বক্সিং থেকে সঙ্গীতে আলী জ্যাকো

কিক বক্সিংয়ে ৫ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আলী জ্যাকো, একজন বক্সার ও প্রমোটর হিসেবে ঈর্ষনীয় সাফল্য লাভের পর এবার তার প্রিয় বক্সিং গোবগুলো ত্যাগ করে নিজের আজন্ম লালিত স্বপ্ন সঙ্গীত শিল্পী হবার ঐকান্তিক বাসনা নিয়ে সঙ্গীত চর্চ্চায় পুরোপুরি আত্মনিয়োগ করেছেন। কিক বক্সিংয়ে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যে তার যেরূপ দৃঢ় প্রতিজ্ঞা ছিল- সঙ্গীত চর্চ্চার ক্ষেত্রেও তিনি একই ধরনের সংকল্প নিয়ে নিজেকে গড়ে তুলতে প্রত্যয়ী হয়েছেন। 

চলতি ২০১৮ সালে বাংলা, হিন্দি ও ইংরেজী মিলিয়ে তার ১১ মিউজিক ভিডিওসহ প্রকাশ হতে যাচ্ছে। ‘আই ফাউন্ড লাভ’ শিরোনামে তার গাওয়া একটি ইংরেজী রক আইটেম আগামী ৩১ জানুয়ারী মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এতে একটি চমৎকার মিউজিক ভিডিও সংযোজিত থাকবে। আসনড়ব ভ্যালেন্টাইন ডে উপলক্ষেও আলী জ্যাকোর রোমান্টিক মিউজিক ভিডিও রিলিজ হবে, যা সঙ্গীত পিপাসুদের হৃদয়কে আন্দোলিত করবে বলে আমাদের বিশ্বাস।
আলী জ্যাকোর সকল রিলিজ ও পূর্ণাঙ্গ তালিকা এবং এ সংক্রান্ত রিভিউ আলী জোকোর ওয়েব সাইটে পাওয়া যাচ্ছে।
উল্লেখ্য, আলী জ্যাকোর আই ফাউন্ড লাভ’ টিউনটি বলিউডের একটি নির্মিতব্য সিনেমার জন্য মনোনীত হয়েছে। অচিরেই সিনেমাটির নাম চূড়ান্ত করা হবে।
আলী জ্যাকো তার নিজের কন্ঠে একটি বাংলা গান প্রথম বারের মত রিলিজ করতে যাচ্ছেন শিগগিরই। একজন বাংলাদেশী বংশোদ্ভুত হিসেবে আলী জ্যাকো ব্যক্তিগতভাবে এটি নিয়ে খুবই গর্বিত এবং এটি তার জন্য একটি বিশাল অর্জন বলে তিনি মনে করেন।
আলী জ্যাকোর পিতা একজন সাধারণ বাংলাদেশী ছিলেন এবং পঞ্চাশের দশকে বাংলাদেশ থেকে বিলেতে পাড়ি জমান। তার বাবা জীবিত থাকলে এটি নিয়ে খুবই গর্বিত হতেন বলে আলী জ্যাকো মনে করেন। আলী জ্যাকো বলেন, আমার বাবা একজন খুবই ভাল তবলা বাদক ছিলেন এবং একজন সঙ্গীতপ্রিয় মানুষ ছিলেন। তিনি আনন্দিত হতেন, যদি তিনি দেখে যেতে পারতেন আমি বাংলা, ইংরেজী ও হিন্দিতে গান করছি। এটি আমার জন্য একটি গল্পের মত মনে হয়, যার মূল চরিত্র হচ্ছি আমি। আলী জ্যাকো আশা করছেন, তার গানগুলো বাংলাদেশী দর্শক ও শ্রোতাদের মাঝেও ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাবে। আমার গানটি হবে গতানুগতিক বাংলা গানের চেয়ে কিছুটা ভিনড়ব। এটি হবে আমার প্রথম সিঙ্গেল ‘গিভ মাই লাভ এ ব্র্যান্ড নিউ নেইম’-এর একটি ভিনড়ব ভার্সন। আমি বিশ্বাস করি প্রতিটি রোমান্টিক বাংলাদেশী এই গানটি পছন্দ করবেন।

আলী জ্যাকোর সাহসী সঙ্গীত সাধনা
আলী জ্যাকো তার লড়াকু চরিত্র আর ক্রীড়াক্ষেত্রে সাফল্যের জন্য সুপরিচিত। পাশাপাশি সঙ্গীত সাধনার মত কঠিন পথেও হাঁটার মত দুঃসাহসের অধিকারী আলী জ্যাকো। একটি সূচনা সঙ্গীত গাওয়ার মধ্য দিয়ে সঙ্গীত জগতে তার পদার্পন। কিন্তু, শিগগিরই তিনি বুঝতে পারেন গান গাওয়ার মত মাত্রা জ্ঞান ও সহজাত প্রতিভা রয়েছে তার মাঝে। অথচ, এর আগে কোনদিন ‘বাথরুম সিঙ্গার’ হিসেবে গানের কলি আওড়াননি তিনি। এমনকি, তার স্বজনরাও জানতেন না আলী জ্যাকো গান গাইতে পারেন। কিন্তু, আলী জ্যাকো কোন কোন সময় মনে করতেন, এক দিন জেগে উঠবেন আর দেখবেন সম্পুর্ণ নতুন এক পরিচিতি। আসলেই এটি একটি স্বপড়ব বা একটি রূপকথার গল্প বাস্তবে রূপ নেবার মত ঘটনা। আলী জ্যাকো সব সময় বলতেন, আমি গান গাইতে পারি। আমি গান গাইবো। গান গেয়ে মানুষের হৃদয় জয় করবো।
আলী জ্যাকো প্রাথমিকভাবে পরিকল্পনা করেছিলেন একটি গানের এলবাম রিলিজ করবেন যেখানে তার গাওয়া ৬টি একক গান স্থান পাবে। কিন্তু, ব্যতিμমী আলী জ্যাকো হওয়ায় আবারো তিনি একটি ব্যতিμমী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি আগামী ১১ মাসে ১১টি সিঙ্গেল গান প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছেন। এগুলোর সাথে থাকবে ১১টি আকর্ষনীয় মিউজিক ভিডিও। চলতি জানুয়ারীর শেষেই এই প্রকাশনা শুরু হবে এবং তা চলবে আগামী নভেম্বর পর্যন্ত।
আগামী মাসগুলোকে দর্শক শ্রোতাদের যে গানগুলো আলী জ্যাকো উপহার দিতে যাচ্ছেন, সেগুলো হলো-

জানুয়ারী ২০১৮ : ‘আই ফাউন্ট লাভ’
যখন জীবন সমস্যা প্রকট হয়ে উঠে- সুখের অনুভূতি আত্মাকে ছেড়ে যায়, তখন এই গানের মাধ্যমে আলী জ্যাকোর কন্ঠের গভীরতায় ফুটে উঠে ভালবাসাকে খুঁেজ নেবার আকুতি। গানের কথাগুলোর হৃদয়ছোয়া বাণী, জীবনের গভীরতম উপলব্ধিকে তুলে ধরার সফল চেষ্টা আন্দোলিত করে মনকে। সেই সাথে সম্মিলিত কোরাসের ধ্বনি সব কিছুকে পরাভূত করে ধরা দেয় সুরেলা এক আশ্বাসের বাণী হিসেবে। আশা জাগানিয়া এই সঙ্গীত দোলা দেয় অন্তরাত্মাকে। জানিয়ে দেয়, আপনার ভালবাসাকে খুঁজে নেবার সময় এখনো পেরিয়ে যায়নি।

ফেব্রুয়ারী ২০১৮ : ‘দ্যা অনলি থিং আই সি’
এই গানে আলী জ্যাকোর একটি সরল সঙ্গীতের ভাষায় অথচ উদ্দাম সুরের মুর্চ্ছনায় ব্যক্ত করেছেন একটি ভাল তরুণীর কাছে একজন অগ্রহণযোগ্য তরুণকে তুলে ধরার ঐকান্তিক আকাঙ্খাকে। আশির দশকের কোমল রক গানের সুরগুলোর অনুসরণ করে এই ট্র্যাকটিকে চলমান সময়ের সাথে সমন্বয় করার চেষ্টা করা হয়েছে। গানটি সহজেই আমার ঠোঁটের কোনায় নিয়ে আসবে হাসির ছোয়া। মনে হবে, আশির দশকের সিনেমার নায়কের মত আপনি আপনার এয়ার গিটার মশকো করার চেষ্টা করছেন। আকর্ষনীয় এই ট্র্যাকটি নির্মিত হয়েছে বড় কোন ক্যানভাসের জন্য। বার বার আপনি শুনতে চাইবেন গানটি।

মার্চ ২০১৮ : ‘হোয়াট ইফ আই লাভ ইউ লাইক দ্যাট’
হৃদয়কাড়া এই গানটির আকর্ষনীয় কথাগুলোর উচ্চারণ আর মনকাড়া সুরের পাশাপাশি রক গিটারের ঝংকার প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে আলী জ্যাকোর সঙ্গীত প্রতিভা সন্দেহাতীত। এ গান কোরাসের ব্যবহারে হয়েছে আরো আকর্ষনীয়। চিরন্তন একটি ব্যালাডের মত প্রভাব নিয়ে এ গান তার বর্ণনাতীত আচ্ছনড়বতা নিয়ে আছড়ে পড়ে হৃদয় সাগরের তীরে।

এপ্রিল ২০১৮ : ‘থিংক ইট ওভার’
গানের শুরুতেই কন্ঠ সূচনার মাধ্যমে আলী জ্যাকো এই গানটিতে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন তারুণ্যের দৃঢ়তা নিয়ে নতুন করে চলার পথে পা বাড়াতে তিনি সক্ষম। চিরন্তন রকের প্রবেশ যখন ঘটে, তখন আলী জ্যাকো তার আগামীর পথে এগিয়ে যাবার প্রত্যয়ের কথা জানান দেন। গিটারের সুর আমাদেরকে নিয়ে যায় সময়ে বিবর্তনের পথে। জাগায় প্রেরণা আর শোনায় ভালবাসার প্রকৃত উপলব্ধির কথা।

মে ২০১৮ : ‘টপ অব দ্যা ওয়ার্ল্ড’
এ গানের একটি অন্যরকম দৃড়তা আছে, যেখানে আলী জ্যাকোকে আমরা খুঁজে পাই ভিনড়ব আমেজে। এখানে গিটার আর হার্ড রক বিটের আসে দৃঢ় সঙ্গীত আর সুরের সমন্বয়। এ গানে আলী জানান, তার জীবন একটি ছায়াছবির মত। পাশাপাশি, তার সুষ্পষ্ট উচ্চারণের মাধ্যমে আমাদেরকে আরো বলে যায়- ‘আই এম দ্যা লিডিং ম্যান’। বিষয়বস্তুর আলোকে বলা যায়- এ ট্র্যাকটি একটি পরিপূর্ণ ‘স্টেডিয়াম রক’। ক্লাসিক রক-রিফের অপূর্ব সমাবেশ এ গান এবং এটি উৎসবের একটি অপূর্ব সূচনা সঙ্গীত।

জুন ২০১৮ : ‘আর্মি অব এনজেল্স’
এ গানে এমন একজন ব্যক্তির কথা বলা হয়েছে, যে-কিনা দীর্ঘকাল ধরে হেঁটেছে কঠোরতার পথে। আলী জ্যাকোর কন্ঠ এ গানটির জন্য যোগ করেছে ভিনড়ব মাত্রা। এ গানে গিটারের ব্যবহার চমকপ্রদ। এ গানের সলো আমাদেরকে স্বর্গের কাছাকাছি নিয়ে যায়, যখন পর্যন্ত না আলী জোকোর মানবিক, শক্তিশালী অথচ আকর্ষণীয় কন্ঠস্বরটি আমাদেরকে মাটির ধরায় ফিরিয়ে আনে। সত্যি বলতে, এ গানের কোরাসে স্বর্গের সেনারা যেন সত্যি সত্যি মাটির ধরায় নেমে আসে।

জুলাই ২০১৮ : ‘সামবডি টু লাভ’
জ্যাজ ঘরানার এ গানটি আলী জ্যাকোর সঙ্গীত প্রতিভার ভিনড়বরূপ প্রকাশ করেছে। তার কন্ঠ এ গানের কথাগুলোর উইটকে যথাযথভাবে প্রকাশ করেছে। এ গানে সুরের খেলায় ফুটে উঠেছে তার প্রেমের আকুতি। গ্রেট র‌্যান্ডি নিউম্যানকে স্মরণ করিয়ে দেয়া গানটি নিশ্চিতভাবে আপনার মুখচ্ছবিতে আনবে হাসির আবেশ। আলী জ্যাকোর সঙ্গীত প্রতিভার ভিনড়ব আঙ্গিক ফুটিয়ে তুলে এ গানটি।

আগস্ট ২০১৮ : ‘ফলো মাই হার্ট’
এ গানের সরল অথচ আকর্ষনীয় পরিবেশনা আমাদেরকে উচ্চকিত করে এই মানসিক আবেশে যে, আলী জ্যাকোর একজন যোদ্ধা হওয়াই প্রয়োজন। সুতীক্ষড়ব অথচ সুরেলা এ গান আমাদের মনে করিয়ে দেয় ল্যাবি সিফরির কথা, যেভাবে তারা আমাদেরকে তাদের সঙ্গীত ভূবনে অবগাহনে বার বার টেনে নিয়ে যায়। এ গানের প্রতিধ্বনি অনুরণিত হয় আপনার হৃদয়ের গভীর থেকে গভীরে।

সেপ্টেম্বর ২০১৮ : ‘বেবি ইউ আর মাইন’
সুরময় এই প্রেমের গানটিতে রক মিউজিকের সাথে পপ সঙ্গীতের স্বার্থক সমন্বয় ঘটেছে। গানটিতে আলী জ্যাকোর রক বাদ্যের সাথে পপ আবহের ঐক্যতান আপনাকে আপনার তারুণ্যের দিনগুলোতে ফিরিয়ে নেবে। পরিবেশনার গুণে আপনি নিজেও কখন একাত্ম হয়ে যাবেন এ গানটির সাথে সেটি আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না।

অক্টোবর ২০১৮ : ‘আই নিড ইউ’
আলী জ্যাকোর এই গানটির সাথে গানের বাণীর সাথে আবেগের অপূর্ব সমন্বয় ঘটেছে। ভালবাসার আবেগী প্রকৃতির সাথে সচেতন জগতের যোগসূত্রে স্থাপনের মাধ্যমে এ গানটি জাগতিক চেতনাকে নাড়িয়ে দেয় শ্রোতার হৃদয়ের গহীনটুকু।

নভেম্বর ২০১৮ : ‘হোম’
ধোঁয়া ছেয়ে যাওয়া একটি বারে প্রেমকাতর এক পিয়ানো বাদক তার সবকিছু পেয়ে যাওয়ার আত্মতুষ্টির কথাগুলো বিধৃত করে চলেছে এ গানে, যার মাধ্যমে আমরা জ্যাকোর ব্যক্তিগত খ্যাতির বিড়ম্বনা কথাগুলোই তুলে ধরা হয়েছে। গানটির গতিময় সুর বেদনাবিধুর কথাগুলোর সাথে অসঙ্গতি রেখেই এগিয়ে যায়। এরপর আমরা যখন জ্যাকোর বেদনামাখা কন্ঠে বাণী উচ্চারণটি শুনতে পাই, তখনই আমরা অনুভব করি আমরা আটকা পড়েছি সুরের ঈন্দ্রজালে। এটি একটি ধীর লয়ের ট্র্যাক, যেটি শ্রোতাকে উপহার দেয় একটি চমৎকার উপসংহার। বিজ্ঞপ্তি

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.