সফরে তিনি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন এবং ফিলিস্তিন-ইসরাইল কথিত শান্তি আলোচনায় মার্কিন আধিপত্য নস্যাৎ করতে তিনি রাশিয়ার পক্ষ থেকে বৃহত্তর ভূমিকা পালনের আহ্বান জানাবেন।

ফিলিস্তিনের কর্মকর্তারা বেশ কিছুদিন ধরে বলে আসছেন, ফিলিস্তিন ও ইসরাইল ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র পক্ষপাতপূর্ণ অবস্থান নিয়েছে। তবে ভবিষ্যৎ আলোচনায় এর অবসান হতে হবে। ফিলিস্তিনি কর্মকর্তারা আরো বলছেন, ইসরাইলের সঙ্গে ভবিষ্যৎ কথিত শান্তি আলোচনায় প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস রাশিয়াসহ আরো কয়েকটি দেশকে যুক্ত করতে চান। মার্কিন সরকারের ইসরাইলপন্থী অবস্থানের কারণে তিনি এ পদক্ষেপ নিয়েছেন।

মাহমুদ আব্বাসের কূটনৈতিক উপদেষ্টা মাজদি আল-খালিদি বলেছেন, আন্তর্জাতিক শান্তি আলোচনার ক্ষেত্রে রাশিয়া ও পুতিন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন। এর আগে জাতিসঙ্ঘে নিযুক্ত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত রিয়াদ মানসুর গত শনিবার বলেছেন, তারা ভবিষ্যতে কথিত শান্তি আলোচনায় চীন ও আরব লিগকে অন্তর্ভুক্ত করতে চান। আমেরিকার কর্তৃত্বকামী আচরণের কারণে তারা এমনটি চিন্তা করছেন বলে জানান রিয়াদ মানসুর।

গত ৬ ডিসেম্বর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ফিলিস্তিনের জেরুসালেম শহরকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। এর পর থেকে ফিলিস্তিনিরা ব্যাপকমাত্রায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন এবং প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস তখন বলেছিলেন, ভবিষ্যতে ফিলিস্তিন-ইসরাইল আলোচনায় আমেরিকাকে আর মধ্যস্থতাকারী হিসেবে মানবেন না তিনি।

আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদে আব্বাসের ভাষণ দেয়ার কথা রয়েছে। জাতিসঙ্ঘের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের স্বীকৃতি আদায়ে তিনি কাজ করে যাওয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। এ পর্যন্ত বিশ্বের ১৩০টির বেশি দেশ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫