ঢাকা, বুধবার,১৯ জুন ২০১৯

শেষের পাতা

ফরিদপুরে কামাল ইউসুফের বাড়িতে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের হামলা

ফরিদপুর সংবাদদাতা

১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,শনিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ফরিদপুরে বিএনপি ঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে পুলিশের উপস্থিতিতে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফের পৈতৃক বাসভবন ময়েজ মঞ্জিলে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে এবং তিনজনকে কুপিয়ে জখম করেছে। এ সময় কয়েক রাউন্ড গুলিও বর্ষণ করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে জুমার নামাজের পর এ ঘটনা ঘটে।
তবে এ সময় পরিবারের কেউ বাড়িতে ছিলেন না। জুমার নামাজের পর সেখানে কোতোয়ালি বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান রঞ্জন, সাংগঠনিক সম্পাদক এমদাদুল হক, জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আরিফুজ্জামান অপু, ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ভিপি সেলিমের নেতৃত্বে সেখানে নেতাকর্মীরা সমবেত হচ্ছিলেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কর্মসূচি পালনের লক্ষ্যে ময়েজ মঞ্জিলে সমবেত হওয়ার খবর পেয়ে সেখানে টহল পুলিশ ও বিজিবির পাশাপাশি যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মোটরসাইকেলে চেপে ধারালো ও আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে সেখানে হামলা চালায়। এ সময় শহর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সনেট, যুবদল নেতা উজ্জ্বল ও হৃদয়কে বেধড়ক পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করা হয়। ময়েজ মঞ্জিলে নিরস্ত্র নেতাকর্মীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়লে তাদের লক্ষ্য করে তাদের লক্ষ্য করে ৭-৮ রাউন্ড গুলি ছোড়ে তারা। পুলিশের উপস্থিতিতেই এ হামলা চালানো হয় বলে বিএনপির নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন।
আহত ছাত্রনেতা সনেট, উজ্জ্বল ও হৃদয়কে ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ এ ঘটনাকে ন্যক্কারজনক উল্লেখ করে বলেন, ময়েজ মঞ্জিলের ১০০ বছরেরও বেশি সময়ের ইতিহাসে এমন হামলার ঘটনা ঘটেনি। ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে পাকিস্তান আমলে আইয়ুববিরোধী আন্দোলনসহ বিভিন্ন আন্দোলন-সংগ্রামে ময়েজ মঞ্জিল নেতৃত্ব দিলেও এর আগে কোনো দিন এমন হামলা হয়নি বলেও তিনি জানান।
এ দিকে একই সময় খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা জহিরুল হক শাহজাদা মিয়ার নেতৃত্বে শহরের নেতাকর্মীরা ঝিলটুলীর শাহ ফরিদ সড়কে বিক্ষোভ করে। এ সময় শাহজাদা মিয়া ও সাবেক সংসদ সদস্য ইয়াসমিন আরা হক বক্তৃতা দেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫