ঢাকা, বুধবার,২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

টেনিস

ছাদ বন্ধ করাতেই জিতলেন ফেদেরার!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

২৯ জানুয়ারি ২০১৮,সোমবার, ১০:২১ | আপডেট: ২৯ জানুয়ারি ২০১৮,সোমবার, ১০:২৮


প্রিন্ট
রজার ফেদেরার

রজার ফেদেরার

ছত্রিশ বছর বয়সী রজার ফেদেরার আবার ভেলকি দেখালেন - অস্ট্রেলিয়ান ওপেন সিঙ্গলস জিতে নিয়ে তিনি ক্যারিয়ারে এযাবত মোট কুড়িটা গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতলেন, পুরুষদের মধ্যে যে রেকর্ড আর কারো নেই।

কিন্তু মেলবোর্নে ফাইনালের সময় যেভাবে স্টেডিয়ামের ছাদ বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল, তাতে ফেদেরারের কাজ বেশ সহজ হয়ে গিয়েছিল বলে অনেকেই মনে করছেন।

ফাইনালে পাঁচ সেটের লড়াইয়ে হেরে যাওয়ার পর পরাজিত মারিন চিলিচ নিজেই বলেছেন, রড লেভার এরিনার ছাদ বন্ধ করে দেয়াতে কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নিতে তাকে বেশ অসুবিধায় পড়তে হয়েছিল।

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে যে 'এক্সট্রিম হিট পলিসি' অনুসরণ করা হয়, তা অনুযায়ী তাপমাত্রা চল্লিশ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছুঁলে স্টেডিয়ামের ছাদ টেনে দেয়া হয়, ভেতরে চালিয়ে দেয়া হয় বাতানুকূল যন্ত্র।

রোববার খেলার সময় মেলবোর্নের তাপমাত্রা অবশ্য ছিল ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, কিন্তু টুর্নামেন্টের সংগঠকরা জানিয়েছেন বাতাসে আর্দ্রতা এত বেশি ছিল যে সে কারণেই তারা ছাদ বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

চিলিচ বলেছেন, "এই সিদ্ধান্তটা আমার জন্য মানসিকভাবে বেশ কঠিন ছিল। কারণ গোটা টুর্নামেন্ট আমি আউটডোরে খেলেছি, ফাইনালটাও একটা ৩৮ ডিগ্রির গরম দিনে খেলার জন্যই প্রস্তুতি নিয়েছিলাম।"

টুর্নামেন্ট সংগঠকদের আসলে ঠিক উল্টো সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত ছিল বলেই মন্তব্য করেছেন তিনি।

সাবেক উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন ও অস্ট্রেলিয়ান তারকা প্যাট ক্যাশও মনে করছেন এই 'ইন্ডোর কন্ডিশন' আসলে ফেদেরারেরই সুবিধা করে দিয়েছে।

বিবিসিকে তিনি বলেন, "এটা তো একটা আউটডোর টুর্নামেন্ট। তাহলে ফাইনালে ছাদ কেন বন্ধ থাকবে?"

"আসলে রজারের খেলার ভঙ্গীটা এমন, যাতে সামান্য বাতাস থাকলে বা বলের মুভমেন্টে ভেরিয়েশন হলে ওর বেশ মুশকিল হয়ে যেতে পারে। এই জন্য ও ইনডোরে বোধহয় সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়", বলছেন প্যাট ক্যাশ।

ফেদেরার নিজে বলেছেন, ছাদ বন্ধ করা হবে শুনে তিনি নিজেও বিস্মিত হয়েছিলেন, তবে তাতে তার প্রস্তুতি কোনোভাবে ব্যাহত হয়নি।

ম্যাচের মাত্র আধঘণ্টা আগে খেলোয়াড়দের জানানো হয় ফাইনাল ইন্ডোরে হবে।

তবে অনেকেই বলছেন, ছত্রিশ বছরের ফেদেরার অবশ্যই বাতানুকূল পরিবেশে খেলতে বেশি স্বচ্ছন্দ বোধ করেছেন!

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫