ঢাকা, শনিবার,২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা

আমেরিকার ছোট আকৃতির পরমাণু বোমা : তীব্র নিন্দা চীন, রাশিয়ার

নয়া দিগন্ত অনলাইন

০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮,সোমবার, ১৪:৪৪


প্রিন্ট
আমেরিকার ছোট আকৃতির পরমাণু বোমা : তীব্র নিন্দা চীন, রাশিয়ার

আমেরিকার ছোট আকৃতির পরমাণু বোমা : তীব্র নিন্দা চীন, রাশিয়ার

চীন ও রাশিয়াকে ঠেকানোর কথা বলে মার্কিন সেনাবাহিনীর নতুন ও অপেক্ষাকৃত ছোট আকৃতির পরমাণু বোমা তৈরির পরিকল্পনার তীব্র নিন্দা করেছে মস্কো ও বেইজিং। আমেরিকার এই পদক্ষেপকে ‘যুদ্ধের উসকানি’ বলে উল্লেখ করেছে চীন ও রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। রাশিয়ার নিরাপত্তা রক্ষায় প্রয়োজনীয় পাল্টা পদক্ষেপ নেয়ারও হুঁশিয়ারি দিয়েছে তারা।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনের নীতি নির্ধারণী নথি বলে পরিচিত নিউক্লিয়ার পসচার রিভিউ (এনপিআর) থেকে জানা যায়, চীন ও রাশিয়াকে মোকাবিলার জন্য আমেরিকার পরমাণু অস্ত্রে বৈচিত্র্য আনা এবং নতুন ধরনের ছোট আকারের পরমাণু বোমা তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে মার্কিন সেনাবাহিনী।

এনপিআর-এ বলা হয়, মার্কিন সেনাবাহিনী রাশিয়াকে মোকাবিলায় উদ্বিগ্ন। কারণ, আমেরিকার পরমাণু অস্ত্র আকারে অনেক বড়। ফলে এর ব্যবহার অতটা সহজ নয়। এসব অস্ত্র এখন আর আগের মতো কার্যকরও নয়। ছোট আকারের পরমাণু বোমা প্রস্তুত করা গেলে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে পেন্টাগনের নীতি নির্ধারণী নথি যুক্তি দেখিয়েছে। মার্কিন সেনাবাহিনীর প্রস্তাবটির কথা প্রকাশ্যে আসার ২৪ ঘণ্টারও মধ্যে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে রাশিয়া, চীন, ইরান। রুশ বিদেশমন্ত্রকের পক্ষ থেকে ‘গভীর হতাশা’ প্রকাশ করে ওই বিবৃতিতে বলা হয়, নথিটির প্রথম পাঠেই মনে হয়েছে এটি সংঘাতে ভরা এবং রাশিয়াবিরোধী। রাশিয়ার অভিযোগ, এর মধ্য দিয়ে যুদ্ধের উস্কানি দিচ্ছে আমেরিকা।

মার্কিন পরমাণু পরিকল্পনায় স্নায়ুদ্ধের গন্ধ খুঁজছে চীন। ওয়াশিংটনের ছোট আকারের পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির পরিকল্পনাকে ‘স্নায়ুযুদ্ধের মানসিকতা’ আখ্যা দিয়ে কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে চীন। ওই মানসিকতা থেকে বেরিয়ে মার্কিন প্রশাসনকে চীনের কৌশলগত পারমাণবিক নীতিকে বোঝার আহ্বান জানানো হয়েছে।

চীনের পক্ষ থেকে বলা হয়, পেন্টাগনের নতুন পারমাণবিক পরিকল্পনার কঠোর বিরোধিতা করছে তারা। এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আশা করবো আমেরিকা স্নায়ুযুদ্ধের মানসিকতা পরিহার করে আন্তরিকভাবে নিরস্ত্রীকরণের তাগিদ বোধ করবে।’

চীনের কৌশলগত উদ্দেশ্য বুঝে দেশটির জাতীয় প্রতিরক্ষা এবং সামরিক বাহিনীর সক্ষমতাকে বস্তুনিষ্ঠভাবে ওয়াশিংটনকে দেখতে আহ্বান জানানো ওই বিবৃতিতে। বলা হয়েছে, বিশ্বের বৃহত্তম পরমাণু শক্তিধর দেশটির অস্ত্র বাড়ানোর প্রবণতা থেকে বেরিয়ে এসে বরং এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া উচিত।

আকারে ছোট ও কম ক্ষমতাসম্পন্ন পরমাণু বোমার শক্তি থাকে ২০ কিলো টনের কম। যদিও এই বোমার ধ্বংসাত্মক ক্ষমতা ভয়াবহ। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ দিকে জাপানের নাগাসাকি শহরে একই ধরনের বিস্ফোরণ ক্ষমতাসম্পন্ন পরমাণু বোমা নিক্ষেপ করা হয়েছিল, তাতেই ৭০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছিলেন। মার্কিন সেনাবাহিনীর প্রস্তাবে দাবি করা হয়, যতই সীমিত হোক না কেন পারমাণবিক অস্ত্রের ব্যবহার যে গ্রহণযোগ্য নয় তা রাশিয়াকে অনুধাবন করাতে এই কৌশল কাজে দেবে।

রাশিয়ানদের তাড়া করছে আমেরিকা

বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে রুশ নাগরিকদের গ্রেফতারের জন্য আমেরিকা তাড়া করে চলেছে বলে দাবি করেছে রাশিয়া। এই অভিযোগ তুলে রাশিয়া দেশটির নাগরিকদের বিদেশ ভ্রমণে যাওয়ার আগে দ্বিতীয়বার বিবেচনা করার পরামর্শ দিয়েছে। রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলেছে, রুশ নাগরিকরা যখন দেশের বাইরে যান তখন আমেরিকা বিভিন্ন দেশকে তাদের গ্রেফতারের জন্য অনুরোধ করছে। ওইসব দেশে গ্রেফতারের পর রুশ নাগরিকদের আমেরিকায় নিয়ে যাওয়া হতে পারে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জারি করা ভ্রমণ সতর্কতায় বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট মার্কিন ও রাশিয়ার কর্তৃপক্ষের মধ্যে সহযোগিতার সম্পর্ক বৃদ্ধির জন্য আমাদের আহ্বানের পরও আমেরিকার স্পেশাল সার্ভিস বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে রুশ নাগরিকদের গ্রেফতারের জন্য তাড়া করে বেড়াচ্ছে।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ২০১৭-র শুরু থেকে বিভিন্ন দেশে ১০ রুশ নাগরিককে আটক করার পিছনে আমেরিকার হাত রয়েছে। সম্প্রতি স্পেন, লাটভিয়া ও গ্রিসে চার রুশ নাগরিককে আমেরিকার সাইবার অপরাধের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। ২০১৭ সালে সাত রুশ নাগরিককে গ্রেফতার বা অভিযুক্ত করা হয়েছে আমেরিকা বা অন্যান্য দেশে। যদিও এই বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫