মানহীন বীজ রোধে সংসদে বিল পাস

সংসদ প্রতিবেদক
মানহীন বীজ বিক্রয় সংরক্ষণ ও আমদানির অপরাধে ৩ মাসের কারাবাস ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ডের বিধান রেখে বীজ বিল-২০১৮ পাস করেছে জাতীয় সংসদ। গতকাল সোমবার রাতে ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে বিলটি পাস করার প্রস্তাব করেন কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী। এর আগে বিলের ওপর আনীত অধিকতর যাচাই, বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও সংশোধনী প্রস্তাবগুলো কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।
বিলে বলা হয়, সরকার কৃষি ক্ষেত্রে ব্যবহার্য এবং বিক্রয়যোগ্য যেকোনো ফসল বা জাতের বীজের গুণগত মান নিয়ন্ত্রণ করবে। এ জন্য সরকারের একটি জাতীয় বীজ বোর্ড থাকবে। কৃষিসচিব এই বোর্ডের চেয়ারম্যান থাকবেন। এই বীজ বোর্ডের নিবন্ধন সনদ ছাড়া কোনো ব্যক্তি বীজ ডিলার হিসেবে ব্যবসা করতে পারবে না। বোর্ড বীজের শ্রেণিবিন্যাস ও মানদণ্ড নির্ধারণ করবে। মানদণ্ড নিশ্চিত না হলে সনদ বাতিল হবে। এ জন্য সরকারের বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সি থাকবে। এজেন্সির প্রত্যয়ন ছাড়া বীজ সনদ পাওয়া যাবে না। আমদানির ক্ষেত্রে বিদেশী প্রত্যয়ন এজেন্সির সনদ শর্তসাপেক্ষে গৃহীত হবে। বীজ আমদানি রফতানি ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট আইন প্রযোজ্য হবে। 
এ ছাড়া নিয়ন্ত্রিত কোনো ফসলের বীজ বিক্রয়, সংরক্ষণ, আমদানি বা রফতানি করা যাবে না। বীজ পরীক্ষার জন্য একটি পরীক্ষাগার থাকবে। সরকার প্রয়োজনে যেকোনো বীজ পরীক্ষাগারকে সরকারি পরীক্ষাগার ঘোষণা করতে পারবে। 
বিলে বলা হয়, সরকার নিয়োজিত বীজ পরিদর্শক যেকোনো স্থানে পরিদর্শন ও বীজের নমুনা সংগ্রহ করতে পারবেন। বীজ পরিদর্শনে বাধা প্রদান বা বীজ বিক্রয় শর্ত লঙ্ঘন করলে কোনো ব্যক্তি অনধিক নব্বই দিন বিনাশ্রম কারাদণ্ড বা অনূর্ধ্ব ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন। 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.