হ্যাটট্রিক করে নেইমারদের বিপক্ষে প্রস্তুতিটা সারলেন রোনালদো

নয়া দিগন্ত অনলাইন

লা লিগায় শনিবার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর হ্যাটট্রিকে রিয়াল সোসিয়েদাদকে ৫-২ গোলের বড় ব্যবধানে পরাজিত করেছে রিয়াল মাদ্রিদ। এতে করে চ্যাম্পিয়নস লীগের নক আউট পর্বে প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইর বিপক্ষে ম্যাচের আগে নিজেদের প্রস্তুতিটা বেশ ভালোভাবেই সেরে নিল গ্যালাকটিকোরা।

এবারের মৌসুমে এখন পর্যন্ত নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেনি জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। এখনও তারা টেবিলের শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার কাছে যাওয়ার জন্য ধুঁকছে। তবে মৌসুমের মাঝামাঝিতে এসে লীগে এই ধরনের বড় জয় স্বাভাবিক ভাবেই রিয়ালকে উজ্জীবিত করে তুলবে। বিশেষ করে বুধবার ফ্রেঞ্চ জায়ান্ট পিএসজির বিপক্ষে মাঠে নামার আগে এই ধরনের একটি জয় অত্যন্ত জরুরি ছিল। ঘরের মাঠ সানতিয়াগো বার্নাব্যুতে কার্যত প্রধমার্ধের চার গোলেই রিয়ালের জয় নিশ্চিত হয়। প্রথম মিনিটেই লুকাস ভাসকুয়েজের গোলে এগিয়ে যাওয়া, তারপর মূলত রিয়ালকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। রোনাল্ডোর হ্যাটট্রিক বাদে বাকি গোলটি করেছেন টনি ক্রুস। লীগের শেষ চারটি ম্যাচে তারা তিনটিতে জয় ও একটিতে ড্র করেছে। এই সময়ের মধ্যে করেছে ১৮ গোল।

দলের ডিফেন্সিভ কৌশলে শেষের দিকে দুই গোল হজম জিদানের জন্য দুঃশ্চিন্তার কারণই বটে। কিন্তু রোনালদোর ফর্মে ফেরা কিছুটা হলেও জিদানের মনে স্বস্তি এনে দিয়েছে। ম্যাচ শেষে জিদান বলেছেন, ‘সবসময়ই সে একটা মানসিক পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নামে। সে গোলের জন্য খেলে। আর আজ সে তিন গোল করে প্রমান করেছে পুরো ম্যাচে তার দিকেই তাকিয়ে থাকতে হবে। সে আরো এক থেকে দুটি গোল করতে পারতো।’

মাদ্রিদ এখনও লীগে অপরাজিত থাকা বার্সেলোনার থেকে ১৬ পয়েন্ট পিছিয়ে চতুর্থ স্থানে রয়েছে। পিএসজি সফরের কথা চিন্তা করে জিদান গ্যারেথ বেল ও কাসেমিরোকে মূল একাদশ থেকে বিশ্রাম দিয়েছিলেন। তার পরিবর্তে মূল একাদশে সুযোগ পেয়েছিলেন মার্কো আসেনসিও ও লুকাস ভাসকুয়েজ। জিদানের অধীনে অন্য যেকোন খেলোয়াড়ের থেকে ভাসকুয়েজ রিয়ালের হয়ে সবচেয়ে বেশী ম্যাচ খেলেছেন। আর সে কারনে কোচের আস্থার প্রতিদান দিতেই হয়ত প্রথম মিনিটেই রোনাল্ডোর ক্রস থেকে দলকে এগিয়ে দিতে ভুল করেননি ভাসকুয়েজ। ইনজুরির কারনে সোসিয়েদাদের সর্বোচ্চ গোলদাতা উইলিয়ান হোস কাল মাঠে ছিলেন না। বার্নাব্যুতে অতীত অভিজ্ঞতাও ততটুকু সুবিধান না হওয়ায় সোসিয়েদাদ প্রথম থেকেই যেন ব্যাকফুটে ছিল। ২৭ মিনিটে আসেনসিও ও মার্সেলোর সহায়তায় প্রাপ্ত পাস থেকে রোনাল্ডো ব্যাবধান দ্বিগুন করেন। ৩৪ মিনিটে ক্রুস তার ট্রেডমার্ক কার্লিং শট ডান পায়ের জোড়ালো শটে দলের পক্ষে তৃতীয় গোল করেন। ৩৭ মিনিটে লুকা মোদ্রিচের কর্ণার থেকে রোনাল্ডো হেডের সাহায্যে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন। করিম বেনজেমা ও রোনাল্ডোর শট পোস্টে না লাগলে বিরতির আগে ব্যবধান আরো বাড়তে পারতো।

বিরতির পরে রিয়াল সমানভাবে নিজেদের আধিপত্য বজার রাখতে পারেনি। ৭৪ মিনিটে বদলী খেলোয়াড় জন বাতিস্তুতার গোলে এক গোল পরিশোধ করে সফরকারীরা। ৮০ মিনিটে বেলের শট সোসিয়েদাদ গোলরক্ষক জেরোনিমো রুলি ধরতে ব্যর্থ হলে ফিরতি বলে রোনাল্ডো হ্যাটট্রিক পূরণ করেন। এই মৌসুমে এনিয়ে লীগে ১১তম গোল করলেন রোনাল্ডো। এর মধ্যে শেষ চার ম্যাচে এসেছে সাত গোল। ৮৩ মিনিটে পোস্টের খুব কাছ থেকে মাদ্রিদের সাবেক মিডফিল্ডার আসিয়ের ইলারামেন্ডি সোসিয়েদাদের পক্ষে দ্বিতীয় গোলটি করেন।

তবে শনিবার লীগে দ্রুততম গোলটি রিয়ালের নয় বরং তাদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বি অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদেও ছিল। ফ্রেঞ্চ তারকা এন্টোনিও গ্রিজম্যানের ৩৯ সেকেন্ডে করা গোলে এ্যাথলেটিকো তলানির দল মালাগার বিপক্ষে জয় তুলে নিয়েছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.