ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মতামত

ড্রোন হামলায় মানুষ হত্যায় ট্রাম্পের রেকর্ড

রাশিদুল ইসলাম

০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,বুধবার, ১৭:৪৪


প্রিন্ট
ড্রোন হামলায় মানুষ হত্যায় ট্রাম্পের রেকর্ড

ড্রোন হামলায় মানুষ হত্যায় ট্রাম্পের রেকর্ড

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার দুইবারের শাসনামলের আট বছরে ড্রোন হামলায় যত সাধারণ মানুষ হত্যা হয়েছে তার চেয়ে বেশি মানুষ হত্যায় ৯ মাসেই রেকর্ড গড়ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ওবামাকে ড্রোন অভিযান শুরুর জন্য ‘ড্রোন কিং’ বলেও অভিহিত করা হয়। ওবামা ক্ষমতায় আসার দুই বছরের মধ্যে ড্রোন অভিযান শুরু করেন। আইএস জঙ্গিদের বিরুদ্ধে এ ধরনের অভিযানে নিহতদের বেশির ভাগই বেসামরিক মানুষ। আহত হয়েছে অসংখ্য মানুষ। ওবামার শাসনামলে ড্রোন হামলায় সাড়ে চার হাজার বেসামরিক মানুষ মারা যায় বলে বলছে এয়ারওয়ারস। এ প্রতিষ্ঠানটি ড্রোন হামলায় বেসামরিক মানুষের মৃত্যুর ঘটনা তদারকি করে।

এয়ারওয়ারস বলছে- ২০১৪ সাল থেকে এ পর্যন্ত ড্রোন হামলায় বেসামরিক মানুষ মারা গেছে ছয় সহস্রাধিক এবং ট্রাম্পের শাসনামলে তা ৫৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। সাবেক মার্কিন উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিভেন ফেল্ডস্টেইন তার এক প্রতিবেদনে বলেন, গত বছর মে মাসেই ইরাক ও সিরিয়ায় ড্রোন হামলায় ৫৭ জন নারী ও ৫২ জন শিশু মারা যায়। এ দিকে, আফগানিস্তানে ড্রোন হামলায় বেসামরিক মানুষ হতাহতের ঘটনা তদারকি সংস্থা ইউনাইটেড ন্যাশনস অ্যাসিসটেন্স মিশন এক তথ্যে বলছে, গত বছরের প্রথম ছয় মাসে দেশটিতে ড্রোন হামলায় বেসামরিক মানুষ হতাহতের হার তার আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় বেড়েছে ৪৩ শতাংশ। মৃত্যুর দিক থেকে এ হার বৃদ্ধি পেয়েছে ৬৭ শতাংশ। এ ছাড়া আফগানিস্তানে হামলার ক্ষেত্রে ট্রাম্প প্রশাসন সামরিক কর্মকর্তাদের পূর্ণ ক্ষমতা দেয়ায় এ ধরনের হতাহতের ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

স্টিভেন ফেল্ডস্টেইন বলছেন, ২০১৬ সালের তুলনায় গত বছর ড্রোন হামলায় আকাশ থেকে হামলা ও বোমার ব্যবহারও ২০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রতি মাসেই বেসামরিক মানুষ হতাহতের ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত বছর ২৩ মে থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত ড্রোন হামলায় ৪৭২ জন বেসামরিক মানুষ মারা যায়। অথচ ইউরোপে গত ১২ বছরে সন্ত্রাসী হামলায় মারা গেছে ৪৫৯ জন বেসামরিক ব্যক্তি।

এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বুশের গড়া রেকর্ড অতিক্রম করেছেন বারাক ওবামা এবং তা এখন অতিক্রম করলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। প্রকৃতপক্ষে এটি এমন এক নিখুঁত হিসেবে পরিণত হয়েছে- এক দিকে যেমন ড্রোন হামলায় নিরীহ মানুষ হত্যা বাড়ছে, লাখ লাখ মানুষ তাদের বাড়িঘর হারিয়ে শরণার্থীতে পরিণত হচ্ছে, অন্য দিকে তখন যুক্তরাষ্ট্রেও নিরীহ নিরপরাধ মানুষের ওপর সন্ত্রাসী হামলার বিষয়টি স্বাধীনতা হিসেবে বিবেচনা করতে শুরু করেছে সন্ত্রাসীরা। এবং এটি বিপজ্জনক ও এভাবেই মার্কিনিদের প্রতি ঘৃণা বাড়ছে।

এয়ারওয়ারসের সর্বশেষ হিসাবে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক যৌথ বাহিনীর ড্রোন হামলা হয়েছে ২৮ হাজার ৭৯৫টি। এর মধ্যে ইরাকে হয়েছে ১৪ হাজার ১৩৪টি, সিরিয়ায় ১৪ হাজার ৬৬১টি, বেসামরিক মানুষ মারা গেছে ছয় হাজার ৪৭ জন এবং বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে এক লাখ পাঁচ হাজার ৩০৮টি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫