ঢাকা, বুধবার,২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

বরিশাল

উজিরপুরে সন্তানসহ সাংবাদিককে পুলিশ ক্যাম্পে আটকে নির্যাতন

জহির খান উজিরপুর (বরিশাল) সংবাদদাতা

১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,সোমবার, ১২:৪৭


প্রিন্ট

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার শিকারপুর ক্যাম্পের কতিপয় পুলিশ সদস্যর বিরুদ্ধে এক সাংবাদিককে লাঞ্চিত ও তার কলেজ পুত্রকে আটক করে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। একই সাথে এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় বরিশাল থেকে প্রকাশিত দৈনিক আজকের পরিবর্তনের উজিরপুর প্রতিনিধি ও উজিরপুর রিপোটার্স ইউনিটির সাধারন সম্পাদক সাকিল মাহমুদ বাচ্চুকে ঘার ধাক্কা দিয়ে লাঞ্চিত করেছে দুই পুলিশ কনষ্টবল। এখানেই শেষ নয়, উল্টো ঘটনাটি ধামাচাঁপা দেয়ার জন্য ক্ষিপ্ত ক্যাম্প পুলিশ সদস্য শেখ মাহাবুব বাদি হয়ে শনিবার রাতেই উজিরপুর মডেল থানায় একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে।

জানা গেছে, উপজেলার শিকারপুর বন্দর সংলগ্ন গৌরাঙ্গ চক্রবর্তীর বাড়িতে শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তেঁতুল খেতে যায় স্থানীয় সাংবাদিক শাকিল মাহমুদ বাচ্চু’র কনিষ্ট পুত্র জয়শ্রী মুন্ডপাশা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র রাতুল মাহমুদ (১১) ও একই গ্রামের স্থানীয় মিজান বিশ্বাসের পুত্র একই বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনির ছাত্র হৃদয় বিশ্বাস (১৫) । এ সময় রাতুল মাহমুদ ও হৃদয় বিশ্বাসের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। দুই শিশুর মধ্যে মারামারি থামাতে গিয়ে স্থানীয় মঞ্জু বেগম নামে এক নারী আহত হয়। এ বিষয়টি মুহুর্তের মধ্যে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে স্কুল ছাত্র রাতুলের বড় ভাই ও সাংবাদিক বাচ্চুর জেষ্ঠ্য পুত্র বরিশাল (ব্রজমোহন) বিএম কলেজের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র জয় মাহমুদ ঘটনাস্থলে যায়। একই সঙ্গে শিকারপুর বাজার পুলিশ ক্যাম্পের পুলিশ সদস্য মো: ফয়সাল, মো সুমন হাওলাদার, মো: কাওছার হোসেন, মো: রাসেল হোসেনসহ কয়েকজন পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে রাতুলের বড় ভাই রাজু ও তাকে (রাতুল) মারধরকারী স্কুল ছাত্র হৃদয়কে আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যায়।
খবর পেয়ে কলেজ ছাত্র রাজুর বাবা শিকারপুর বন্দর ব্যবসায়ি কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও উজিরপুর রিপোটার্স ইউনিটির সাধারন সম্পাদক শাকিল মাহমুদ বাচ্চু শিকারপুর পুলিশ ক্যাম্পে গিয়ে সেখানে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদের কাছে তার ছেলেকে আটকের অপরাধ জানতে চায়। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ক্যাম্পের দরজা আটকে পুলিশ সদস্য মো: ফয়সাল (কং/১৩১৪), মো সুমন হাওলাদার (কং/১০৬৯), মো: কাওছার হোসেন (কং/১৩৬৮) ও মো: রাসেল হোসেন (কং/১৪৯১) সাংবাদিক বাচ্চুর সামনেই তার ছেলেকে রসি দিয়ে বেঁধে লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকে।
সাংবাদিক সাকিল মাহমুদ অভিযোগ করে বলেন, আমার জেষ্ঠ্য পুত্র জয় মাহমুদকে আটকের খবর পেয়ে আমি পুলিশ ক্যাম্পে গিয়ে পুত্রকে আটকের বিষয়ে জানতে চাই। এতে পুলিশ কনষ্টবল শেখ মো. মাহবুব হোসেন (কং/১৪১৭) ও মো. ফয়সাল (কং/১৩১৪) ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। আমি গালিগালাজের প্রতিবাদ করলে আমার সামনে পুত্র জয় মাহমুদকে রসি দিয়ে বেঁধে লাঠি দিয়ে পেটাতে থাকে। এক পর্যায়ে মারধর করতে বারন করলে কনষ্টবল শেখ মাহবুব ও ফয়সাল আমাকে ঘার ধাক্কা দিয়ে লাঞ্চিত করে রসি দিয়ে বাধতে চেষ্টা করে। বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে মুহুর্তের মধ্যে শিকারপুর বাজারের প্রায় শতাধিক ব্যবসায়ী ও সংবাদকর্মীরা ক্যাম্পের সামনে অবস্থান নিলে তাৎক্ষনিক থানা পুলিশের পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) মো. হেলাল উদ্দিন সাংবাদিক বাচ্চুর সাথে ক্যাম্প পুলিশ সদস্যদের আপোষ করে ছেড়ে দেয়। এ ঘটনায় তাৎক্ষনিক ব্যবসায়ীরা সিদ্ধান্ত নিয়ে রোববার সকালে ক্যাম্প পুলিশের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধনের ঘোষণা করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রকৃত ঘটনা ধামাচাঁপা দিতে ও ঝামেলা এড়াতে শনিবার রাতেই পুলিশ ক্যাম্পের সদস্য মোঃ মাহাবুব শেখ (কং/১৪১৭) বাদী হয়ে উল্টো পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগ এনে আমার বিরুদ্ধে উজিরপুর মডেল থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫