সহজ জয় পেয়ে ফাইনালের পথে শ্রীলঙ্কা
সহজ জয় পেয়ে ফাইনালের পথে শ্রীলঙ্কা

সহজ জয় পেয়ে ফাইনালের পথে শ্রীলঙ্কা

নয়া দিগন্ত অনলাইন

জিম্বাবুয়েকে ১৯৮ রানে অল আউট করার মধ্যেই জয় নিশ্চিত হয়েছিল শ্রীলঙ্কার। জিম্বাবুয়ে মাঝে-মধ্যে খেলায় ফেরার চেষ্টা করলেও তাতে কাজ হয়নি। ৫ উইকেটে সহজ জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে তারা। এর ফলে ফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা টিকে থাকল হাথুরুসিঙ্গে বাহিনীর। আগের দুই ম্যাচেই যথাক্রমে জিম্বাবুয়ে ও বাংলাদেশের কাছে হেরে বেশ সমস্যায় পড়ে গিয়েছিল তারা। আজকের ম্যাচে হারলে তাদের বিদায় নিশ্চিত হয়ে যেত। এখন বাংলাদেশের বিরুদ্ধে তাদের আরেকটি খেলা বাকি আছে। আর জিম্বাবুয়েও খেলবে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। 

শ্রীলঙ্কার পক্ষে দুই পেরেরাই দলের জয় নিশ্চিত করে ফেলেন।

শ্রীলঙ্কাকে ১৯৯ রানের টার্গেট জিম্বাবুয়ের
ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে জয়ের জন্য শ্রীলঙ্কাকে ১৯৯ রানের টার্গেট দিয়েছে জিম্বাবুয়ে। টুর্নামেন্টের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং-এ নেমে ৪৪ ওভারে ১৯৮ রানে অলআউট হয় জিম্বাবুয়ে।

মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ফিরতি লিগের প্রথম ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক গ্রায়েম ক্রেমার। এই টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মত টস ভাগ্যে জিতলেন ক্রেমার। প্রথমে ব্যাট করার সুযোগটা কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছেন জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও সলোমন মির। ১০ ওভারে ৪৪ রানের জুটি গড়েন তারা।

শুরুটা ভালো হলেও, খুব দ্রুতই বিপদে পড়ে যায় জিম্বাবুয়ে। ৪৪ থেকে ৫৬ রানে পৌঁছাতেই ৩ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। তিনটি উইকেটই নিয়েছেন শ্রীলঙ্কার মিডিয়াম পেসার থিসারা পেরেরা। দুই ওপেনার মাসাকাদজা ২০, মির ২১ ও তিন নম্বরে নামা ক্রেইগ আরভিন ২ রান করে ফিরেন।

এরপর ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন গেল ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় সিকান্দার রাজা। এবার তার ব্যাট থেকে আসে ৯ রান। ৭৩ রানে চতুর্থ উইকেট হারানোর পর দলকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়া দায়িত্ব পান সাবেক অধিনায়ক ব্রেন্ডন টেইলর ও ম্যালকম ওয়ালার। দায়িত্বটা যথাযথ পালনও করছিলেন তারা। ধীরে ধীরে দলের স্কোর বড় করছিলেন টেইলর ও ওয়ালার। কিন্তু ২৪ রানে থাকা ওয়ালারকে বিদায় দিয়ে শ্রীলঙ্কাকে দারুণ এক ব্রেক-থ্রু এনে দেন বাঁ-হাতি স্পিনার লক্ষন সান্দাকান। পঞ্চম উইকেটে টেইলরের সাথে ৬৬ রান করেন ওয়ালার।

ওয়ালার ফিরে পর যাবার জিম্বাবুয়ের একমাত্র স্বীকৃত ব্যাটসম্যান হিসেবে টিকে ছিলেন টেইলর। জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তন সিরিজের তৃতীয় ম্যাচেই হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন টেইলর। ৬৩তম বলে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ৩৩তম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি। হাফ-সেঞ্চুরির পর ইনিংসটাকে বড় করতে পারেননি টেইলর। ৬টি চারে ৮০ বলে নামের পাশে ৫৮ রান রেখে প্যাভিলিয়নে যান টেইলর।

টেইলের আউটে লড়াকু সংগ্রহ পাবার পথ বন্ধ হয়ে যায় জিম্বাবুয়ের। তারপরও শেষদিকে অধিনায়ক ক্রেমারের ৪২ বলে ৩৪ রানের পরও ৬ ওভার বাকি থাকতেই ১৯৮ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। শ্রীলঙ্কার পক্ষে পেরেরা ৪টি ও ফার্ন্দান্দো ৩টি উইকেট নেন।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং-এ জিম্বাবুয়ে
ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং-এর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জিম্বাবুয়ে। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ম্যাচটি। আজ ফিরতি লিগের প্রথম ম্যাচ।

ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে ৮ উইকেটে হারিয়ে টুর্নামেন্টে শুভ সূচনা করে বাংলাদেশ। এরপর টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ১২ রানে হারিয়ে মিরপুর স্টেডিয়ামের শততম ম্যাচে রোমাঞ্চকর জয়ের স্বাদ নেয় জিম্বাবুয়ে। লিগের প্রথম পর্বের শেষ ম্যাচে চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কাকে ১৬৩ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়ে টুর্নামেন্টের ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলে মাশরাফির বাংলাদেশ।

জিম্বাবুয়ে দল : গ্রায়েম ক্রেমার (অধিনায়ক), হ্যামিলটন মাসাকাদজা, সলোমন মির, ক্রেইগ আরভিন, ব্রেন্ডন টেইলর, সিকান্দার রাজা, পিটার মুর, ম্যালকম ওয়ালার, রায়ান মারে, টেন্ডাই চিসোরো, ব্রেন্ডন মাভুতা, ব্লেসিং মুজারাবানি, ক্রিস্টোফার মোফু, টেন্ডাই চাতারা ও কাইল জার্ভিস।

শ্রীলঙ্কা দল : দিনেশ চান্ডিমাল (অধিনায়ক), উপুল তারাঙ্গা, দানুশকা গুনাথিলাকা, কুসল মেন্ডিজ, কুসল জেনিথ পেরেরা, থিসারা পেরেরা, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ, আসেলা গুনারত্নে, নিরোশান ডিকবেলা, সুরঙ্গ লাকমাল, নুয়ান প্রদীপ, দুশমন্ত চামিরা, শেহান মাদুশানাকা, আকিলা ধনঞ্জয়া, লক্ষন সান্দাকান ও বানিদু হাসারাঙ্গা।

 

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.